বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ১২:৪৯ পূর্বাহ্ন

“ দুইটা দলের মাঝেরে এরশাদ কান্ডারী” বাউল কামাল পাশা মননে পল্লীবন্ধু”

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৮
  • ৭৫ Time View


আল-হেলাল
বাংলাদেশের রাজনীতির ইতিহাসে এখন একটি আলোচিত নাম আলহাজ্ব হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ। বাউল কামাল পাশার গানের কথার মতই“দুইটা দলের মাঝেরে এরশাদ কান্ডারী”। যিনি দীর্ঘ ৯ বছর সফলভাবে রাষ্ট্র পরিচালনা করেছেন। ১৯৮৩-১৯৯০ সাল পর্যন্ত দেশের দশম রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। উপজেলা প্রবর্তণ,সংবিধানে বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহীম শব্দটি চালুকরণ,রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম ঘোষণা ও মুক্তিযোদ্ধাদেরকে সর্বকালের শ্রেষ্ট সন্তান হিসেবে উপাধিদান এবং দেশে পর্যাপ্ত পরিমাণ ব্রীজ কালভার্ট ও রাস্তাঘাট স্থাপনের মধ্যে দিয়ে তিনি উন্নয়নের নজীর স্থাপন করেছেন। আশির দশকে দেশের এক ক্রান্তিলগ্নে তিনি ক্ষমতায় আসেন। পরে ৯ বছরের সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে ৬৮ হাজার গ্রাম বাংলার নয়নের মনি ও পল্লীবন্ধু হিসেবে তিনি স্বীকৃত হন। বর্তমান শেখ হাসিনার ও মহাজোট সরকারের ৩ বারের ক্ষমতাসীন হওয়ার মধ্যে তার রয়েছে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা। ১৯৮৫ সালে সর্বপ্রথম সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলার ভাটিপাড়া গ্রামে অতিথি পাখির নিরাপদ আশ্রয়স্থল আয়লা বিল পরিদর্শনে আসেন। অবস্থান করেন জমিদার বাড়ি ও স্থানীয় ভাটিপাড়া হাইস্কুল সংলগ্ন ডাকবাংলোতে। ভাটিপাড়ার জমিদার বাড়ির বিশিষ্ট শিল্পপতি এম.এইচ চৌধুরী পারুল মিয়া,ইউপি চেয়ারম্যান মইনুল হক চৌধুরী ও তৎকালীন দিরাই উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান পরবর্তীতে জাতীয় পার্টির এমপি নাছির উদ্দিন চৌধুরীর সহায়তায় তখন এই রাষ্ট্রপ্রধানের সাথে ভাটিপাড়া গ্রামের কবি ও গণসঙ্গীত শিল্পী বাউল কামাল পাশা (কামাল উদ্দিন) এর পরিচয় হয়। পরিচয় থেকে তাৎক্ষনিকভাবে রাষ্ট্রপ্রধান এরশাদ এর প্রশংসা করে তাকে অভিনন্দন জানিয়ে বেশ কয়েকটি গান রচনা ও পরিবেশন করেন বাউল কামাল পাশা। কালের আবর্তে ও বাউল কামাল পাশার মৃত্যুতে এই গানগুলি হারিয়ে গেলেও বাউল কামাল পাশা স্মৃতি সংসদ সুনামগঞ্জ নামের সাংস্কৃতিক সংগঠণটি আজো গানগুলো খুজে বেড়াচ্ছে। ব্যাপক অনুসন্ধানের পর ভাটিপাড়া গ্রামের বাউল শিল্পী রুহেল মিয়া,বাউল ছারোয়ার আলম তালুকদার,সাবেক মেম্বার দিলনূর মিয়ার কাছ থেকে বিচ্ছিন্নভাবে নি¤েœাক্ত গানটি পাওয়া যায়। দীর্ঘ ৩৩ বছরের আগের গানটি অনেকেই ভূলে গেছেন। বাউল কামাল পাশার সুযোগ্য শিষ্য বাউল মজনু পাশার ছাত্র সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার হালুয়ারগাঁও গ্রামের বাউল আলাউদ্দিন তার হৃদয়ের মনিকোটার স্মৃতি থেকে এলোমেলোভাবে প্রাপ্ত গানটির কথা ও সুর মোটামোটি মিলিয়েছেন। আজ সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদের সুনামগঞ্জ আগমনে বাউল কামাল পাশা স্মৃতি সংসদ সেই গানটি সংগ্রহপূর্বক উপস্থাপন করেছে। দেশের লাঙ্গলপ্রিয় মানুষ গানটির সদব্যবহারে সক্ষম হলে আমাদের প্রচেষ্টাও সার্থক হবে।
“লাঙ্গল বানাইয়া দিল সুজন মেস্তরী
দুইটা দলের মাঝেরে এরশাদ কান্ডারী।।
কাঠের লাঙ্গল,মাঠের লাঙ্গল জমিতে চাষ করি
চাষাবাদের পরে আমরা গোলায় ধান ভরি।।
এ লাঙ্গলতো সে লাঙ্গল নয়,বলি ইঙ্গিত করি
ব্যালট মাঝে কালো লাঙ্গল,দেখে সীল মারি।।
লাঙ্গল যার জমিনটা তার এই শ্লোগান ধরি
লাঙ্গল মার্কার হবেরে জয়,দেখিতে পারি।।
বাউল কামাল বলে এই লাঙ্গলটা কুদরতে তৈয়ারী
কোথায় হতে আসে লাঙ্গল বুঝিতে না পারি”।।

লেখক : আল-হেলাল,সাংবাদিক,গবেষক,কলামিস্ট,লোকগীতি সংগ্রাহক ও প্রতিষ্ঠাতা আহবায়ক বাউল কামাল পাশা স্মৃতি সংসদ,সুনামগঞ্জ।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24