বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের টের পেয়ে পেঁয়াজ ১৭০ থেকে নেমে এলে ১২০ টাকা কেজি জগন্নাথপুর উপজেলাকে মাদকমুক্ত করতে মতবিনিময়সভা অধ্যক্ষকে পানিতে নিক্ষেপ: ছাত্রলীগের আরো পাঁচজন গ্রেফতার নবীজীর কাছে যে সকল বেশে হাজির হতেন জিবরাইল (আ.) অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক লবনের গুজব জগন্নাথপুরের সর্বত্রজুড়ে,ক্রেতা সামলাতে না পেরে দোকান বন্ধ, চলছে মাইকিং জগন্নাথপুর বাজারে লবন নিয়ে গুজব জগন্নাথপুরে আমনের ফলনে কৃষক খুশি জগন্নাথপুরে দুই মেধাবী শিক্ষার্থীর সহায়তায় এগিয়ে এলেন লন্ডন প্রবাসী মোবারক আলী জগন্নাথপুরে ৬ দিন ধরে মাদ্রাসার নৈশ্য প্রহরী নিখোঁজ

ধর্মপাশায় ভিজিডির চাল পাচ্ছে না ৫০২ জন কার্ডধারী

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ১০১ Time View

ধর্মপাশা উপজেলার মধ্যনগর থানাধীন চামরদানি ও বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়নের ৫০২ জন ভিজিডি কার্ডধারী কয়েক মাস ধরে চাল পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ উঠেছে। চাল না পাওয়ায় উপকারভোগী ওইসব কার্ডধারীর পরিবারের লোকজন মানবেতর জীবন যাপন করছেন। চামরদানি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের সাথে ইউপি সদস্যদের সমন্বয়হীনতা এবং বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের উদাসীনতার কারণে চাল বিতরণ কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে বলে জানিয়েছেন কার্ডধারী ও স্থানীয় এলাকাবাসী।
জানা যায়, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের অধীনে ভিজিডির আওতায় চামরদানি ইউনিয়নে ২২৬ জন ও বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়নে ২৭৬ জন উপকারভোগী রয়েছে। প্রতি কার্ডধারী প্রতিমাসে ৩০ কেজি করে চাল পাওয়ার কথা রয়েছে। ওই দুটি ইউনিয়ন ছাড়া উপজেলার বাকি ৮টি ইউনিয়নে যথাযথভাবে ভিজিডির চাল বিতরণ হলেও ইউপি চেয়ারম্যান ও সদস্যদের মধ্যে সমন্বয়হীনতার কারণে চামরদানি ইউনিয়নে গত জুন, জুলাই ও আগস্ট মাসের এবং বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান কোনো কারণ ছাড়াই জুলাই ও আগস্ট মাসের চাল বিতরণ করেননি। ফলে ওই দুটি ইউনিয়নের ভিজিডি কার্ডধারীদের জন্য বরাদ্দকৃত প্রায় ৩৭ মেট্রিক টন চাল মধ্যনগর খাদ্যগুদামে মজুদ রয়েছে বলে জানিয়েছেন খাদ্যগুদামের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অবিনাশ দাস। তিনি জানিয়েছেন নির্ধারিত সময়ে বরাদ্দকৃত ওইসব চাল না নেওয়ায় কৃষকের ধান সংগ্রহ কার্যক্রম কিছুটা ব্যহত হয়। চামরদানি ইউনয়িনের ৮নং ওয়ার্ডের বলরামপুর গ্রামের ভিজিডি কার্ডধারী শেফালী বেগম ও হাছনা হেনাসহ আরও অনেকেই জানান, নির্ধারিত সময়ে ভিজিডির চাল না পাওয়ায় পরিবারের লোকজনকে নিয়ে তাদেরকে মানবেতর জীবন যাপন করতে হচ্ছে।
চামরদানি ইউনিয়নের ৮ নং ওর্য়াডের ইউপি সদস্য ওয়াসিল আহমেদ বলেন, চেয়ারম্যানকে বারবার বলার পরেও ভিজিডির চাল কেন বিতরণ করছেন না তা জানি না। বিষয়টি ইউএনও স্যারকে জানিয়েছি।
বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ইউনুছ আলী বলেন, চেয়ারম্যানের গাফিলতি ও উদাসীনতার কারণে ভিজিডির চাল বিতরণ হচ্ছে না। বিষয়টি ইউএনও স্যারকে একাধিকবার জানিয়েও কোনো কাজ হয়নি।
বংশীকুন্ডা দক্ষিণ ইউনিয়নের কার্ডধারীদের মধ্যে কেন চাল বিতরণ করা হয়নি তার কোনো সদুত্তর দিতে না পেরে ওই ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আজিম মাহমুদ বলেন, খুব দ্রুত চাল বিতরণ করা হবে।
চামরদানি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাকিরুল আজাদ মান্না বলেন, ইউপি সদস্যদের সাথে সমন্বয়হীনতার কারণে চাল বিতরণ হয়নি। আগামী রবিবার চাল বিতরণ করা হবে।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান বলেন, ওই দুটি ইউনিয়নের ভিজিডির চাল বিতরণের জন্য ডিও দেওয়া হয়েছে। কেন এখনও চাল বিতরণ করা হয়নি তা খোঁজ নিয়ে দেখবো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24