বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ০২:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
মিরপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শেরীন শপথ নেবেন ২৫ নভেম্বর দক্ষিণ সুরমার একাধিক মামলার আসামি গ্রেফতার সাহাবাদের যুগে শিশুদের শিক্ষায় অধিক গুরুত্ব দেওয়া হতো জগন্নাথপুরের সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় কে ফুলেল শ্রদ্ধায় চীরবিদায় সিলেটে হিরন মাহমুদ নিপু আটক তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে ছাত্রদলের এতিমদের মধ্যে খাদ্য বিতরণ ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সসীমের অসহায়ত্ব -মোহাম্মদ হরমুজ আলী তারেক জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে জগন্নাথপুরে বিএনপির দোয়া মাহফিল পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান জগন্নাথপুরে কাল আসছেন জগন্নাথপুরে বাজার মনিটরিং করলেন পুলিশের এএসপি

নবীগঞ্জের সীমান্তবর্তী বানিয়াচংয়ের ত্রাস জহির অস্ত্রসহ গ্রেফতার, সহযোগী শেকুল রয়েছে অধরা

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৩ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৪৫ Time View

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ)থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা:হবিগঞ্জ জেলার নবীগঞ্জ উপজেলার সীমান্তবর্তী বানিয়াচং উপজেলার বড়ইউরি ইউনিয়নের কালানজুড়া গ্রামের দুর্ধর্ষ ত্রাস সৈয়দ জহির আহমদ আগ্নেয়াস্ত্রসহ পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলে ও তার প্রধান সহযোগী পাশ্ববর্তী হলদারপুর গ্রামের শেকুল আহমদ রয়েছে অধরা। জহির ধরা পড়ায় স্বস্থি ফিরলেও শেকুল ধরা না পড়ায় এখনো আতংকে রয়েছেন এলাকাবাসী।
স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, উপজেলার বড়ইউরি গ্রামের কুখ্যাত সন্ত্রাসী মৃত সৈয়দ সাজিদুর রহমানের পুত্র সৈয়দ জহির আহমদ পাশ্ববর্তী হলদারপুর গ্রামের মৃত ছাও মিয়ার পুত্র শেকুল আহমদসহ এলাকার কতিপয় যুবকদের নিয়ে একটি বাহিনী তৈরি করেছে। এদের মাধ্যমে এলাকায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন, মাদক কেনা বেচা, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে সাধারন মানুষকে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদাবজীসহ নানা অপকর্ম করে আসছিল। তাদের বিরুদ্বে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। সাধারন মানুষ ছিল তাদের কাছে জিম্মি। এ অবস্থায় গত ৭ মার্চ ২০১৭ইং তারিখে জহির নারী গঠিত কারনকে কেন্দ্র করে একই এলাকার বেতকান্দি গ্রামের আলী আহমদ নামে এক যুবককে পাইপ গান দিয়ে প্রানে হত্যার উদেশ্যে কয়েক রাউন্ড গুলি বর্ষন করে। এতে আলী আহমদসহ অন্তত ৮জন সাধারন মানুষ গুলিবিদ্ব হয়। এ সময় আশপাশের লোকজন ধাওয়া দিয়ে সন্ত্রাসী জহিরকে ১টি পাইপ গানসহ আটক করে বানিয়াচং থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেন। এ ঘটনায় আবু আহমদ বাদী হয়ে বানিয়াচং থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। আর অস্ত্র আইনে পুলিশ বাদী হয়ে আরেকটি মামলা দায়ের করেন। এর পর থেকে জহির জেল হাজতে রয়েছে। কিন্তু তার প্রধান সহযোগী শেকুল পুলিশের হাতে ধরা না পড়লে ও গাঁ ডাকা দিয়ে আছে। এলাকাবাসী জানায় শেকুল কে ধরলে তার কাছ থেকে ও অবৈধ আগ্নেয়াস্ত্র পাওয়া যাবে। এলাকাবাসী তাকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশের উর্দ্বত্তন কর্তৃপক্ষের নিকট জোর দাবী জানিয়েছেন।
উল্লেখ্য বিগত ২০১০ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারী তারিখে শেকুলকে একটি রিভলবার ও ৫ রাউন্ড গুলিসহ হবিগঞ্জের ডিবি পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছিল। এর পর সে কিছু দিন কারাভোগের পর জামিনে বের হয়ে এসে সেই তার আগের মতই চলাফেরা করছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24