শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ০৭:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে তিনদিন ব্যাপি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন ব্রিটেনের নির্বাচনে আফসানার বড় জয়ে জগন্নাথপুরে উৎসবের আমেজ ব্রিটিশ পালার্মেন্টে ঝড় তুলবে বিজয়ী বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ৪ নারী এমপি ব্রিটেনের নির্বাচনে একটি আসনে বিশাল জয় পেয়েছেন জগন্নাথপুরের আফসানা বেগম অপরাধীদের প্রতি মহানবীর আচরণ যেমন ছিল সুদখোরদের ধরতে জেলা ও উপজেলায় মাঠে নামছে প্রশাসন জগন্নাথপুরে হাওরের জরিপ কাজ শেষ, কাজের তুলনায় বরাদ্দ কম, প্রকল্প কমিটি হয়নি একটিও জগন্নাথপুরে ডিজিটাল বাংলাদেশ উপলক্ষ্যে র‌্যালি, চিত্রাঙ্কন ও কুইজ প্রতিযোগিদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ জগন্নাথপুরে শিশু সাব্বির হত্যার ঘটনার গ্রেফতার-১ এনটিভি ইউরোপের জগন্নাথপুর প্রতিনিধি নিয়োগ পেলেন আব্দুল হাই

বদলীকৃত সিবিএ নেতা ফজলুল হকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে অভিযোগ দায়ের

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৯ মার্চ, ২০১৬
  • ৬৫ Time View

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা : সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলায় বদলীকৃত কর্মচারী জেলা শ্রমিক লীগের একাংশের স্বঘোষিত সভাপতি ফজলুল হকের অপতৎপরতায় সুনামগঞ্জ জেলা শ্রমিকলীগের মধ্যে আবারও নতুন করে কোন্দল গ্রুপিং শুরু হয়েছে। সম্মেলনের মধ্যে দিয়ে জেলা আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে পরিবর্তন সাধিত হওয়ায় এখন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক কার্যকরী কমিটির এক বৃদ্ধ আত্মীয় নেতার হাত ধরে নতুন গ্রুপের রাজনীতিতে অংশগ্রহন করেছেন এই দূর্নিিতবাজ কর্মচারী। নিরীহ কর্মচারীদেরকে সাবেক মুকুট গ্রুপ ছেড়ে নতুন গ্রুপের কর্মকান্ডে সক্রিয় হওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করছেন। সম্প্রতি বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক বরাবরে প্রেরিত এক অভিযোগে প্রকাশ, দূর্নীতি,ক্ষমতার অপব্যাবহার ও চাঁদাবাজীর গুরুতর অভিযোগের প্রেক্ষিতে সুনামগঞ্জ সিবিএ নেতা ফজলুল হককে জকিগঞ্জ শাখায় বদলী করা হয়। কিন্তু বদলীর আদেশকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে মূখ্য আঞ্চলিক ব্যাবস্থাপক (সিআরএম) মোঃ সোলায়মান এর সহায়তায় পেছনের তারিখের ছুটি দেখিয়ে সুনামগঞ্জ সিআরএম কার্যালয়ে বসে অননুমোদিতভাবে কর্মস্থলে মাসের পর মাস অনুপস্থিত রয়েছেন তিনি। এর আগে বদলীকৃত কর্মস্থলে যোগদান থেকে বিরত থেকে বদলী ঠেকানোর চেষ্টা করেও ব্যার্থ হন। দুর্নীতির কারণে হাউজ বিল্ডিং ঋন বিতরন বন্ধ রাখার জন্য সিআরএম ও ফজলুল হকের উপর দায়েরকৃত অভিযোগের আলোকে মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বিভাগীয় ভিজিল্যান্স স্কোয়ার্ড কর্তৃক তদন্ত অনুষ্ঠিত হয়। তদন্তে ভয় ভীতি উপেক্ষা করে অনেকেই প্রভাবশালী ফজলুল হকের অপকর্মের বিরুদ্ধে সাক্ষী দেন এবং অভিযোগ প্রমানিত হয়। তারপরও আজোবদি তার বিরুদ্ধে কোন ব্যাবস্থা নেয়া হয়নি। ভবিষ্যতে মূখ্য আঞ্চলিক কর্মকর্তা সিআরএম যেন ফজলুর নির্দেশ মোতাবেক ১০% ঘুষের বিনিময়ে সাজানো তালিকামতে গৃহ নির্মাণ ঋন বিতরন না করেন সে আবেদন থাকলেও তদন্ত বা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে সিআরএম ফজলুর নির্দেশিত হাউজ বিল্ডিং ঋন বিতরন করে গেছেন। বর্তমানে নিজ এলাকায় বদলী হওয়া মুখ্য আঞ্চলিক কর্মকর্তা মোঃ সোলায়মান সুনামগঞ্জে কর্মরত থাকাবস্থায় ফজলুল হকের নির্দেশেই পরিচালিত হয়েছেন। ফজলুল হকের ভাই জিল্লুল হক সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক নিরীক্ষা কার্যালয়ে এসপিও থাকাবস্থায় ছোট ভাইয়ের বিপক্ষের বা অনুগত নয় এমন লোকদের ক্ষতিসাধন করতেন এবং এর জন্য কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা তাদের কাছে জিম্মি থাকতো। এতদ্বিষয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ থাকার পরও জামাত সমর্থিত জিল্লুল হককে শাস্তি প্রদান না করে এজিএম এর দায়িত্ব ও সুনামগঞ্জ আঞ্চলিক নিরীক্ষা কর্মকর্তা হিসেবে পুরস্কৃত করা হয়েছে। ইদানিং তাকে জৈন্তায় বদলী করা হলেও তিনি একই কায়দায় বহাল তবিয়তে রয়েছেন বর্তমান কর্মস্থলে। ফজলুল হকের সহযোগী সিআরএম সোলায়মান পরিদর্শক বিকাশ রঞ্জন সরকারকে হয়রানীর উদ্দেশ্যে বদলী করলে কথিত অন্যায় বদলীর আদেশের বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্টের আশ্রয় নেন নিরীহ বিকাশ বাবু। হাইকোর্ট সোলায়মানের অন্যায় বদলীর আদেশের বিপক্ষে রায় দেন। হাইকোর্টের আদেশ অনুযায়ী সোলায়মানের বিরুদ্ধে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ ব্যাবস্থা গ্রহন করার কথা। কিন্তু তা না করে দূর্নীতিবাজদের পক্ষে সরকারী কোষাঘারের ৩০ হাজার টাকা দিয়ে মামলার ব্যায়ভার পরিশোধ দেখানো হয়। অভিযোগে ব্যাক্তি সোলায়মান এর কাছ থেকে জরিমানা হিসেবে ৩০ হাজার টাকা আদায়ের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়। ব্যাংকের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর শ্যামাপ্রসাদকে তালাবদ্ধ করে নাজেহাল করার ঘটনায় সিলেটের জিএম নাসির উদ্দিন সিআরএম সোলেমানকে কৈফিয়ত তলব করার কারনে ফজলুল হক জিএমকে বদলী করায়। এভাবে আরএম ফিরোজ ভূইয়াকেও ফজলু বাহিনীর দ্বারা নাজেহাল হয়ে বদলী হতে হয়েছে। শ্যামাপ্রসাদ আচার্য্যকে ২ মাসের মধ্যে ২ বার বদলীর পর এখন কৌশলে প্রস্তাব পাটিয়ে ক্যাশের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বদলরি আগে সিআরএম সোলায়মান ফোন করে শ্যামাপ্রসাদ আচার্য্যকে চাকুরীচ্যুত করার হুমকী দিয়েছেন। ফজলুর পক্ষে লিখিত না দিলে সে তার বড় ভাই জিল্লুল হককে দিয়ে খারাপ এসিআর পাটানোসহ বর্তমান সিআরএমকে দিয়ে মিথ্যে মামলায় জড়িয়ে হয়রানী করবে বলেও হুমকী দিচ্ছে। এমতাবস্থায় নিরীহ কর্মকর্তা কর্মচারীদের স্বার্থে জামাত সমর্থিত ২ ভ্রাতা নিরীক্ষা কর্মকর্তা জিল্লুল হককে জেলার বাইরে বদলী ও ফজলুল হক এর বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যাবস্থা গ্রহনের দাবী এখন গণদাবীতে পরিণত হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24