শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ০২:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
শাহারপাড়ায় মেডিকেল সেন্টার উদ্ধোধন ও মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধাবৃত্তি পরীক্ষা ২৯ নভেম্বর ‘মার্টিন স্বপ্নে ইসলামের কোনো এক নবীর কথা বারবার উচ্চারণ করছিল’ জগন্নাথপুরের নয়াবন্দর-শংকপুর সড়ক উদ্বোধন করলেন পরিকল্পনামন্ত্রী জগন্নাথপুরে পরিকল্পনামন্ত্রী-ক্ষমতায় আসতে না পেরে একটি মহল গুজব ছড়াচ্ছে মিরপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শেরীন শপথ নেবেন ২৫ নভেম্বর দক্ষিণ সুরমার একাধিক মামলার আসামি গ্রেফতার সাহাবাদের যুগে শিশুদের শিক্ষায় অধিক গুরুত্ব দেওয়া হতো জগন্নাথপুরের সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় কে ফুলেল শ্রদ্ধায় চীরবিদায় সিলেটে হিরন মাহমুদ নিপু আটক

বাঁধ নির্মানে অনিয়ম দূর্নীতির অনুসন্ধান করবে দুদক

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৫৪ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: বাঁধ ভেঙে সুনামগঞ্জের হাওরের দুই হাজার কোটি টাকার বোরো ফসলহানির ঘটনায় পাউবোর কর্মকর্তা ও ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম-দুর্নীতি ও সরকারি অর্থ লুটপাটের অভিযোগের বিষয়টি দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এর নজরে পড়েছে।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) সুনামগঞ্জ কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী আফসার উদ্দিন ও স্থানীয় কয়েকজন ঠিকাদারের বিরুদ্ধে হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণের ২৫ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। আর এ অভিযোগ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, বর্ণিত দুর্নীতির তদন্তে ৩ সদস্য বিশিষ্ট উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।
এ জন্য তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। দুদকের উপ পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য গণমাধ্যকে এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, অভিযোগ অনুসন্ধানে দুদকের পরিচালক বেলাল হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।
একাধিক সূত্রে
জানা যায়, সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আফছার উদ্দিন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের সিলেটের আঞ্চলিক প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল হাই ও তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী নূরুল ইসলামসহ তিন প্রকৌশলীর বাঁধ নির্মাণের দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখবে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। এই তিন প্রকৌশলী মিলে কোটি টাকা ঘুষ নিয়ে কাজ পাইয়ে দেওয়ার পাশাপাশি ভুয়া বিলও পরিশোধ করেছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। একাধিক জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশিত হলে দুদক এই তিন প্রকৌশলীর অনিয়ম-দুর্নীতির অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
অভিযোগ রয়েছে এই তিন প্রকৌশলী মিলে ১০-১৫ ভাগ আগাম কমিশন কেটে রেখেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে বর্তমান প্রকৌশলী মো. আফছার উদ্দিনকে গত বছরই সুনামগঞ্জ থেকে প্রত্যাহার করা হয়েছিল। কিন্তু স্থানীয় এক জনপ্রতিনিধি তাকে রক্ষা করেছিলেন।
দুদকের উপ পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য গণমাধ্যকে বলেন, আফসার উদ্দিন ও অন্যদের বিরুদ্ধে অভিযোগÑ গত দুই বছরে জেলার বিভিন্ন স্থানে ২৮টি বাঁধ নির্মাণের জন্য বরাদ্দ প্রায় ২৫ কোটি টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে।
দুদক সিলেট অঞ্চলের উপ পরিচালক রেভা হালদার বলেন,‘ সুনামগঞ্জ ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণে পাউবো কর্মকর্তাদের অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে।
গত ৯ এপ্রিল সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের এক জরুরি সভায় সিলেটের আঞ্চলিক প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল হাই পাউবোর সাফাই গেয়ে পিআইসির দোষ দিয়ে বক্তব্য রেখেছিলেন। ওই সভায় সুনামগঞ্জের সুধীজনসহ অনেকের তোপের মুখে পড়েছিলেন প্রকৌশলী আব্দুল হাই ও প্রকৌশলী আফছার উদ্দিন।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী আফসার উদ্দিন বলেন, বাঁধ নির্মাণ কাজে কোনো অনিয়ম হয়নি। সব কাজ ঠিকমতো করা হয়েছে। দুদকের অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে তিনি শুনেছেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24