শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০৪:৩০ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরের সাম্রাটে সমাপনী পরীক্ষার্থীদের সংবর্ধনা জগন্নাথপুর পৌরসভার মেয়র মনাফকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকায় প্রেরণ জগন্নাথপুরের চিতুলিয়া গ্রামে আগুন,দুইটি ঘরসহ পুড়ল ১২ লাখ টাকার মালামাল জগন্নাথপুরে এখনও সম্পন্ন হয়নি আ.লীগের ওয়ার্ড ভিত্তিত্ব কমিটি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু ১৭ নভেম্বর জগন্নাথপুরে সংবাদ প্রকাশের পর অবশেষে সুযোগ পেল ১৭ পরীক্ষার্থী বন্ধ হলো ফেসবুকের সাড়ে পাঁচ’শ কোটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট রংপুর এক্সপ্রেসে আগুন, চারটি বগি লাইনচ্যুত জেলা মহিলা আ.লীগ নেত্রী রফিকা চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত আর্জেন্টিনার আদালতে সু চির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

‘ভাগ্যরজনীর’ রাতে ‘কালো টাকা ছড়াছড়ির’ শঙ্কা

বিশেষ প্রতিনিধি::
  • Update Time : রবিবার, ১৩ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৩৬৮ Time View

দীর্ঘ ১৬ বছর পর বহুলপ্রতিক্ষীত সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন কাল সোমবার  অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। প্রায় দেড় মাসব্যাপি গনসংযোগ, সভা-সমাবেশ, মিছিল-মিটিং, উঠান বৈঠকসহ ব্যাপক প্রচার প্রচারণা গত শনিবার রাত ১২টায় নির্বাচনী সকল প্রচারনা বন্ধ হয়ে গেছে। তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফেসবুকে চলছে ব্যাপক প্রচারনা। এদিকে নির্বাচনের শেষ মুর্হুতে কালো টাকা ছড়াছড়ির আশঙ্কা রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। স্থানীয়দের ভাষ্যমতে প্রবাসি অধ্যুষিত জগন্নাথপুর উপজেলায় স্থানীয় পর্যায়ের সকল নির্বাচনী উৎসবে কালো টাকার মহোৎসব চলে আসছে দীর্ঘকয়েক বছর ধরে। এমনকি জাতীয় নির্বাচনে টাকার ছড়াছড়ি হয়ে থাকে।
উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় ও স্থানীয় এলাকাবাসি জানান, ২০০৩ সালে জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্টিত হয়। ২০০৭ সালের দিকে সীমানা সংক্রান্ত বিরোধে আটককে যায় নির্বাচনী কার্যক্রম। সম্প্রতি আইনি জটিলতা নিরসন হওয়ায় নির্বাচন কমিশন ৩ সেপ্টেম্বর) মিরপুর ইউনিয়নসহ দেশের ১২৩টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচণের তফশিল ঘোষনা করে। ঘোষিত তফশিল অনুয়ায়ী ভোটগ্রহণ ১৪ অক্টোবর। তফশিল ঘোষনার সঙ্গে সঙ্গে এলাকায় উৎসবমুখর হয়ে উঠে এলাকা।
নির্বাচণে চেয়ারম্যান পদে ৬ প্রার্থী প্রতিদ্ব›ন্দ্বীতা করছেন। এছাড়া ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে সাধারণ সদস্য ৪৬ ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ১১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধীতায় রয়েছেন ।
স্থানীয় একাধিক সুত্র জানায়, ভোটের গ্রহণের আগের রাতে অনেক প্রার্থী নির্বাচনে বিজয় হতে কালো টাকার ছড়ানোর খেলায় মেতে উঠেন। ভোটের আগের রাতকে ভাগ্যনির্ধারণী রাত হিসেবে মনে করা হয়। এই রাতে প্রভাবশালী প্রার্থীরা নিজের ভাগ্য গড়তে কালো টাকা ছড়িয়ে থাকেন। সন্ধার পর থেকে ভোররাত পর্যন্ত এই টাকা খেলা চলতে থাকে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভোটার জানান, জগন্নাথপুরে প্রায় সকল নির্বাচনেই কালো টাকা ছড়ানো হয়। তাই মিরপুরের নির্বাচনেও কালো টাকা ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে। ভোটের আগের রাতকে প্রার্থীদের জয়ের ভাগ্য নির্ধারণী রাত হিসেবে বিবেচনা করে টাকা ছড়ানোর প্রতিযোগিতা শুরু হতে পারে বলে তিনি জানান।
জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, নির্বাচনে কালো টাকা ছড়ানোর কোন অভিযোগ এখনও পাইনি। এবিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি জানান, অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্পন্নের লক্ষ্যে আমরা সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24