বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরের কৃতি সন্তান অতিরিক্ত সচিব শিশির রায় আর নেই জগন্নাথপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের টের পেয়ে পেঁয়াজ ১৭০ থেকে নেমে এলে ১২০ টাকা কেজি জগন্নাথপুর উপজেলাকে মাদকমুক্ত করতে মতবিনিময়সভা অধ্যক্ষকে পানিতে নিক্ষেপ: ছাত্রলীগের আরো পাঁচজন গ্রেফতার নবীজীর কাছে যে সকল বেশে হাজির হতেন জিবরাইল (আ.) অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক লবনের গুজব জগন্নাথপুরের সর্বত্রজুড়ে,ক্রেতা সামলাতে না পেরে দোকান বন্ধ, চলছে মাইকিং জগন্নাথপুর বাজারে লবন নিয়ে গুজব জগন্নাথপুরে আমনের ফলনে কৃষক খুশি জগন্নাথপুরে দুই মেধাবী শিক্ষার্থীর সহায়তায় এগিয়ে এলেন লন্ডন প্রবাসী মোবারক আলী

মমতার মাথা কেটে আনলে ১১ লাখ রূপি পুরুস্কার ঘোষনা বিজেপি নেতার

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১২ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৫৯ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথা কেউ কেটে আনলে, ‘পুরস্কার’ হিসেবে তাঁকে ১১ লাখ রুপি দেবেন ক্ষমতাসীন ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) যুবনেতা যোগেশ ভার্সনে। এমনই এক মন্তব্য করে ভারতজুড়ে নিন্দার মুখে পড়েছেন তিনি।

গতকাল মঙ্গলবার উত্তর প্রদেশের আলীগড়ে যোগেশ ভার্সনে বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাথা যে কেটে আনবে, ওই ব্যক্তিকে আমি ১১ লাখ রুপি পুরস্কার দেব।’ তিনি আরও বলেন, পশ্চিমবঙ্গে মমতা তাঁর রাজ্যে সরস্বতী পূজা করতে দেন না, রামনবমী ও হনুমানজয়ন্তীতে সমাবেশ করতে দেন না। তিনি মুসলমান সম্প্রদায়ের তোয়াজ করে যাচ্ছেন। তাই তিনি চরম শাস্তি পাওয়ার যোগ্য।

রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় গতকাল মঙ্গলবার হনুমানজয়ন্তী পালন করে বিজেপি। তবে পশ্চিমবঙ্গের সিউড়িতে অনুমতি না নিয়ে মিছিল করায় পুলিশ বিজেপি কর্মী ও সমর্থকদের ওপর লাঠিপেটা করে। আর এতেই ক্ষিপ্ত হন যোগেশ। লাঠিপেটার ঘটনার ভিডিও দেখে তিনি নাকি অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন।

পরে যোগেশ বলেন, ‘যেভাবে হনুমানভক্তদের ওপর লাঠি চালানো হয়েছে, কারও মধ্যে মানবতার এতটুকুও অবশিষ্ট থাকলে বুঝবে, এভাবে কাউকে মারা যায় না। আমি বুঝতে পারি না, মমতা ইফতার পার্টির আয়োজন করেন। সব সময় মুসলমানের পাশে থাকেন। হিন্দুরা কি মানুষ না?’

হনুমানজয়ন্তী উপলক্ষে ওই দিন সকালে সিউড়ির বড়বাগান থেকে মিছিল বের করেন শতাধিক মানুষ। পুলিশের কাছ থেকে এ মিছিল করার অনুমতি নেওয়া হয়নি। মিছিল না করতে বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষকে অনুরোধ করেছিল প্রশাসন। তারপরও মিছিল করা হয়। এবং একটা সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গেলে তাতে বাধা দেয় পুলিশ। মিছিল ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিপেটাও করা হয়। সেই ঘটনার ভিডিও দেখেই যোগেশ ওই মন্তব্য করেন। লাঠিপেটার জন্য তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই দায়ী করেছেন। খবর: এনডিটিভি অনলাইন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24