রবিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯, ০২:২২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
আজ কলকলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সন্মেলন ভারমুক্ত না নতুন নেতৃত্ব? কাশফুলের শাদা যন্ত্রণা ||আব্দুল মতিন জগন্নাথপুরের মিরপুরে ডাকাত আতঙ্ক, রাত জেগে দলবেঁধে পাহারা চলছে কলকলিয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলনে রোববার পরিকল্পনামন্ত্রী প্রধান অতিথি হিসেবে থাকবেন ৫ বছর পর কাল কলকলিয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন: বিতর্কিত নেতৃত্ব চান না নেতাকর্মীরা তুরস্ক থেকে এসেছে দুই হাজার ৫০০ মেট্রিক টন পেঁয়াজ রাজধানীতে দুই বাসে আগুন সৌদিতে জগন্নাথপুরের কিশোরীকে আটককে রেখে অমানবিক নির্যাতন চলছে, মেয়েকে ফিরে পেতে মায়ের আহাজারি জগন্নাথপুরে আমনের বাম্পার ফলন হলেও, ন্যায্য দাম নিয়ে সংশয়ে কৃষকরা জগন্নাথপুরে আনন্দ হত্যাকাণ্ডের রহস্য অজানা, নেই গ্রেফতার

যারা অস্ত্র দিচ্ছে মিয়ানমারকে

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৭
  • ৪৩ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক ::
মিয়ানমারে অর্ধশতকেরও বেশি সময় ধরে শাসন করেছে সেনাবাহিনী। ১৯৯০ সালের শুরু থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) ও যুক্তরাষ্ট্র দেশটির ওপর বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা ও শাস্তিমূলক ব্যবস্থা জারি করে। ২০১২ সালে মিয়ানমার তথাকথিত গণতন্ত্রের পথে আসে। সেই সময় এসব অবরোধ কিছুটা শিথিল হয়। এক্ষেত্রে প্রশ্ন জাগা স্বাভাবিকÑ মিয়ানমার তা হলে কোত্থেকে ও কীভাবে অস্ত্র সংগ্রহ করছে? এ নিয়ে আলজাজিরা গতকাল শনিবার একটি তথ্যচিত্র প্রকাশ করেছে।

আলজাজিরার বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ১৯৯০ থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত মিয়ানমার সেনাবাহিনী সবচেয়ে বেশি অস্ত্র কিনেছে রাশিয়া ও চীনের কাছ থেকে। এ ছাড়া ভারত, ইসরায়েল, ইউক্রেনও মিয়ানমারের বড় অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ। স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সৌজন্যে তথ্যচিত্রটি প্রকাশিত হয়েছে। নিচে এর চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো-

বিমান

উল্লিখিত সময়ের মধ্যে মিয়ানমারের কাছে সবচেয়ে বেশি বিমান বিক্রি করেছে চীন, ১২০টি। এরপর রাশিয়া। দেশটি ৬৪টি বিমান বিক্রি করেছে মিয়ানমারের কাছে। এ ছাড়া পোল্যান্ড ৩৫টি, জার্মানি ২০, সাবেক যুগোস্লাভিয়া ১২টি, ভারত ৯টি, সুইজারল্যান্ড ৩টি ও ডেনমার্ক একটি বিমান বিক্রি করেছে।

ক্ষেপণাস্ত্র

মিয়ানমারের কাছে সর্বাধিক ২৯৭১ ক্ষেপণাস্ত্র বিক্রি করেছে রাশিয়া। প্রভাবশালী প্রতিবেশী চীন ১০২৯টি ক্ষেপণাস্ত্র বিক্রি করেছে। এ ছাড়া বেলারুশ ১০২টি, বুলগেরিয়া ১০০টি ও ইউক্রেন ১০টি ক্ষেপণাস্ত্র বিক্রি করেছে।

নৌযান

মিয়ানমার নৌবাহিনীর জন্য ২১টি তরী কেনা হয়েছে চীনের কাছ থেকে। এ ছাড়া ভারত ও সাবেক যুগোস্লাভিয়ার কাছ থেকে কেনা হয়েছে ৩টি করে।

কামান

চীন ১২৫টি কামান বিক্রি করেছে মিয়ানমারের কাছে। এ ছাড়া দীর্ঘ সময় সামরিক জান্তাশাসিত দেশটির কাছে সার্বিয়া ১২০টি, রাশিয়া ১০০টি, ইসরাইল ২১টি, উত্তর কোরিয়া ১৬টি ও ভারত ১০টি কামান বিক্রি করেছে।

সাঁজোয়া যান

মিয়ানমারের কাছে সর্বাধিক ৬৯৬টি সাঁজোয়া যান বিক্রি করেছে চীন। এর পরই আছে ইসরায়েলের অবস্থান, ১২০টি। এ ছাড়া ইউক্রেন ৫০টি ও ভারত ২০টি সাঁজোয়া যান বিক্রি করেছে মিয়ানমারের কাছে।

২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের একটি সেনা ও ২৪ পুলিশ ক্যাম্পে সন্ত্রাসী হামলা হয়। এরপর দেশটির সরকার জানায়, সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা বিদ্রোহীরা এ হামলা চালিয়েছে। যদিও এ নিয়ে বিতর্ক রয়েছে, দেশটির সেনাবাহিনীই এ হামলা চালিয়েছে যাতে করে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন-নিপীড়ন চালানোর অজুহাত সৃষ্টি করে তাদের নিজ বাসভূম থেকে তাড়িয়ে দেওয়া যায়। ২৫ আগস্টের ওই হামলার পরিপ্রেক্ষিতে দেশটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জঙ্গিবিরোধী অভিযানের নামে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের ওপর নির্যাতন, নিপীড়ন, ধর্ষণ ও গণহত্যা চালায় এবং তাদের বাড়িঘর আগুনে পুড়িয়ে দেয়। মিয়ানমার সরকারের নির্দেশে দেশটির সেনাবাহিনী এখনো এসব বর্বরতা চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের সঙ্গে যোগ দিয়েছে মগ ও মুরং জনগোষ্ঠীর তরুণরাও। এর পর থেকে প্রাণ বাঁচাতে এ পর্যন্ত প্রায় চার লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নিয়েছে। প্রতিদিনই হাজারও শরণার্থী প্রবেশ করছে দেশে।

প্রসঙ্গত, ১৯৪৮ সালে ব্রিটিশদের কাছ থেকে স্বাধীন হওয়ার পর থেকে দেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতি ও বহির্বিশ্বের সঙ্গে সম্পর্কে নিজেদের কর্তৃত্ব ও নিয়ন্ত্রণ জারি রেখেছে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24