সুনামগঞ্জে ৮ ভোট কেন্দ্রে মারামারি, ভোট বাক্স ভাংচুর

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
রোববার সকাল থেকে সুনামগঞ্জের ৯টি উপজেলার মধ্যে তাহিরপুর, শাল্লা ও ধর্মপাশা উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলাকালে ৮টি কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের মধ্যে ভোটকেন্দ্র দখল নিয়ে হাঙ্গামার ঘটনা ঘটেছে। এতে কিছুক্ষণ ভোটগ্রহণ বন্ধ থাকার পর আবারও শুরু হয়। এছাড়া ৯ উপজেলার ৫৪১টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৫৩৩টি ভোট কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
তাহিরপুর উপজেলার পুরান ঘাট প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আনিসুল হকের সমর্থকরা সকালে একটি কক্ষ তালা দিয়ে মোটর সাইকলে প্রতীকে ভোট দিতে চাইলে আওয়ামী লীগ প্রার্থী করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুলের সমর্থকরা বাঁধা দেন। এতে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৭জন আহত হন। গুরুতর আহত আওয়ামী লীগের এক কর্মীকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই উপজেলার দীঘলবাক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে দুপুর ১টার দিকে ভোটকেন্দ্র দখল নিয়ে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়ালে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হন। ছিনতাই হয় একটি ভোটবাক্স। এ সময় পুলিশ ৫ রাউন্ড ফাকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই ঘটনার পরে এই কেন্দ্রে সাময়িক ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।
এদিকে শাল্লা উপজেলার কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আল আমিন চৌধুরী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অবনী মোহন দাসের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। এসময় একটি কক্ষের ভোটবাক্স ভাংচুর করা হয়। একই উপজেলার ইয়ারাবাদ কেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী অবনী মোহন দাসকে অবরুদ্ধ করে রাখে নৌকার সমর্থকরা। পরে তাকে পুলিশ উদ্ধার করে। এই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সাময়িক স্থগিত রয়েছে। এছাড়াও এই উপজেলার চব্বিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র, শ্রীহাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
ধর্মপাশা উপজেলার দুঘনই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রাথীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» আসসালামু আলাইকুম বলে পার্লামেন্টে বক্তব্য দিলেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী

» সুনামগঞ্জে ছুরিকাঘাতে আ.লীগ নেতা খুন, আটক-৩

» আ.লীগের দু’পক্ষের গোলগুলি, নিহত ২

» ওসির বিরুদ্ধে ৫ লাখ টাকা ঘুষ দাবী’র অভিয়োগ আ.লীগ প্রার্থীর

» জগন্নাথপুরে ছাত্রলীগের উদ্যোগে যুক্তরাজ্য আ.লীগ নেতাকে সংবর্ধনা

» বালাগঞ্জে নৌকার প্রার্থী মফুর নির্বাচিত

» নেদারল্যান্ডসে যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ১

» রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের ব্রাশফায়ারে প্রিজাইডিং কর্মকর্তাসহ নিহত ৫

» জগন্নাথপুরে ‘বাঁধা’ দেয়ায় হাওরের সড়কের কাজ বন্ধ

» জগন্নাথপুরে সড়ক থেকে মাইক্রোবাস দোকানে, আহত ৩

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

সুনামগঞ্জে ৮ ভোট কেন্দ্রে মারামারি, ভোট বাক্স ভাংচুর

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
রোববার সকাল থেকে সুনামগঞ্জের ৯টি উপজেলার মধ্যে তাহিরপুর, শাল্লা ও ধর্মপাশা উপজেলায় ভোটগ্রহণ চলাকালে ৮টি কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের মধ্যে ভোটকেন্দ্র দখল নিয়ে হাঙ্গামার ঘটনা ঘটেছে। এতে কিছুক্ষণ ভোটগ্রহণ বন্ধ থাকার পর আবারও শুরু হয়। এছাড়া ৯ উপজেলার ৫৪১টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৫৩৩টি ভোট কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণভাবেই ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।
তাহিরপুর উপজেলার পুরান ঘাট প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আনিসুল হকের সমর্থকরা সকালে একটি কক্ষ তালা দিয়ে মোটর সাইকলে প্রতীকে ভোট দিতে চাইলে আওয়ামী লীগ প্রার্থী করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুলের সমর্থকরা বাঁধা দেন। এতে সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৭জন আহত হন। গুরুতর আহত আওয়ামী লীগের এক কর্মীকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই উপজেলার দীঘলবাক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে দুপুর ১টার দিকে ভোটকেন্দ্র দখল নিয়ে দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়ালে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হন। ছিনতাই হয় একটি ভোটবাক্স। এ সময় পুলিশ ৫ রাউন্ড ফাকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই ঘটনার পরে এই কেন্দ্রে সাময়িক ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়।
এদিকে শাল্লা উপজেলার কাশিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আল আমিন চৌধুরী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী অবনী মোহন দাসের সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া চলে। এসময় একটি কক্ষের ভোটবাক্স ভাংচুর করা হয়। একই উপজেলার ইয়ারাবাদ কেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী অবনী মোহন দাসকে অবরুদ্ধ করে রাখে নৌকার সমর্থকরা। পরে তাকে পুলিশ উদ্ধার করে। এই কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ সাময়িক স্থগিত রয়েছে। এছাড়াও এই উপজেলার চব্বিশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্র, শ্রীহাইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
ধর্মপাশা উপজেলার দুঘনই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়েও আওয়ামী লীগ ও স্বতন্ত্র প্রাথীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।