শুক্রবার, ২২ নভেম্বর ২০১৯, ১০:১০ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
বিদেশে থেকেও তিনি ‘হত্যা’ মামলার দুই নম্বর আসামী! সন্মেলনকে সামনে রেখে কলকলিয়া ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের সভা অনুষ্ঠিত ঈদে মিলাদুন্নবী (সাঃ) উপলক্ষে জগন্নাথপুরে মোবারক র‌্যালি জগন্নাথপুর পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন তাহিরপুরকে হারিয়ে বিজয়ী জগন্নাথপুর,ম‌্যাচ সেরা অলি বাস-মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৭ জগন্নাথপুরের রসুলপুর আর্দশ ক্রিকেট ক্লাবের জার্সি উম্মোচন শাহারপাড়ায় মেডিকেল সেন্টার উদ্ধোধন ও মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত এম এ মান্নান প্রাথমিক মেধাবৃত্তি পরীক্ষা ২৯ নভেম্বর ‘মার্টিন স্বপ্নে ইসলামের কোনো এক নবীর কথা বারবার উচ্চারণ করছিল’

স্মরণসভায় বক্তারা-সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত অাজীবন মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করে গেছেন

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২ মার্চ, ২০১৭
  • ৫৪ Time View

আবু হানিফ চৌধুরী, দিরাই
দিরাইয়ে সদ্য প্রয়াত জাতীয় নেতা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য সাবেক মন্ত্রী সংবিধান প্রণেতা সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত স্মরণে শোক সমাবেশে বক্তারা বলেছেন, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত জীবনভর মানুষের কল্যাণে রাজনীতি করে গেছেন। তিনি ছিলেন একজন অসাম্প্রদায়িক প্রগতিশীল মানুষ। মহান মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলনে তার অবদানের কথা জাতি সবসময় শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করবে। সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত দিরাই-শাল্লার, কিংবা বাংলাদেশের নয়, বিশ্বের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের উজ্জ্বল নক্ষত্র ছিলেন।’
বুধবার বিকাল ৫ টায় দিরাই পৌর শহরের বিএডিসি মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত শোক সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন।
দিরাই উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আছাব উদ্দিন সরদারের সভাপতিত্বে শোক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- প্রয়াত সুরঞ্জিত সেনগুপ্তের স্ত্রী ড. জয়া সেনগুপ্তা, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সামছুল হক টুকু এমপি, মহিবুর রহমান মানিক এমপি, আব্দুল মজিদ খান এমপি, মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি, অ্যাড. শামছুন নাহার বেগম শাহানা এমপি, সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা এম এইচ চৌধুরী, সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এম এনামুল কবির ইমন, দোয়ারাবাজার উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আলী বীরপ্রতীক, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ডেপুটি কমান্ডার ইউসুফ আল আজাদ, প্রয়াত’র পুত্র সৌমেন সেন গুপ্ত, আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. হায়দার চৌধুরী লিটন, সিরাজুর রহমান সিরাজ, করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল, দেওয়ান ইমদাদ রেজা চৌধুরী, অ্যাড. মলয় চক্রবর্তী রাজু, অ্যাড. শামছুল ইসলাম, আজিজুর রহমান বুলবুল, অ্যাড. শামীমা শাহ্রিয়ার, আবুল লেইছ চৌধুরী, আলামিন চৌধুরী, ব্যারিস্টার অনুকূল তালুকদার ডাল্টন, সিরাজ দৌলা তালুকদার, অভিরাম তালুকদার, লুৎফুর রহমান, অ্যাড. কানিজ রেহেনুমা ভাষা প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে আহমদ হোসেন বলেন, ‘সুরঞ্জিত সেনগুপ্তকে বাংলাদেশ চিরকাল স্মরণ রাখবে। সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত একজনই ছিলেন। মৃত্যুর আগের দিন পর্যন্ত মানুষের কল্যাণে কাজ করেছেন তিনি। বাংলাদেশের ইতিহাসে তিনি অধ্যায় হয়ে থাকবেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সভানেত্রী তাঁর স্ত্রী জয়া সেন গুপ্তার হাতে নৌকা তুলে দিয়ে সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত এবং দিরাই-শাল্লাবাসীকে সম্মানিত করেছেন। এই নৌকা চিরস্থায়ী করে রাখার দায়িত্ব আপনাদের। ড. জয়া সেন গুপ্তের মাঝেই সুরঞ্জিত সেন গুপ্তকে খুঁজে পাবো আমরা’।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামছুল হক টুকু বলেন,‘সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত কেবল দিরাই-শাল্লা নয়, সারা বিশ্বের গণতান্ত্রিক আন্দোলনের উজ্জ্বল নক্ষত্র। আওয়ামী লীগে আসার আগেও জাতিরজনক তাঁকে আশীর্বাদ দিতে ভুল করেননি। অনেকে বলেছেন তিনি মৃত্যুবরণ করেছেন। আমি বলবো তিনি বেঁচে না থাকলে তাঁর ছায়া আছে চতুর্দিকে। আমার ব্যক্তিগত জীবনে সংকটকালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী’র পর যার পরামর্শ নিতাম তিনি সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত।’
ড. জয়া সেনগুপ্তা উপস্থিত শোকাহতদের উদ্দেশ্যে বলেন,‘সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত আপনাদেরকে ভালবাসতেন, যেমনটি বাসতেন পরিবারকে। এক সঙ্গে কাজ করতে গিয়ে আপনাদের অনেককে তিনি অনেক সময় ভর্ৎর্সনাও করেছেন। আবার তিনি আপনাদের কাছে টেনেও নিয়েছেন। কারো মনে ক্ষোভ থাকলে, আপনারা তাকে ক্ষমা করবেন- ক্ষমা করবেন। তা না হলে আমাদের নতুন যাত্রা শুভ হবে না। সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত সম্পর্কে আপনাদের কাছে আমার বলার কিছু নেই। আমার চেয়ে আপনারা তাঁর সম্পর্কে বেশি জানেন। কৈশোরে বাবা-মাকে হারিয়েছিলেন সুরঞ্জিত। কেউ ছিল না তাঁর। আপনারাই তাঁকে অনেক উচ্চতায় নিয়ে গেছেন। পরস্পরকে ভালবেসে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে চাই আমরা।’
প্রয়াত সুরঞ্জিত সেন গুপ্তের ছেলে সৌমেন সেন গুপ্ত বলেন,‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে পরিবারের পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। তিনি আমার বাবার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার জন্য আমার মাকে সুযোগ দিয়েছেন। আমার বাবা সব সময় অসহায় মানুষের পাশে ছিলেন। ন্যায়পরায়ণ ছিলেন। আমি আমার বাবার আদর্শ নিয়েই আপনাদের সঙ্গে থাকতে চাই। আমার বাবাকে সারাক্ষণ আপনারা সময় দিয়েছেন, বাবা সব সময় তাঁর দরজা আপনাদের জন্য খোলা রেখেছেন। আমার দরজাও সব সময় আপনাদেও জন্য খোলা থাকবে।’
এর আগে সুনামগঞ্জ-সিলেট সড়কের গোবিন্দগঞ্জ থেকে দিরাই শহর পর্যন্ত মাথায় কালো কাপড় ও কালো ব্যাজ ধারণ করে কয়েক হাজার মোটর সাইকেল দিয়ে শোক র‌্যালি করে দিরাই শহরে নিয়ে আসা হয় ড. জয়া সেন গুপ্তাসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের। সকাল থেকে দিরাই উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে শোক সমাবেশে যোগ দেবার জন্য দলে দলে আওয়ামী লীগ নেতা কর্মীসহ সুরঞ্জিত ভক্তরা দিরাইয়ের বিএডিসি মাঠে এসে সমবেত হন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24