বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ১০:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে সংগ্রামী সেই মেয়েটির পরিবারে উপজেলা পরিষদের সেলাই মেশিন প্রদান জগন্নাথপুরে মোটরযান ও ভোক্তা আইনে ভ্রাম্যমান আদালতের জরিমানা সৌদিতে নির্যাতিতা জগন্নাথপুরের কিশোরীকে দেশে ফেরাতে পরিকল্পনামন্ত্রীর ডিও লেটার কলকলিয়া ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন সম্পন্ন হলেও কমিটি হয়নি আইসিজেতে গাম্বিয়ার আইনমন্ত্রী-মিয়ানমারের গণহত্যা কোনোভাবেই গ্রহণ করা যায় না জগন্নাথপুরে মানবাধিকার দিবসে র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত সিলেটে মাকে হত্যা করল পাষান্ড ছেলে ঘৃনার বদলে অমুসলিমদের মধ্যে ১০ হাজার কোরআন বিতরণ করবে নরওয়ের মুসলিমরা জগন্নাথপুরে ফুটবল এসোসিয়েশনের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন উপলক্ষে প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে পারাপারের সময় খেলা নৌকা থেকে পড়ে মৃগী রোগির মৃত্যু

হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধ : পিআইসি গঠনে বিতর্ক পিছু ছাড়ছেনা

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ১৬ জানুয়ারী, ২০১৮
  • ৯১ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জে হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধে পিআইসি গঠন ও প্রকল্প অনুমোদন নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। ফসলরক্ষা বাঁধ কাটায় দ-প্রাপ্ত ব্যক্তি, ফসলরক্ষা বাঁধের কাজে অনিয়মে অভিযুক্তকেও পিআইসি’র সদস্য করা হয়েছে। এ নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে।
জানা গেছে, সুনামগঞ্জে পিআইসি’র (প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি) মাধ্যমে ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে প্রায় ৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়। ইতোমধ্যে সহ¯্রাধিক প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তবে বিভিন্ন স্থানে অনুমোদিত অনেক প্রকল্প ও কমিটি নিয়ে বিতর্ক দেখা দিয়েছে। অপ্রয়োজনীয় প্রকল্প নিয়েও কথা উঠেছে।
জানা গেছে, সরকারি নীতিমালা ভঙ্গ করে জমির প্রকৃত মালিকদের বঞ্চিত করে পিআইসিতে অন্যদের যুক্ত করার অভিযোগে জগন্নাথপুরের কলকলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাসিম পিআইসি থেকে পদত্যাগ করেছেন। গত বৃহস্পতিবার তিনি পদত্যাগ করেন।
এছাড়া তাহিরপুর উপজেলার শনির হাওর রক্ষা বাঁধ প্রকল্পে একজন বিতর্কিত ব্যক্তিকে সদস্য সচিব করা হয়েছে। কাজল মিয়া নামক ওই ব্যক্তি ২০১৫ সালে শনির হাওরের সাহেব নগরে ফসলরক্ষা বাঁধ কাটার দায়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক দুই মাসের কারাদ-ে দ-িত হয়েছিলেন। কাজল মিয়াকে উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটির ৫৭নং তালিকায় শনির হাওরের উপ-প্রকল্পের ৮৮ ও ১০৪ নং প্যাকেজে সদস্য সচিব করা হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যক্তিকে পিআইসিতে যুক্ত করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন কৃষকরা।
এদিকে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের জোয়ালভাঙ্গা হাওর রক্ষা বাঁধে হাওরের ফসলরক্ষা বাঁধের কাজে দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে সদস্য করা হয়েছে। কৃষক তালিকায় সদস্য হওয়া জাহানারা বেগম নামের ওই নারী জেলা আইনজীবী সমিতি কর্তৃক দায়েরকৃত দুর্নীতির মামলার তালিকাভুক্ত আসামি।
এভাবে বিভিন্ন স্থানেই বিতর্কিত ব্যক্তিদের দিয়ে প্রকৃত কৃষকদের বঞ্চিত করে কমিটি গঠন করা হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তাছাড়া বিভিন্ন স্থানে অপ্রয়োজনীয় অনেক প্রকল্পও নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।
হাওর বাঁচাও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের নেতা সালেহীন চৌধুরী শুভ বলেন, গতবার ফসল হারিয়ে নিঃস্ব কৃষকদের ফসলরক্ষায় সরকার এবার নীতিমালা বদলিয়ে হাওরের ফসররক্ষা বাঁধের কাজ বাস্তবায়ন করছে। কিন্তু বিভিন্ন স্থানে বিতর্কিত ব্যক্তিদের কাজে যুক্ত করা হয়েছে। অপ্রয়োজনীয় প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। এখন তদারকির নামে অভিযুক্ত দুর্নীতিবাজ জনপ্রতিনিধিদেরও সম্পৃক্ত করা হচ্ছে। তিনি বলেন, এসব অনিয়মের কারণেই আমরা চেয়েছি বাঁধ নির্মাণ কাজে সেনাবাহিনীতে তদারকিতে সম্পৃক্ত করতে।
জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হাসিম বলেন, প্রকৃত কৃষকদের বদলে স্বজনপ্রীতি ও দুর্নীতির মাধ্যমে পিআইসিতে অনেককে সদস্য করায় আমি পদত্যাগ করেছি।
সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত জাহান বলেন, নানা আলোচনার পর প্রকল্প অনুমোদন ও পিআইসি গঠন করা হয়েছে। বাঁধের কাজে কোন অনিয়ম ও দুর্নীতির সুযোগ নেই বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24