বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:১৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জেলা মহিলা আ.লীগ নেত্রী রফিকা চৌধুরীর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত আর্জেন্টিনার আদালতে সু চির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ছাতক-সুনামগঞ্জ সড়কে বিআরটিসি বাস চালুর দাবি সম্মেলনকে সামনে রেখে জগন্নাথপুরে আ.লীগের কার্যকরী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে দুইটি সরকারি ইজারাকৃত জলাশয় থেকে মাছ শিকারের অভিযোগ জগন্নাথপুরে পরীক্ষা কেন্দ্রে মুঠোফোন রাখার দায়ে শিক্ষক বহিষ্কার জগন্নাথপুরে জুয়া খেলার দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত চারজন কারাগারে ২৫ জনকে আসামি করে আবরার হত্যার চার্জশিট আ’লীগে দূষিত রক্তের প্রয়োজন নেই: কাদের আনন্দবাজার-এর বিশ্লেষণ মুসলিমরা ক্ষমতাহীন হয়ে পড়ছে ভারতে?

হাওরে ফসলডুবি : জগন্নাথপুরে চালের সঙ্গে সবজি বাজারেও কারসাজি

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৩০ এপ্রিল, ২০১৭
  • ৫২ Time View

আলী আহমদ :: জগন্নাথপুরের হাওরে ফসলহানির সঙ্গে সঙ্গে চাল বাজারে অস্বাভাবিকভাবে দাম বেড়ে যাওয়ার পর এবার সবজি বাজারও কারসাজি চলছে। রোববার উপজেলা সদরের জগন্নাথপুর বাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

উপজেলাবাসী জানান, জগন্নাথপুর উপজেলার নলুয়ার হাওরসহ প্রায় সব’কটি হাওরের ফসলডুবির পর এক শ্রেনীর অসাধু মুনাফালোভী সিন্ডিকেটের মাধ্যমে চালের মূল্য দ্বিগুন বাড়িয়ে দেয়। উপজেলা প্রশাসন তাৎক্ষনিকভাবে বাজার নিয়ন্ত্রন রাখতে পদক্ষেপ গ্রহন করে। অতিরিক্ত মূল্যে চাল বিক্রির অভিযোগ প্রশাসনের উদ্যোগে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে ওই সময় সদর বাজারের নিপু গোপ নামে এক চাল ব্যবসায়ীর নিকট থেকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। এর এক/দুই দিন পর আবারও চাল বাজারের কারসাজি শুরু হয়। এখনো চলছে দেদারছে। চাল ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পাল্লা নিয়ে সবজির বাজারে কারসাজি শুরু হয়েছে। হাওরের মাছে মড়ক দেখা দেখার সঙ্গে সঙ্গে দাম বেড়ে যায় সবজি বাজারে।

সরেজমিনে জগন্নাথপুর সদর বাজার সহ বিভিন্ন হাটবাজারে ব্যবসায়ী ও ক্রেতাদের সাথে আলোচনা করে চাল এবং সবজি বাজারে দ্রব্য মুল্যের ব্যাপক পার্থক্য দেখা গেছে।
তথ্যমতে পুরাতন ২৮ ও ২৯ জাতের চাল বস্তা প্রতি বর্তমান বাজার দর ২৫০০ থেকে বাড়িয়ে অনেকেই ২৮০০ টাকা দরে বিক্রি করছেন। ফসলহানির পূর্বে যার বাজারমূল্য ছিল ২১০০ থেকে ২২০০ টাকা ছিল । আগে প্রতিকেজি চালের মূল্যে ছিল ৩০- ৩৫ টাকা। বর্তমানে প্রতিকেজি চাল ৫৫-৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। অধিকাংশ দোকানেই মূল্য তালিকা সাটানো দেখা যায়নি। মাছে মড়ক দেখা দেয়ার পর থেকেই সবজি বাজারে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্যে মারাত্মকহারে বৃদ্ধি পেয়েছে। আগে প্রতিকেজি টমেঠোর দাম ছিল ২৫ টাকা বর্তমানে ৪০ টাকা, ঢেরস ৩০ থেকে ৪০ টাকা, বেগুন ২৫ থেকে ৪০টাকা, আলু ১০ থেকে ১৫ টাকা, কাঁচা মরিচ ৪০ থেকে ৫০ টাকা, গাজর ৬০ থেকে ৭০ টাকা, শসা ২০ থেকে ৩০ টাকা, পটল ৩০ থেকে ৪৫ টাকা, লেবু প্রতি হালি ২৫ থেকে ৪০ টাকা, করলা ৫০ থেকে টাকা, কাকরল ৭০ থেকে ৮০টাকা, চিচিন্ডা ৪০ থেকে ৫০টাকাসহ বিভিন্ন দ্রব্য মূল্যে প্রতিকেজি ১০ টাকা থেকে ২০ টাকা করে বেড়েছে।

পৌরএলাকার যাত্রাপাশা গ্রামের রমা চন্দ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, ফসল পানিতে তলিয়ে যাওয়ার পর থেকেই চালসহ নিত্য নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বেড়ে গেছে। আগে প্রতিকেজি চাল ৩০-৩৫ টাকা দরে কিনেছি। সেই চাল এখন ৫৫ টাকা দরে ক্রয় করেছি। মাছে মড়ক আসার পর সবজি বাজারেও জিনিস পত্রের দাম দ্বিগুন হয়েছে। আমরা মধ্য বিত্ত মানুষ খুবই দুর্দশার মধ্যে আছি।
চালের মূল্যে বাড়ানোর অভিযোগ অস্বীকার করে চাল ব্যবসায়ী অজিত দাস জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, আমরা প্রতিবস্তা চাল ২৩৫০ টাকা মূল্যে বিক্রি করছি।

আরেক শবজি ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, বন্যায় সবজির বাগানগুলো ডুবে যাওয়া দাম একটি বেড়েছে। আমরা সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বেশি দামে ক্রয় করে আনতে হচ্ছে।

জগন্নাথপুরের ইউএনও মোহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্য স্থিতিশীল রাখতে ইতিমধ্যে ব্যবসায়ী ও এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিদের নিয়ে মতবিনিয়ম সভা করেছি। বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়েছে। কেউ যদি বাজারে অতিরিক্ত দামে বিক্রি করে বাজার অস্থিতিশীল করে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24