1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
সোমবার, ০৩ অগাস্ট ২০২০, ০৮:৩২ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ভ্যাকসিন আগে পাওয়ার ব্যাপারে সরকার তৎপর : স্বাস্থ্যমন্ত্রী জগন্নাথপুরে স্টুডেন্টস কেয়ার’র ঈদপূর্ণমিলনী সভা অনুষ্ঠিত পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান কাল জগন্নাথপুর আসছেন ৪ আগস্ট থেকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত রাত ১০টা থেকে সকাল ৫টা পর্যন্ত অতীব জরুরি প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের না হওয়ার নির্দেশ কোভিড-১৯ এ সেবাপ্রদানকারী স্বাস্থ্য কর্মীদের জন্য বিশেষ ভাতা চালু করে করছে সরকার আগস্ট মানে হারানোর বেদনা হায়েনাদের অট্টহাসি আর ষড়যন্ত্রের গন্ধ: ওবায়দুল কাদের করোনায় আরও ৩০ মৃত্যু, শনাক্ত ১৩৫৬ চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের ঈদ পূর্ণমিলনী অনুষ্টিত জগন্নাথপুরে কোরবানির মাংস সংগ্রহ করতে গিয়ে নিখোঁজ, দুইদিন পর লাশ মিলল আম্বরখানার চামড়া নিয়ে সিসিক মেয়রের অভিযানের বিষয়ে মীরপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান যা বললেন

ক্ষুধার্ত সন্তানদের সান্ত্বনা দিতে পাতিলে পাথর রান্না করছেন মা!

  • Update Time : শুক্রবার, ১ মে, ২০২০
  • ৪৬৫ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক:: দারিদ্রতার কষাঘাতে জীবন যায় যায়। ঘরে অন্ন নেই। চুলোয় রান্না নেই।পেট তো আর মানে না। খাবারের জন্য ৮ সন্তানের কান্না থামছে না।এমতাবস্থায় ক্ষুধার্ত সন্তানদের পাশে বসিয়ে পাতিলে পাথর বসিয়ে রান্নার ভান করছেন মা।এই আশায় যে, বাচ্চারা খাবারের অপেক্ষা করতে করতে এক সময় হয়তো ঘুমিয়ে পড়বে।

কেনিয়ার উপকূলীয় মোম্বাসা শহরের ঘটনা এটি। এমন মর্মস্পর্শী ঘটনা নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

রান্না বসানো ওই নারীর নাম পেনিনা বাহাতি কিতসাও। তিনি বিধবা। আট সন্তানের জননী।

স্বামীকে হারিয়ে স্থানীয় একটি লন্ড্রিতে কাজ নেন অক্ষরজ্ঞানহীন কিতসাও। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে সরকারি বিধিনিষেধের কাজটি হাতছাড়া হয়ে গেছে তার। ফলে ঘরে খাবার নেই।

কিন্তু পেট তো আর লকডাউন মানে না। ক্ষুধার জ্বালায় কোনোভাবেই থামছিল না শিশুদের কান্না। উপায় না পেয়ে পাতিলে পাথর রেখে চুলোয় আগুন ধরিয়ে বাচ্চাদের ধোঁকা দেয়ার পথ বেছে নেন মা। হৃদয়বিদারক ঘটনাটি নজরে পড়ে প্রতিবেশী প্রিসকা মোমানির। বিষয়টি সংবাদমাধ্যমে জানান তিনি।

কেনিয়ার এনডিটিভিতে এ নিয়ে মানবিক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরপর ওই মাকে সাহায্যের শেষ নেই মানুষজনের। প্রতিবেশী মোমানির মাধ্যমে অনেকে মোবাইল ফোন ও ব্যাংক অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে টাকা পাঠিয়েছেন।

সহায় সম্বলহীন কিতসাও দুটি বেডরুমের যে বাড়িতে থাকেন সেখানে নেই পানি বা বিদ্যুতের সংযোগ। মানুষের উদারতায় মুগ্ধ তিনি।

সাহায্য পেয়ে কিতসাও বলেন, আমি বিশ্বাস করতাম না, যে কেনিয়ানদের এত দয়া আছে। সারা দেশ থেকে আমি ফোন পেয়েছি, কিভাবে তারা সাহায্য করতে পারে জানতে চাচ্ছে।

পূর্ব আফ্রিকার দেশ কেনিয়ায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৪০০ কাছাকাছি। মৃত্যু হয়েছে ১৭ জনের।
যুগান্তর

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

google.com, pub-1669374237730295, DIRECT, f08c47fec0942fa0
এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Design & Developed By ThemesBazar.Com