রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:১৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা বেড়াতে গিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল জগন্নাথপুরের এক যুবকের মাথায় ৪ ইঞ্চি লম্বা শিং এই বৃদ্ধের!

অর্থমন্ত্রীকে স্যানিটারি ন্যাপকিন পাঠিয়ে প্রতিবাদ

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৪ জুলাই, ২০১৭
  • ২৫ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: স্যানিটারি ন্যাপকিনের ওপর থেকে পণ্য পরিষেবা কর বা জিএসটি (গুডস অ্যান্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স) আরোপ করার প্রতিবাদে ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলির কাছে স্যানিটারি ন্যাপকিন পাঠিয়েছে দেশটির দুটি বাম ছাত্র সংগঠন।

‘স্টুডেন্ট ফেডারেশন অব ইন্ডিয়া’ (এসএফআই) এবং ‘অল ইন্ডিয়া ডেমোক্রেটিক ওমেন’স অ্যাসোসিয়েশন’’ (এআইডিডব্লিউএ) বৃহস্পতিবার তারা এ কর্মসূচি পালন করে। খবর ইকনোমিক টাইমসের

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে দাবি ছিল, যদি কনডোম ও জন্ম নিরোধক পিলকে করমুক্ত করা হয়, তবে স্যানিটারি ন্যাপকিনকেও করমুক্ত করা হবে না কেন?

এসএফআইর প্রেসিডেন্ট বিকাশ ভাদৌরিয়া মতে, স্যানিটারি ন্যাপকিনকে বিলাসবহুল পণ্য হিসেবে বিবেচনা করে সেইমতো কর চাপানো হয়েছে। কিন্তু এটা নারীদের প্রয়োজনীয় একটি জিনিস। দাম বাড়লে গরিব নারী ও তরুণীরা এই ন্যাপকিন ব্যবহারের ক্ষেত্রে উৎসাহ হারাতে পারেন।

এর আগে গত সপ্তাহে ন্যাপকিনকে করমুক্ত করার দাবি নিয়ে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেই ভিডিওতে দেখা গেছে, দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা দেশজুড়ে নারীদের এই আন্দোলনে নামার আহ্বান জানিয়েছে। আর ভিডিওতে ওই আহ্বানের পরই অরুণ জেটলিকে স্যানিটারি ন্যাপকিনের প্যাড পাঠিয়ে প্রতিবাদ জানানো হলো।

গত ১ জুলাই থেকে ভারতে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হয়েছে জিএসটি। এর উদ্দেশ্য হলো সারা ভারতে ‘এক দেশ এক কর ব্যবস্থা’ চালু করা। এই নীতির ফলে কোনো কোনো পণ্যে যেমন কোনো কর দিতে হচ্ছে না, আবার কিছু পণ্যে মোট চারটি স্তরে কর দিতে হচ্ছে।

এই জিএসটির তালিকায় নারীস্বাস্থ্যের জন্য নিত্যপ্রয়োজনীয় ‘স্যানিটারি ন্যাপকিন’কে বিলাসবহুল পণ্যের তালিকায় ফেলা হয়েছে। ফলে এর ওপর জিএসটি ধার্য করা হয়েছে ১২ শতাংশ। যদিও আগে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ওপর ১৩ দশমিক ৭ শতাংশ কর ধার্য করা ছিল।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের এ সিদ্ধান্তের পর থেকেই বিভিন্ন মহল থেকে স্যানিটারি ন্যাপকিনকে করমুক্ত পণ্যের আওতাভুক্ত করার দাবি জানানো হয়।

নারীস্বাস্থ্যের জন্য অবশ্যপ্রয়োজনীয় এই পণ্যে করমুক্তি চেয়ে ভারতের অর্থমন্ত্রীর কাছে চিঠি পাঠান ভারতের শিশু ও নারীকল্যাণ উন্নয়নমন্ত্রী মানেকা গান্ধী। তার যুক্তি ছিল, এই পণ্যটিকে করমুক্ত করা হলে গ্রামীণ এলাকায় গরিব নারীদের মধ্যে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ব্যবহার বাড়ানো সম্ভব হবে। ফলে নিশ্চিত হবে নারীদের স্বাস্থ্যসুরক্ষায় একটি ধাপ।

আর সুস্থ ও স্বচ্ছ ভারত গড়ার লক্ষ্যেই এটা করা উচিত বলে মন্তব্য করেছিলেন মানেকা। তবে জেটলির নেতৃত্বাধীন জিএসটি কাউন্সিল সেই প্রস্তাবে সাড়া দেয়নি।
সুত্র-সমকাল

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24