রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:৫৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুর আদর্শ মহিলা কলেজের উদ্যােগে দুই যুক্তরাজ্য প্রবাসিকে সম্মাননা প্রদান জগন্নাথপুরে শিক্ষক সংকট নিরসনে প্রবাসি সংগঠন নিয়োগ দিল ১২ প্যারা শিক্ষক যে ঘুষ খাবে সেই কেবল নয়, যে দেবে সেও অপরাধী: প্রধানমন্ত্রী বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৭ জগন্নাথপুরের পাটলীতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা জগন্নাথপুরে গাছ কাটার ঘটনায় যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে জগন্নাথপুরে শিকল দিয়ে তিনদিন বেঁধে রাখার পর রিকশাচালকের মৃত্যু:হত্যা মামলা দায়ের ভারত বিনা যুদ্ধেই হারাচ্ছে জঙ্গি বিমান, নিহত হচ্ছেন পাইলট ২০০৫ সালের সিরিজ বোমা হামলার বিচার অবশ্যই হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী সাপের ছোবলে শিশুর মৃত‌্যু

জগন্নাথপুরবাসীর স্বপ্নের রানীগঞ্জ সেতুর বাস্তবায়নে জেলাজুড়ে আনন্দ

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১২ জানুয়ারী, ২০১৭
  • ৭৫ Time View

অমিত দেব/আলী আহমদ ;: ১৪ জানুয়ারি হতে যাচ্ছে সুনামগঞ্জবাসীর আরেক স্বপ্নের বাস্তবায়ন। পাগলা-জগন্নাথপুর-আউশকান্দি (আব্দুস সামাদ আজাদ মহাসড়কের) কুশিয়ারা নদীর ওপর রানীগঞ্জ সেতুর ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন হতে যাচ্ছে। যে কারণে জগন্নাথপুরতথা পুরো সুনামগঞ্জবাসীর মধ্যে অন্যরকম আনন্দ উচ্চ¦াস দেখা দিয়েছে। সিলেট বিভাগের দীর্ঘ এ সেতুটির নির্মাণ কাজ বাস্তবায়ন করছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে ২৪ ব্যুরো গ্রুপ কোম্পানী লিমিটেড ২৪বি) ও ও এমএমবিল্ডার্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেড এমবিইএল। চুক্তি অনুযায়ী আগামী তিন বছরের মধ্যে ৭০২ দশমিক ৩২ মিটার দীর্ঘ ও ১০ দশমিক ২৫ মিটার প্রস্থ সেতুটির নির্মাণ কাজ শেষ করার কথা রয়েছে।

সড়ক পরিবহণ ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়ুদল কাদের স্থানীয় সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নানকে সাথে নিয়ে সেতুর ভিত্তি প্রস্তুর স্থাপন করবেন। জগন্নাথপুরতথা সুনামগঞ্জ জেলাবাসীর দীর্ঘদিনের প্রাণের দাবি আঞ্চলিক এই মহাসড়কে কুশিয়ারা নদীর ওপর রানীগঞ্জ সেতু নির্মাণ। সেতুটির কাজ বাস্তবায়ন হলে সুনামগঞ্জ জেলাশহর রাজধানীতে পৌঁছতে ৬০ কিলোমিটর পথ কমে আসবে। সময় বাঁচবে কমপক্ষে দুই ঘন্টা।

এলাকাবাসী ও সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, ১৯৯৯ সালে আওয়ামীলীগ সরকারের শাসনামলে তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুস সামাদ আজাদ পাগলা-জগন্নাথপুর-আউশকান্দি আঞ্চলিক মহাসড়কের কাজ শুরু করেন। ২০০১ সালে বিএনপি সহ চারদলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় এলে তৎকালীন অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমান ওই সড়কের অপ্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করে সড়কের বরাদ্দ বন্ধ করে দিলে মহাসড়কের স্বপ্নের অকাল মৃত্যু হয়। ২০০৮ সালে আওয়ামীলীগ পূনরায় ক্ষমতায় এলে সুনামগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য এম এ মান্নান ওই মহাসড়কের কাজ পুনরায় চালুর প্রচেষ্ঠা চালান। এক পর্যায়ে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অগ্রাধিকার তালিকা সবুজ পাতায় সড়কটি অর্ন্তুভূক্ত করে একনেকে ৫২ কোটি টাকা অনুমোদন করান। সেই থেকে মহাসড়কের অসমাপ্ত কাজ জোরে শোরে শুরু হয়। গত বছর স্থানীয় সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী কুশিয়ারা নদীর ওপর রানীগঞ্জে ফেরি সার্ভিস চালু উদ্বোধন করে সরাসরি যান চলাচলের সুযোগ করে রানীগঞ্জ সেতু নির্মাণের কার্যক্রম শুরু করেন। ফেরী পারাপার শুরু হওয়ার পর থেকে সুনামগঞ্জবাসীকে স্বল্প সময়ে রাজধানীতে যাতায়াতের চলাচল শুরু হয়।

সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর সূত্র মতে, ২০১৪ সালের ২৫ জুন একনেকের সভায় প্রধানমন্ত্রী অত্যাধুনিক বক্স গার্ডার এই সেতুর ১২৬ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন করেন। গত বছর জুন মাসে সেতুর দরপত্র আহ্বান করা হয়। দরপত্রে অংশ নেয় দেশী বিদেশী তিনটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। অবশেষে যৌথভাবে কাজ চায়নিজ কোম্পানী সিআর ২৪বি এবং বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান এমবিইএল।৭০২ দশমিক ৩২ মিটার দীর্ঘ ও ১০ দশমিক ২৫ মিটার প্রস্থ অত্যাধুনিক বক্স গার্ডার সেতুটি হবে দুই লেন বিশিষ্ট। সেতুর দুই পাশে লোকজন চলাচলের জন্য থাকবে ফুটপাত। মুল সেতুর বাইরে থাকবে ২ দশমিক ৫কিলোমিটর এপ্রোচ সড়ক। বর্তমানে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মালামাল এনে সেতুর পাড়ে কাজ শুরু করে। সেতু নির্মাণ কাজের সাথে সম্পৃক্ত ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন জানান, তিন বছরের মধ্যে সেতুটির কাজ বাস্তবায়নের কথা থাকলেও আমরা আশাবাদী আড়াই বছর সময়ের মধ্যেই সেতুটির পুরো কাজ শেষ করতে পারব। তিনি জানান, বর্তমানে ১৪০জন শ্রমিক সেতুর কাজে নিয়োজিত রয়েছে।

জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুক্তাদীর আহমদ মুক্তা জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, রানীগঞ্জ সেতু বাস্তবায়ন কাজের উদ্বোধনের মাধ্যমে সুনামগঞ্জবাসীর মধ্যে অন্যরকম আনন্দ উচ্চ¦াস বিরাজ করছে। সেতুটি বাস্তবায়ন হলে জেলার সাথে রাজধানীর সেতুবন্ধনের পাশাপাশি স্বল্পসময়ে যাতায়াত সম্ভব হবে। জগন্নাথপুর একটি সম্ভাবনাময় উপজেলা হিসেবে গড়ে উঠবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সেতুর ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন বর্তমান সরকারের উন্নয়নের মাইলফলক হিসেবে কাজ করবে। আমরা এখন প্রস্তুতি নিচ্ছি বনাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে সেতুটির ভিত্তি প্রস্তুর কাজ বাস্তবায়নে।

জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি নুরুল ইসলাম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, প্রয়াত জাতীয় নেতা আব্দুস সামাদ আজাদ যে স্বপ্নবোপন করে গিয়েছিলেন। আমাদের বর্তমান সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান তা বাস্তবায়নের মাধ্যমে সুনামগঞ্জবাসীর বাসীর স্বপ্নকে বাস্তবে রূপ দিলেন। তিনি বলেন, সামাদ আজাদের মৃত্যুর পর তাঁর শুন্য আসনে একজন যোগ্য রাজনৈতিক উত্তরসূরীকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে পাওয়ায় আমাদের সেই স্বপ্ন এখন বাস্তবায়ন হতে চলেছে। জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি আকমল হোসেন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, রানীগঞ্জ সেতু সুনামগঞ্জবাসীর কাছে পদ্মাসেতুর মতো আনন্দের বিষয়। তিনি সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে স্থানীয় সংসদ সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রীকে নিয়ে আমন্ত্রন জানিয়েছেন বলে জানান। তিনি বলেন,আওয়ামীলীগ সরকারের শাসনামলে সুনামগঞ্জে সুরমাসেতুর মতো বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়নের মতোই কুশিয়ারার বুকে রানীগঞ্জ সেতু বাস্তবায়ন জেলাবাসীর আরেক বড় স্বপ্নের বাস্তবায়ন।

সুনামগঞ্জ সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, রানীগঞ্জ সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর অনুষ্ঠানকে সফল করতে আমরা যাবতীয় প্রস্তুুতি গ্রহণ করেছি। সুনামগঞ্জের একটি বড় প্রকল্প হিসেবে এই সেতুটি বাস্তবায়নে আমাদের সার্বক্ষনিক নজরদারী রয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24