রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেন দুইজন, কাল প্রতিক বরাদ্দ পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা বেড়াতে গিয়ে বাড়ি ফেরার পথে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল জগন্নাথপুরের এক যুবকের

জগন্নাথপুরে একটি সরকারী স্কুলে ভাড়াটিয়া শিক্ষক দিয়ে চলছে পাঠদান

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৬ জুলাই, ২০১৭
  • ১২০ Time View

আলী আহমদ/ গোবিন্দ দেব :: জগন্নাথপুর উপজেলার চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের বাউধরন গ্রামে অবস্থিত ৪৪নং বাসুদের ম্মরণ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোন শিক্ষক না থাকায় পাঠদান চরমভাবে ব্যাহত হচ্ছে। স্থানীয় অভিভাবকদের অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয় শিক্ষক নেই। যে কারনে শিক্ষা কার্যক্রম হুমকির মুখে পড়েছে।
বৃহস্পতিবার দুপুরে স্কুল পরির্দশনকালে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা এমন তথ্য জানিয়েছেন।

সরজমিনে দেখা যায়, ১ম, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেনীর শিক্ষার্থীরা নিজেদের মধ্যে আলাপচারিতায় ব্যস্ত। তিনটি ক্লাসেই কোন শিক্ষক নেই। অন্য দিকে ২য় ও ৩য় শ্রেনীতে যথাক্রমে দুই জন প্যারা শিক্ষক ক্লাস নিচ্ছেন। ওই সব ক্লাস শেষে অপর শ্রেনীর শিক্ষার্থীরে পাঠদান নেয়া হবে। এভাবেই চলছে অনেক দিন যাবত বিদ্যালয়ে পাঠদান। ফলে বিদ্যালয়ের দুইশতাধিক শিক্ষার্থীদের পাঠদান নিয়ে দুশ্চিতায় পড়েছেন অভিভাবকরা। বিদ্যালয়ে ৩জন প্যারা শিক্ষক থাকলেও গতকাল বৃহস্পতিবার দুইজন প্যারা শিক্ষক ক্লাস নিয়েছেন।

বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেনীর ছাত্রী সাবিয়া বেগম জানান, শিক্ষক সংকটের কারনে আমাদের পড়াশুনার মারাত্মকভাবে ব্যাহত হচ্ছে। প্রায় সময়ই সব ক্লাসের পড়াশুনা হয় না। আমরা শিক্ষক চাই। ভাল ফলাফলের জন্য শিক্ষক দেয়ার দাবী জানায় সে।

প্যারা শিক্ষক রুবা আক্তার ও স্বপ্না বেগম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, বিদ্যালয়ে শিক্ষক না থাকায় এলাকাবাসির সহযোগিতায় শিক্ষার্থীদের পাঠদানে আমরা বিদ্যালয়ে নিয়োজিত হয়েছি। সকল দিন সব ক্লাস নেওয়া সম্ভব হয় না। শিক্ষার্র্থীদের ভাল মানের পাঠদানে আমাদের প্রচেষ্টা সর্বাত্বক রয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য ঠকন মিয়া জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, প্রায় দেড় বছর ধরে বিদ্যালয়ের শিক্ষক নাই। বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগের জন্য অনেক দিন ধরে দাবী করে আসছি। কিন্তু দাবীতে এখনো উপেক্ষিত রয়েছে। ফলে শিক্ষার্থীদের পড়াশুনায় চরমভাবে বিঘিœত হচ্ছে।

জানা যায়, ২০০৯সালে আবুল বাসার নামে এক প্রধান শিক্ষক বিদ্যালয়ে যোদগান করেন। যোগদানের কিছু দিন পর তিনি চলে যাওযার পর ওই বছরের ২৬শে মে সহকারি শিক্ষক হিসেবে যোগদান করেন লাকি রানী দে। তিনি ২০১৫ সালে ৩১ মার্চ অন্যত্র বদলি হন। পরে ডেপুটেশনে শেফালি বেগম যোগদান করে তিন মাস পর চলে গেলে তার স্থলে গত বছরের ৯ মে ডেপুটেশনে উপজেলার পাইলগাও ইউনিয়নের জালালপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে ওই বিদ্যালয়ে যোগদান করেন ফরিদ আহমদ।

বাসুদেব স্মরন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি হাজী সিরাজ আলী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, প্রায় এক রছর ধরে বিদ্যালয়ে শিক্ষক নাই। ডেপুটেশনে একজন শিক্ষক বিদ্যালয়ে নিয়োজিত থাকতেও তিনি সপ্তাহে ২/৩দিন আসেন। আমরা শিক্ষার্থীদের কথা চিন্তা করে তিন জন প্যারা শিক্ষক দিয়ে পাঠদান চালাচ্ছি। শিক্ষার্থী ও এলাকার বিত্তশালিদের নিকট থেকে অর্থ সংগ্রহ করে তাদের বেতন দেয়া হয়। শিক্ষক সংকটের বিষয়টি স্থানীয় শিক্ষা অফিসারদের একাধিকবার জানানো হয়েছে।
বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে নিয়োজিত শিক্ষক ফরিদ আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, গত বছর আমি বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে যোগদান করলেও বর্তমান স্থানীভাবে নিয়োজিত রয়েছি। বিদ্যালয়ে নিয়মিতই যাচ্ছি। বর্তমানে ১০ দিনের প্রশিক্ষনে রয়েছি। তাই আমি বিদ্যালয়ে যেতে পারিনি।

এব্যাপারে জগন্নাথপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদিনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে শিক্ষক সংকটনের সত্যতা নিশ্চিত করে জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, বিদ্যালয়ে স্থানীয়ভাবেই একজন শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24