বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ১০:০৮ পূর্বাহ্ন

জগন্নাথপুরে এবার আগে-ভাগে ঈদের বেচাকেনা শুরু

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ৩ জুন, ২০১৮
  • ৭৩ Time View

বিশেষ প্রতিনিধি :: অন্যান্যা বছরের তুলনায় এবার একটু আগে-ভাগেই ঈদের কেনাবেচা শুরু হয়েছে সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে।
আজ রোববার জগন্নাথপুর পৌর শহরের সদরের পুরান বাজার ও শহরের কয়েকটি মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে ঈদের বেচাকেনার চিত্র।
ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন, টানা দুই বছর ফসল ডুবির কারনে প্রভাব পড়েছিল গত ঈদবাজার গুলোতে। এবার হাওরের বাস্পার ফলন হওয়াতে প্রায় কয়েক কোটি কোটির মালামাল আমদানি করেছেন ব্যবসায়ী। এই ঈদে বেচাকেনা বাস্পার হবে বলে আশা করছেন ব্যবসায়ী। এরই মধ্যে বেচাকেনা শুরু হয়ে গেছে। তবে ঈদের সপ্তাহ আগ থেকেই কেনাবেচার ধুম পড়ার সম্ভাবনার কথা জানান ব্যবসায়ী। এদিকে বাজারে আসা ক্রেতারা জানিয়েছেন, গত দুই বছর ফসল হারানোর কারণে পরিবার লোকজনদের ঈদের আনন্দে জামা কাপড় দেওয়া যায়নি। এবছর গোলায় ধান থাকায় ঈদের কেনাকাটা করতে সাহস যুগিয়েছে।
সরেজমিনে পৌর শহরের জগন্নাথপুর পুরান বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতিটি কাপড়ের দোকানেই ক্রেতাদের কমবেশি উপস্থিতি লক্ষ্যনীয়। বেচাকেনা চলছে। তবে বড় বড় কাপড়ের দোকান কিংবা আধুনিক বিপনী বিতানগুলোতে প্রচুরপরিমানের মালামাল মজুদ করা হলেও ক্রেতাদের উপস্থিতিই এখনো আশানুরূপ হয়নি।
নিউ ঝলক ফ্যাশনের মালিক কদ্দুছ মিয়া বলেন, গত দুই ফসল ফসলডুবির কারনে ঈদ বাজার খুবই মন্দা ছিল। এবছর হাওরের ফসল ভাল হওয়ায় পাশাপাশি প্রবাসীদের আর্থিক সার্পোটে ঈদবাজার বাম্পার হবে বলে আশা করছি । অন্যবছরের তুলনায় এবার মালামালও অনেক বেশি আনা হয়েছে।
আরেক ব্যবসায়ী আসল ঝলকের স্বত্তাধিকারী শ্যামল ঘোষ বলেন, এবার মনে হচ্ছে একটু আগে-ভাগেই ঈদ বাজার জমে উঠতে শুরু করেছে। তবে ঈদের দিন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে পুরোদমে বেচাকেনা ব্যস্ততা বেড়ে যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছে।
না প্রকাশ না করার শর্তে এক বড় গার্মেন্স ব্যবসায়ী জানান, এবার হাওরের ধান বাস্পার হওয়াতে জগন্নাথপুর পৌরশহরেরসহ উপজেলার সব’কটি হাটবাজারে প্রায় ৪০ কোটি টাকার মালামাল আমদানি করা হয়েছে।
জানা যায়, গত দুইবছর হাওরের ফসলডুবির ফলে ঈদবাজার মারাত্মকভাবে প্রভাব করে। প্রবাসীদের আর্থিক সহযোগিতায় কিছুটা মন্দাভাব কাটলেও ঈদের পুরাপুরি আনন্দ ছিলনা উপজেলাবাসীর মধ্যে। এবার হাওরের বাম্পার ফসল হওয়ায় কৃষকের শুন্যগোলা ভরেছে সোনাধানে। গত বছরই এ মৌসুমে কৃষকের ঘরে দুশ্চিন্তায় ছায়াবৃত্ত থাকলেও এবার সেইসব ঘরে হাসি-খুশি আর আনন্দ বিরাজ করছে। ঈদ বাজারে বেচাকেনায় প্রস্তুুতি নিচ্ছেন মানুষজন।
নলুয়া হাওরপারের কৃষক নেতা সিদ্দেকুর রহমান বলেন, পর পর দুই বছর ফসলহারিয়ে হাওরবাসী নানা কষ্টের মধ্যে পরিবার পরিজন নিয়ে জীবন যাপন করে। এ বছর বোরো ফসলের বাস্পার ফললে অভাবটা মুছে গেছে অনেকটা। গত কয়েকটি ঈদ আনন্দহীন ভাবে কাটলেও এবার হাসিখুশিতে ঈদ উদযাপন করবেন হাওরের লোকজন। এরমধ্যে কেউ কেউ ঈদের কেনাকাটা শুরু করেছেন।
হাওর বাচাঁও সুনামগঞ্জ বাঁচাও আন্দোলনের জগন্নাথপুর উপজেলা কমিটির আহবায়ক সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম বলেন, এই ঈদ অন্যান্য ঈদের চেয়ে বেশি আনন্দমুখর হয়ে উঠবে। কারন এবছর প্রতিটি মানুষের ঘরেই ফসল উঠেছে। পাশাপাশি প্রবাসীদের সহযোগিতাত্ব রয়েছেই । এ দুইয়ে মিলে খুশির ঈদ খুশিতেই ভরে উঠবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24