বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৫৪ অপরাহ্ন

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমের আহ্বানে সাড়া দিয়ে সহায়তা করায় স্কুল ছাত্র অলক দাশ সুস্থ হয়ে ফিরছে

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ২৫ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: মানুষ মানুষের জন্য,জীবন জীবনের জন্য চিরন্তন শ্বাশত মর্মস্পশী কন্ঠধ্বনী আবারও বিজয়ী হয়েছে। আমরা জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমের মাধ্যমে যে আহ্বান জানিয়েছিলাম এরালিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্র অলক দাসকে বাঁচাতে সাহায্যের জন্য। আমাদের সেই আহ্বানে সাড়া দিয়ে অনেকেই সেই ছেলেটির চিকিৎসার জন্য অর্থ সহায়তার ব্যবস্থা করেছেন। তাই আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। সেই সাথে জানাচ্ছি আপনাদের দোয়া ও আর্থিক সহযোগীতায় ছেলেটি ক্রমশ সুস্থ হয়ে উঠার আশাজাগানিয়া গল্প। জগন্নাথপুর উপজেলার কলকলিয়া ইউনিয়নের গোড়ারগাঁও গ্রামের দিনমজুর অনন্ত দাশের ছেলে এরালিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র অলক দাশ(১৫) লিভারে অপারেশনের জন্য ৩০ হাজার টাকার প্রয়োজন। দরিদ্র বাবা এর আগে সব কিছু বিক্রি করে শেষে অপারেশনের টাকার জন্য নিরুপায় হয়ে পড়েন। আমরা আহ্বান জানালে তাৎক্ষনিকভাবে অনেক সাড়া পাওয়া যায়। জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমের সংবাদ প্রকাশের পর পরই রানীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুঠোফোনে জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে ছেলেটির চিকিৎসা অর্থ কোন সমস্যা হবে না আশ্বাস দিয়ে চিকিৎসা করানোর আহ্বান জানান। তারপর এরালিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে ছেলেটির বাবাকে অর্থসহায়তা করা হয়। এরালিয়া বাজার উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সুফি মিয়া,শিক্ষানুরাগী সদস্য এম ফজরুল ইসলাম,হারুন মিয়া, মাহবুবুর রহমান,নজরুল ইসলাম ১২ হাজার টাকা। ও রানীগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রৌয়াইল ও পঞ্চগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সহায়তায় ৫৬০০ টাকা প্রদান করেন। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী একজন ছেলেটিকে অর্থ সহায়তা দিতে তাঁর স্বজনদেরকে দায়িত্ব দিয়েছেন। তাছাড়াও জগন্নাথপুর বাজারের ব্যবসায়ীরা অর্থ সহায়তা দিয়েছেন। সকলের ভালোবাসায় ছেলেটি অপারেশনের পর এখন বাড়ি ফিরেছে। চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চলছে চিকিৎসা। পরিবারের মুখে ফিরে এসেছে হাসি। ছেলেটির বাবা অনন্ত দাশ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমের কাছে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করে বলেন, আমার ছেলেটির অপারেশনসহ চিকিৎসায় যারা সহযোগীতা করেছেন আমি তাদের সবার কাছে চীরকৃতজ্ঞ। আপনাদের ভালোবাসা ও দোয়ায় আমার ছেলেটি সুস্থ হতে চলছে। আমি এখন সবার কাছে ছেলেটির জন্য আশিব্বার্দ চাই। ছেলেটির নিকট আত্বীয় কোকিল দাস বলেন, জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম পরিবারের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ। তাদের মাধ্যমে খবরটি প্রচার হওয়ায় অনেকেই সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। এখন সে সুস্থ হতে চলছে। আমরা আশাকরি সে আবারও স্কুলে যাবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24