শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:০০ পূর্বাহ্ন

জগন্নাথপুর পৌরবাসী যানজটে অতিষ্ট ‘মনে হয় তারা জ্যাইগা জ্যাইগা ঘুমাইন’

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২২ আগস্ট, ২০১৫
  • ৮৩ Time View

আলী আহমদ :: জগন্নাথপুর পৌরশহরে কোন নির্ধারিত ষ্ট্যান্ড না থাকায় রাস্তার উপর ষ্ট্যান্ড বসিয়ে যান চলাচল চলছে। ফলে শহরে তীব্র যানজট লেগেই আছে। একাধিক দূর্ঘটনা ঘটলেও এ থেকে পরিত্রানের কোন উদ্যোগ নেই। প্রশাসনের নাকের ডগায় এ অবস্থা বিরাজমান করলেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সমস্যা সমাধানে কোন প্রদক্ষেপ নেই। যে কারনে জনদূর্ভোগ চরমে উঠেছে।
জানা যায়, জগন্নাথপুর পৌরশহরে অটো-রিকশা, সিএনজি, ইমা-লেগুনা, টেম্পুসহ ছোট ছোট যান বাহনের কোন নির্ধারিত স্ট্যান্ড না থাকায় দীর্ঘদিন ধরে জগন্নাথপুর-সুনামগঞ্জ সড়কের ইকড়ছই এলাকায় রাস্তার উপর ষ্ট্যান্ড বসিয়ে যান চলাচল চলছে। এছাড়াও পৌর পয়েন্টে ও নলজুর নদীর উত্তর পারে খাদ্য গুদামের সামনের রাস্তায় এ সব যান বাহনের ষ্ট্যান্ড বসিয়ে গাড়ি চালানো হচ্ছে।
এলাকাবাসী জানান, শহরের মূল রাস্তায় এলোমেলোভাবে এ সব যানবাহন গুলো পড়ে থাকে। অগুছালো অবস্থায় গাড়িগুলো সড়ক জুড়ে পড়ে থাকায় যানজটের প্রকট আকার ধারন করে। এ কারনে চরম দূর্ভোগে পড়তে হয় পথচারীদের। অনেকদিন যাবন এ অবস্থা বিরাজ করছে। এ সব রাস্তায় প্রায়ই দূর্ঘটনা ঘটছে। ঘটছে প্রাণহানির ঘটনাও। এ সময় দেখার যেন কেউ নেই। প্রশাসনের নাকের ডগায় এমন করুন অবস্থায় দেখা দিলেও উত্তরনের কোন প্রদক্ষেপ নেই। পৌরশহরের আবদুল খালিক উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী জানান, সড়কের উপরে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন এলোমেলোভাবে পড়ে থাকে। আমাদেও এ সড়ক দিকে প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্কুলে যাওয়া আসা করতে হয়।
পৌরশহরের ইকড়ছই এলাকার বাসিন্দা আবদুল মুকিত জানান, পুরো শহরে এমন করুন অবস্থা দীর্ঘদিন ধরে বিরাজ করলে সংকট নিরসে কোন উদ্যোগ নেয়া হচ্ছেনা। ‘মনে হয়ে তারা জ্যাইগা জ্যাইগা ঘুমাইন’। জগন্নাথপুর-সুনামগঞ্জ সড়কে দূর্ঘটনায় বেশ কয়েকটি প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে। দ্রুত এ সমস্যা সমাধানের জন্য অনুরোধ জানান তিনি।
জগন্নাথপুরের অটো-রিকশা লেগুনা-ইমা টেম্পু’র শ্রমিক নেতা আবদুল মতিন জানান, আমরা প্রশাসনের নিকট দীর্ঘদিন ধরে গাড়ি ষ্টান্ডের জন্য নির্ধারিত স্থান দাবী করে আসছি। যানবাহন রাখার কোন স্থান না থাকায় সড়কেই রাখতে হয়। পথচারীদের দূর্ভোগ এড়াতে ও যানজট সৃস্টি যাথে না হয় সে জন্য গাড়িগুলো রাস্তার এক পাশ্বে সারি সারি করে রাখা হচ্ছে।
জগন্নাথপুরের ই্উএনও মোহাম্মদ হুমায়ুন কবীর জানান, শহরের সৌর্ন্দয্য রক্ষার্থে আমরা প্রদক্ষেপ নেবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24