মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন

জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম’কে নিষিদ্ধ করেছে সরকার

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৫ মে, ২০১৫
  • ১২০ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিম’কে (এবিটি) নিষিদ্ধ করলো সরকার। পুলিশের দেয়া সুপারিশের প্রেক্ষিতে সোমবার বিকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। সন্ত্রাস বিরোধী আইন অনুযায়ী এ সংগঠনকে নিষিদ্ধ করা হলো। জঙ্গীবাদের কারণে এ নিয়ে মোট ৭টি সংগঠনকে নিষিদ্ধ করলো সরকার।
আল কায়েদা-আনসারুল্লাহ বাংলা-১৩’ নামের একটি সংগঠন গত সপ্তাহে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ চার শিক্ষক, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা, গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্রসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে তাঁদের প্রাণনাশের হুমকি দেয়। এর প্রেক্ষিতে পুলিশ সদর দফতর এক চিঠিতে সন্ত্রাসবিরোধী আইনের ১৮ ধারা অনুযায়ী আনসারুল্লাহ বাংলা টিমকে নিষদ্ধি করার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ জানায়।
তাতে বলা হয়-আনসারুল্লাহ বাংলা টিম জেএমবি ও হরকাতুল জিহাদের চেয়েও বড় সন্ত্রাসবাদী সংগঠন হিসেবে বিশ্বব্যাপী পরিচিত। তারা আল-কায়েদার মতাদর্শ অনুসরণ করে। এর প্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংগঠনটিকে নিষদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিলো।
উল্লেখ্য, গত ২১ মে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের বলেছিলেন, জঙ্গী তৎপরতার কারণে শিগগির আনসারুল্লাহ বাংলা টিম’কে নিষদ্ধি করা হবে।
এর আগে ২০০৫ সালে হরকাতুল জিহাদ আল ইসলাম, জাগ্রত মুসলিম জনতা বাংলাদেশ (জেএমজেবি), জামাআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি), হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামী বাংলাদেশ (হুজি বি) ও শাহাদাত আল হিকমাতকে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল। এরপর ২০০৯ সালে হিযবুত তাহরীরকে নিষিদ্ধ করা হয়।
সুত্রমতে, আনসারুল্লাহ বাংলা টিম একটি সক্রিয় জঙ্গি সংগঠন। ২০১৩ সাল থেকে সংগঠনটি জঙ্গী কর্মকাণ্ডে ব্যাপক পরিচিতি পায়। বাংলাদেশের যুবকদের উগ্রপন্থী আদর্শে উদ্বুদ্ধ করে জিহাদের মাধ্যমে ক্ষমতায় যাওয়াই সংগঠনটির মূল লক্ষ্য। সংগঠনটি তাদের মতাদর্শ প্রচারের জন্য মসজিদকেও ব্যবহার করে আসছিলো। সংগঠনটির হামলার মূল লক্ষ্য হলো মুক্ত চিন্তার অনুসারী, ব্লগার ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব।
২০১৩ সালের ১২ আগস্ট বরগুনা জেলার একটি মসজিদে জঙ্গি হামলা ও নাশকতার পরিকল্পনা করার সময় সংগঠনটির নেতা মুফতি জসীম উদ্দিন রাহমানীসহ ৩০ জঙ্গিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ২০১৩ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি তারা ব্লগার রাজীব হায়দারকে হত্যা করে। এ হামলার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট পাঁচজনকে পুলিশ গ্রেফতার করে। পরে তারা আদালতে স্বীকারোক্তি দেন। একই বছরের ১৪ জানুয়ারি ব্লগার আসিফ মহিউদ্দীনকে এবং ৭ মার্চ সানিউর রহমানকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা চালানো হয়। ২০১৫ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি তাঁরা মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী অভিজিত্ রায় ও তাঁর স্ত্রীর ওপর হামলা চালান। এতে অভিজিত্ রায় নিহত ও তাঁর স্ত্রী গুরুতর জখম হন। গত ৩০ মার্চ ব্লগার ওয়াসিকুর রহমানকে একইভাবে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24