শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯, ০১:০৮ অপরাহ্ন

জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক চপল সংবর্ধিত-জগন্নাথপুর থেকে পৃথক শোডাউন

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২০ এপ্রিল, ২০১৬
  • ২৭ Time View

স্টাফ রিপোর্টার- জেলা যুবলীগের নব গঠিত আহবায়ক কমিটি ও আহবায়ক খায়রুল হুদা চপলকে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেছেন,‘মুক্তিযুদ্ধের পর যুদ্ধবিধ্বস্থ ও ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশের পুনর্গঠন ও দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে যুবলীগ গঠন করা হয়েছিল। যুবলীগ দেশের উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। সুনামগঞ্জের যুবলীগ আওয়ামী লীগের সহযোগি সংগঠন হিসাবে সুনামগঞ্জ তথা দেশের উন্নয়নে কাজ করবে।’
মঙ্গলবার বিকালে শহরের আলফাত স্কয়ারে জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আসাদুজ্জামান সেন্টুর সভাপতিত্বে ও আহবায়ক কমিটির সদস্য রঞ্জিত চৌধুরী রাজনের সঞ্চালনায় সংবর্ধনা সংবর্ধনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য এমপি মতিউর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাড. বেলাল হোসাইন, কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক আতিক এবং জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নূরুল হুদা মুকুট। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংবর্ধিত অতিথি জেলা যুবলীগের আহবায়ক খায়রুল হুদা চপল। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের পর যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাড. বেলাল হোসাইন নবগঠিত জেলা যুবলীগের আহবায়ক কমিটির সকল নেতৃবন্দকে পরিচয় করিয়ে দেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য এমপি মতিউর রহমান বলেন,‘মুক্তিযুদ্ধের পর ১৯৭২ সালে যুদ্ধবিধ্বস্থ ও ক্ষতিগ্রস্ত বাংলাদেশের পুনর্গঠনে ও দেশের উন্নয়নে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে যুবলীগ গঠন করা হয়েছিল। মাত্র তিন বছরের মাথায় বাঙালির মুক্তিদাতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে এবং যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ ফজলুল হক মনিকে হত্যা করেছিল ঘাতকরা। স্বাধীনতা যুদ্ধের বিরোধিতাকারীরা যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতাকে হত্যা করে দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে চেয়েছিল। আজকের যুবকরাই শক্তি, যুবকরা অনাচার থেকে দূরে থাকবে। দেশ ও সমাজ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করবে। তাই সুনামগঞ্জ জেলা যুবলীগে যেন কোন সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ না থাকে। সুনামগঞ্জের যুবলীগ আওয়ামী লীগের সহযোগি সংগঠন হিসাবে সুনামগঞ্জ তথা দেশের উন্নয়নে কাজ করবে। ’
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাড. বেলাল হোসাইন বলেন,‘ সুনামগঞ্জে একটি আহবায়ক কমিটি থাকার পরও আরেকটি আহবায়ক কমিটি দেয়ার একটি কারণ আছে। কারণ হিসাবে তিনি বলেন, আগের আহবায়ক জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। দলের গঠনতন্ত্র ও নিয়ম অনুযায়ী কেউ অন্য সংগঠনের দায়িত্বপ্রাপ্ত হলে ২৮ দিনের মধ্যে সম্মেলন করে দায়িত্ব হস্তান্তর অথবা সম্মেলন করে নতুন কমিটি গঠন করার। কিন্তু সাবেক আহবায়ক কোনটাই করতে পারেননি। হয়তো আগের আহবায়কের ইচ্ছে ছিল কিন্তু সময়-সুযোগের অভাবে পারেন নি। তাই সুনামগঞ্জের যুবলীগকে একটি মডেল যুবলীগ হিসাবে পুনর্গঠিত করার লক্ষ্যে খায়রুল হুদা চপলকে আহবায়ক করে নতুন আহবায়ক কমিটি গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি আগামী তিনমাসের মধ্যে জেলার সকল উপজেলার সম্মেলন করে নতুন কমিটি গঠনের পর সম্মেলনের মাধ্যমেই জেলা কমিটি গঠন করবেন। প্রয়োজনে ত্যাগীদের আহবায়ক কমিটি অন্তর্ভুক্ত করা হবে। ’ তিনি আরো বলেন,‘বেশ কয়েক বছর আগে সাংগঠনিক সম্পাদক থাকাকালীন সময়ে সুনামগঞ্জের যুবলীগের কর্মীসভায় এসেছিলাম। সে সময় ২০-২৫ জনেরও বেশী নেতাকর্মী হয়নি । আমার আশা বর্তমান আহবায়ক কমিটি একটি মডেল যুবলীগ উপহার দিতে পারবে। ’
জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নূরুল হুদা মুকুট বলেন,‘যুবলীগে কোন খুনি, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও মাস্তান থাকতে পারে না। কিন্তু মুক্তিযুদ্ধের চেতনার শেখ হাসিনার সরকারের আমলে যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে নিরীহ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তানকে হত্যা করা হয়েছে। যুবলীগের নেতা খুনি, এটা যুবলীগের জন্য কলংক। বর্তমান যুবলীগে যেন কোন খুনি, সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও মাস্তান না থাকে। ’

স্বাগত বক্তব্যে জেলা যুবলীগের আহবায়ক খায়রুল হুদা চপল বলেন,‘সুনামগঞ্জের যুবলীগকে একটি মডেল ও শক্তিশালী যুবলীগে পরিণত করা হবে। সকল ত্যাগী নেতাকর্মীদের যুবলীগে অন্তর্ভুক্ত করা হবে। কাউকে বাদ দিয়ে আমি কোন কিছু করব না। সবাইকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করব। উন্নয়নের মডেল হিসাবে ও শান্তির জেলা হিসাবে সুনামগঞ্জের উন্নয়নে কাজ করব। যুবলীগকে শক্তিশালী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করব। সুনামগঞ্জের যুবলীগে কোন সন্ত্রাসী, খুনি ও চাঁদাবাজ থাকবে না। ’ সুনামগঞ্জের সকল ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে তিনি জেলা-উপজেলার সকল যুবলীগ নেতাকর্মীকে আগামী ১৫দিন কৃষকদের পাশে থেকে কাজ করার আহবান জানান।
এদিকে কমিটি পাওয়া পর সুনামগঞ্জ আসা উপলক্ষে পাগলা জগন্নাথপুর সড়কের আব্দুর রইছ চত্বরের সামনে জগন্নাথপুর উপজেলা যুবলীগের পৃথক পৃথক গ্রুপের নেতাকর্মীরা ফুল দিয়ে বরণ করেন। উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি (প্রত্যাখানকৃত) সাইফুল ইসলাম রিপন, কাউন্সিলর দেলোয়ার হোসাঈন,নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে যুবলীগের নেতাকর্মীরা জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক খায়রুল হুদা চপলকে বরণ করে নেন। পরে যুবলীগের সভাপতি কামাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন লালন, পৌর যুবলীগের নেতা সিদ্দিকুর রহমান, নিজামুল করিমের নেতৃত্বে এবং আজিজুস সামাদ ডন অনুসারী হিসেবে পরিচিত পৌর কাউন্সিলর যুবলীগ নেতা সুহেল মিয়ার নেতৃত্বে অপর একটি গ্রুপ চপলকে ফুলের শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন। পরে নেতাকমীরা মোটর শোভাযাত্রায় সুনামগঞ্জ সংবর্ধনা স্থলে নিয়ে যান। এছাড়াও সংবর্ধনাস্থলে ছাত্রলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে জেলা যুবলীগর আহ্বায়ক চপলকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24