বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০৭:১৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:

তাহিরপুরে সরকারি গাছ কাটা নিয়ে দুই চেয়ারম্যানের বাগবিতন্ডা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৭ নভেম্বর, ২০১৭
  • ৩৮ Time View

তাহিরপুর প্রতিনিধি
তাহিরপুরে সরকারী গাছ কাটা নিয়ে দুই চেয়ারম্যানের মধ্যে বাগবিতন্ডার ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কাশেম ও সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনের মধ্যে। রবিবার দুপুরে উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদ ভবন থেকে বাদাঘাট বাজার যাওয়ার রাস্তার মধ্যে দুই সংবাদকর্মীর সামনে প্রকাশ্যে বাকবিতন্ডার ঘটনাটি ঘটে। এ বিষয়ে রবিবার সাড়ে ৪ টার দিকে উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদ সচিব আসিফ আফিন্দি উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, রবিবার সকালে উত্তর বড়দল ইউনিয়র পরিষদ বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কাশেম দুপুর ১২টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদের দিকে যাচ্ছিলেন। যাওয়ার পথে রাস্তার মধ্যে দেখতে পান উত্তর বড়দল থেকে বাদাঘাট সড়কে লাগানো সরকারী বিভিন্ন গাছের ডাল-পালা কাটছে কিছু শ্রমিক। তিনি শ্রমিকদের কাছে গাছ কাটার কারণ জানতে চাইলে শ্রমিকরা জানায়, উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনের নির্দেশে তারা গাছের ডালপালা কাটছেন। এসময় সরকারী গাছের ডাল না কাটার জন্য শ্রমিকদের নিষেধ দেন বর্তমান
চেয়ারম্যান আবুল কাসেম। নিষেধ দেয়ার কিছুক্ষণ পরেই সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনও ঘটনাস্থলে আসেন। সরকারী গাছ কাটার সংবাদ পেয়ে দৈনিক যায়যায়দিনের প্রতিনিধি ও দৈনিক যুগান্তরের তাহিরপুর প্রতিনিধিও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এক পর্যায়ে দুই সংবাদকর্মীর সামনেই গাছের ডাল কাটা নিয়ে বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কাশেম ও সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও পরষ্পরের মধ্যে উচ্চস্বরে বাগবিতন্ডা শুরু শুরু হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে এখানে থাকা গণমাধ্যমকর্মী ও স্থানীয় লোকজন দুই চেয়ারম্যান কে দুইদিকে ফিরিয়ে দেন। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দুই চেয়ারম্যানের লোকজনের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
বাদাঘাট পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ এস আই তপন চন্দ্র দাস বলেন, ‘ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়ে সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিনকে অনুমতি ব্যতিত সরকারী গাছ না কাটার জন্য নিষেধ করা হয়েছে।’
উত্তর বড়দল ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আবুল কাশেম বলেন, ‘সরকারী গাছ কাটার সময় তার শ্রমিকদের বাধা প্রদান করায় জামাল উদ্দিন আমার প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে আমার সাথে বাগবিতন্ডা শুরু করে।’
সাবেক চেয়ারম্যান জামাল উদ্দিন বলেন, ‘রাস্তায় লাগানো গাছের ডালপালা ফসলি জমির উপর পরে ফসল নষ্ট করে দিচ্ছিল। যাতে ফসল নষ্ট না হয় এ জন্য বলছিলাম শ্রমিকদের গাছের ডালগুলো ছাটাই করে দেয়ার জন্য।’
বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্ব তাহিরপুর) সমীর বিশ্বাস বলেন, ‘আমাকে মৌখিক ভাবে উত্তর বড়দল ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান গাছ কাটার বিষয়টি জানিয়েছেন। আমি বর্তমানে জেলা প্রশাসক সম্মেলন কক্ষে মিটিং এ আছি, বিষয়টি পরে দেখবো।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24