বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০২:১৬ অপরাহ্ন

দোয়ারাবাজারে মাতাল সন্ত্রাসীদের হাতে এক পরিবারের ২০ জন আহত

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৬ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ১১১ Time View

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা : বাড়ির মেহমানকে মারপিঠক্রমে আহত করে তার টাকা পয়সা ছিনতাই করে নেয়ার প্রতিবাদের জের ধরে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার মান্নারগাও ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে মানবাধিকার কর্মীসহ এক পরিবারের ২০ ব্যক্তি আহত হয়েছে। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়,সোমবার রাত ৮টায় সদর উপজেলার গৌরারং ইউনিয়নের বড়ঘাট গ্রামের নুরুল আওয়াল (৪০) তার শ্বশুড় বাড়ি জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার গোপালপুর কাজিবাড়িতে বেড়াতে যাওয়ার সময় পথিমধ্যে এলাকার চিহ্নিত মদ্যপায়ী হেরোইনসেবী সন্ত্রাসীরা তার গতিরোধ করে তার কাছে নগদ টাকা চাঁদা দাবী করে। নুরুল আওয়াল গোপালপুর কাজীবাড়ির আত্মীয় মানবাধিকার কর্মী জমির উদ্দিনের বাড়িতে যাচ্ছেন বলে চাঁদাবাজদেরকে চাঁহিতো টাকা দিতে অস্বীকার করলে গোপালপুর সাউদেরগাও গ্রামের অদুদ মিয়ার পুত্র মাদক ব্যাবসায়ী তোফায়েল, গোপালপুর মড়লপাড়ার ছিদ্দেক আলীর পুত্র নূর আহমদ, গেদা মিয়ার পুত্র নুরুজ্জামান, শ্রীনাথপুর গ্রামের আব্দুল মনাফ মিয়ার পুত্র হেরোইনসেবী কয়েছ ও একই গ্রামের সুদ ব্যাবসায়ী আজাদসহ একদল সন্ত্রাসীরা তাকে এলোপাতাড়িভাবে মারপিঠক্রমে আহত করে তার টাকা পয়সা ছিনতাই করে নেয়। পরদিন মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সন্ত্রাসীদের কাছে আত্মীয়ের ছিনতাইকৃত টাকা ফেরত দানের দাবী জানালে সন্ত্রাসীদের পক্ষ নিয়ে তাদের গোত্রীয় লোকেরা প্রতিবাদী জমির উদ্দিন (৫৫) এর উপর হামলা করে রামদায়ের কোপে তাকে গুরুতর আহত করে। এ সময় পরিবারের লোকজন ও প্রতিবেশীরা তাকে রক্ষার জন্য এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা আরো ১৯ জনকে আহত করে। পরে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আহত ২০ জনকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহত জমির উদ্দিন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন সুনামগঞ্জ জেলা শাখার নির্বাহী সদস্য। মাতাল সন্ত্রাসীগন কর্তৃক মানবাধিকার কর্মীর উপর বর্বরোচিত হামলার সংবাদ পেয়ে জেলা মানবাধিকার কমিশনের সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন দিলীপ,একেএম আবু নাছার ও সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক আল-হেলালসহ স্থানীয় গন্যমান্য লোকজন তাদেরকে দেখতে জেলা সদর হাসপাতালে যান। তারা অবিলম্বে আমবাড়ি বাসস্ট্যান্ডে গড়ে উঠা মাদক ব্যাবসায়ীদের অবৈধ দোকান পাট বন্ধ করাসহ চিহ্নিত মাতালদের গ্রেফতারের দাবী জানান। দোয়ারাবাজার থানার ওসি সেলিম নেওয়াজ এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন,স্থানীয় লোকজন এ ব্যাপারে এলাকায় সালিশ বৈঠকের আয়োজন করে ঘটনার সম্মানজনক নিস্পত্তির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে ভূক্তভোগীরা মামলা দায়ের করলে আমরা মাতাল সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অবশ্যই আইনানুগ ব্যাবস্থা গ্রহন করবো।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24