রবিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০২:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে মাদ্রাসা ছাত্র সাব্বিরের হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল জগন্নাথপুরে পৃথক দুই হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি সাংবাদিকতার উজ্জ্বল পরিম-লে কামকামুর রাজ্জাক রুনু এক স্বপ্নচারী পুরুষ শেখ রাসেলের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জগন্নাথপুরে আ.লীগের আলোচনাসভা জগন্নাথপুরে শ্রমিকলীগের কমিটি বিলুপ্ত জগন্নাথপুরের তিন রাজনীতিবীদ জেলা আ,লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মনোনীত হলেন জগন্নাথপুরে দুইপক্ষের বিরোধে বলি হলো মাদ্রাসার ছাত্র সাব্বির জগন্নাথপুরে ছিনতাইকৃত গ্রামীণফোনের রিচার্জ কার্ড-অর্থসহ ডাকাত গ্রেফতার জগন্নাথপুরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে শিশু নিহত জগন্নাথপুরে অটোচালককে হত‌্যা করে লাশ ডোবায় ফেলে দিল দুবৃর্ত্তরা

বিএনপিতে ইলিয়াছ রাজত্বের অবসান শুরু হচ্ছে লুনার পথচলা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ৮ আগস্ট, ২০১৬
  • ২৯ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: দেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপির রাজনীতিতে ইলিয়াস যুগের ইতি ঘটলো। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকার নয়াপল্টনস্থ দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর যে বিশাল বহরের কমিটির নাম প্রকাশ করেছিলেন তার শীর্ষ দিকেই ‘নিখোঁজ’ বিএনপি নেতা এম ইলিয়াস আলীর নাম খুঁজেছেন তার সমর্থকরা।

কিন্তু ৫০২ সদস্যের এই কমিটিতে ‘নিখোঁজ’ এই নেতার নাম নেই। তবে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হিসেবে কেন্দ্রীয় রাজনীতিতে অভিষিক্ত হয়েছেন ইলিয়াস পত্মী তাহসিনা রুশদীর লুনা।

তবে নিখোঁজ ইলিয়াসকে কমিটিতে না রাখলেও এবার কোন আক্ষেপ নেই ইলিয়াস সমর্থকদের। কেননা ইলিয়াস সমর্থকদের ‘ভাবি’ খ্যাত তাহসিনা রুশদীর লুনাকে চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদে রাখায় তারা আনন্দিত।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটিতে সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন এম. ইলিয়াস আলী। ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাজধানীর বনানী থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হন ইলিয়াস। বিএনপির নেতাদের দাবি, সরকার ইলিয়াস আলীকে গুম করেছে।

নিঁখোজ হওয়ার পরও গত ৯ এপ্রিল পর্যন্ত সাংগঠনিক সম্পাদকের পদে রাখা হয়েছিলো এম. ইলিয়াস আলীকে। এই কমিটিতে যুগ্ন সাংঠনিক সম্পাদক হিসেবে ছিলেন ডা. সাখাওয়াত হোসেন জীবন।

গত ১৯ মার্চ বিএনপির কাউন্সিলের মাধ্যমে বিলুপ্ত হয় আগের কার্যনির্বাহী কমিটি। সেদিনই দলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করার একক দায়িত্ব দেন দলীয় চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে। সেই ক্ষমতাবলে শনিবার যুগ্ন মহাসচিব ও সাংগঠনিক সম্পাদকদের নাম ঘোষণা করেন খালেদা জিয়া।

ঘোষিত তালিকায় ছিলনা সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের নাম। দলীয়সূত্র দাবি করেছিল ইলিয়াস আলীর মতো সাংগঠনিক দক্ষতা সম্পন্ন কাউকে খোঁজে না পাওয়ায় এই পদটি খালি রাখা হয়েছিল।

জানা যায়, সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার পর পুরো সিলেট বিভাগ চষে বেরিয়েছিলেন ‘নিখোঁজ’ ইলিয়াস। বিএনপিকে চাঙ্গা করে তিনি। ৯ এপ্রিল দুপুর পর্যন্ত বিএনপিতে কমিটিতে সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক পদটি খালি ছিল। ওই রাতেই সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পান ডা. সাখাওয়াত হোসেন জীবন।

এর আগে ৭ ফেব্রæয়ারি সিলেট জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকেও নাম মুঁছে যায় ‘নিখোঁজ’ ইলিয়াস আলীর। ওইদিন সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির কাউন্সিলের মাধ্যমে আবুল কাহের শামীমকে নতুন সভাপতি হিসেবে পায় সিলেট জেলা বিএনপি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24