বুধবার, ২২ জানুয়ারী ২০২০, ১২:৩১ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে আটঘর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সম্পন্ন জগন্নাথপুরে সিদ্দিক আহমদ প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই উৎসব অনুষ্ঠিত বিশ্বনাথে শিশুদের প্রতিবন্ধী হয়ে জন্ম নেওয়া এক গ্রামের গল্প জগন্নাথপুরে দুইবছরের দণ্ডপ্রাপ্ত আসামী গ্রেফতার জগন্নাথপুরে জুয়ার আসর থেকে ১০ জুয়াড়ি আটক জগন্নাথপুরে অস্ত্র মামলার পলাতক আসামী ডাকাত জসিম গ্রেফতার চীনের প্রাণঘাতী ভাইরাস: শাহজালালে সতর্কতা জগন্নাথপুরে সাংবাদিক সানোয়ার হাসানের পিতা সাবেক মেম্বার ছুরত মিয়ার ইন্তেকাল, জানাযা বিকেলে ৪টা৪০ মিনিটে জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন সম্পন্ন জগন্নাথপুরের সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নে ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন

বিড়াল উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস!

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
  • Update Time : রবিবার, ৫ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৮৫ Time View

এসির আউটডোর ইউনিটের ফাঁকে আটকে পড়া পোষা বিড়াল উদ্ধার করতে ফায়ার সার্ভিসের শরণ হলেন বিড়ালটির মালিক। আটকে পড়ার ১৯ ঘণ্টা পর আজ রবিবার সকাল ৯টায় বিড়ালটিকে উদ্ধার করা হয়। এ সময় শত শত লোক বিড়াল উদ্ধার দেখতে হাসপাতাল ভিড় করে।

বিড়ালের মালিক যশোর শহরের পূর্ববারান্দীপাড়ার জাকির হোসেন জানান, দুই বছর আগে আমার স্ত্রী নাজমা এলাকার একটি ডোবা থেকে বাচ্চা অবস্থায় বিড়ালটিকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে আসে। বাড়ি আনার পর বিড়ালটিকে সাবান দিয়ে গোসল করিয়ে পরিষ্কার করা হয়। এরপর বিড়ালটি আমরা কোলে পিঠে করে বড় করি। এমনকি সে আমাদের সাথে বিছানাতেই ঘুমায়। বিড়ালটি আমাদের সন্তানের মতো। আমাদের একমাত্র ছেলে সাইফ সাদাত পড়াশোনার জন্য ঢাকা থাকে। এ কারণে নিঃসঙ্গতায় আমাদের সঙ্গী ওই বিড়ালটি।

তার পেটে বাচ্চা থাকার কারণে গত শনিবার সকালে বিড়ালটিকে আমি ও আমার স্ত্রী পশু হাসপাতালে নিয়ে যাই ভ্যাকসিন দিতে। সেখান থেকে ফিরে দুপুর ১২টার দিকে সদর হাসপাতালের তিনতলায় পেয়িং ওয়ার্ডে যাই আমার আত্মীয় এক রোগী দেখতে। এ সময় বিড়ালটি আমার স্ত্রীর কোল থেকে নিচে নামে। কিছুক্ষণ পর তাকে খোঁজা শুরু করি। হাসপাতালের বিভিন্ন স্থানে তাকে না পেয়ে বাড়ি চলে যাই। আজ সকাল ৭টায় এসে আবার তাকে খোঁজা শুরু করি। একসময় হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডের বিপরীতে এসির আউটডোর ইউনিটের ফাঁকে বিড়ালটিকে দেখতে পাই। তখন দেরি না করে ফায়ার সার্ভিসকে বিষয়টি জানাই। ফায়ার সার্ভিসের লোক আমার ডাকে সাড়া দিয়ে বিড়ালটিকে সেখান থেকে উদ্ধার করে আমার স্ত্রীর হাতে দেন।

বিড়াল হাতে পেয়ে জাকিরের স্ত্রী নাজমা বেগম আনন্দে কাঁদতে কাঁদতে বলেন, বিড়ালটিকে আমি ‘মা’ বলে ডাকি। বিড়াল ফেরত পাওয়ায় ফায়ার সার্ভিসের লোকদের আমি ধন্যবাদ জানাই। যশোর ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন কর্মকর্তা গোলাম কিবরিয়া বলেন, মানবতার জন্য আমাদের আসা। আমরা বিড়ালটিকে সম্পূর্ণ সুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে মালিকের হাতে তুলে দিতে পেরে খুবই আনন্দিত।

কালের কণ্ঠ

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24