মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে পঞ্চাশ ঊর্ধ্ব ব্যক্তির বয়স ২৪ বছর! এ অভিযোগে মনোনয়ন বাতিল, গেলেন আপিলে জগন্নাথপুরে নদীর পাড় কেটে মাটি উত্তোলনের দায়ে দুই ব্যক্তির কারাদণ্ড জগন্নাথপুর বাজার সিসি ক্যামেরায় আওতায় আনতে এসআই আফসারের প্রচারণা জগন্নাথপুরে নিরাপদ সড়ক ও যানজটমুক্ত রাখতে প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুর উপজেলা ক্রিকেট এসোসিয়েসনের নতুন কমিটি গঠন মিরপুরে আ.লীগ প্রার্থী আব্দুল কাদিরের সমর্থনে কর্মীসভা অনুষ্ঠিত ফেসবুকে ক্ষমা চেয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক রাব্বানী প্রায়ই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকেন শিক্ষক জগন্নাথপুরে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার, থানায় জিডি সংস্কারের দাবীতে জগন্নাথপুর-বিশ্বনাথ সড়কে মঙ্গলবার থেকে আবারও অনিদিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট

ভারতকে বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে না বরং লাভবান হবে বাংলাদেশ: অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৪ জুন, ২০১৫
  • ৬৬ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: ভারতকে বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে না বরং লাভবান হবে বাংলাদেশ জানিয়েছেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের পর বাংলাদেশের কতটা লাভ হবে সে প্রশ্ন অনেকেই তুলছেন।
ভারতের সাথে কানেক্টিভিটি বাড়ানো এবং ভারতীয় কোম্পানিকে বাংলাদেশে বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের জন্য বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে বলে অনেকেই অভিযোগ করছেন।শনিবার ঢাকায় বিবিসি বাংলাদেশ সংলাপে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন এক্ষেত্রে ভারতকে কোন বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছেনা। অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন কানেক্টিভিটিতে আমরা ভয়ঙ্কর লাভবান হব।
মিঃ মান্নান বলেন ভারতীয় ভূখণ্ড ব্যবহার করে নেপাল এবং ভুটানের সঙ্গে ব্যবসা করার চেষ্টা বাংলাদেশ অনেকদিন ধরেই করছে।
মিঃ মোদীর সফরে বাংলাদেশের সেই চাহিদা পূরণ হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
ভারতের রিলায়েন্স ও আদানি গ্রুপকে বাংলাদেশে সাড়ে চার হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য সমঝোতা স্মারক সাক্ষর হয়েছে।
সংলাপে উপস্থিত একজন দর্শকএ দুটি বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের জন্য ভারতের কোম্পানিগুলোকে মহেশখালীতে জমি দেবে বাংলাদেশ।
অর্থ প্রতিমন্ত্রী মিঃ মান্নান বলছেন এতে বাংলাদেশই লাভবান হবে।
তিনি বলেন “আমরা যদি ভারত থেকে গরু আমদানি করতে পারি, শাড়ি আমদানি করতে পারি, পেঁয়াজ আমদানি করতে পারি, তাহলে বিদ্যুৎ আমদানি করতে সমস্যা কোথায়?”কিন্তু অনেকেই অভিযোগ করছেন বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের জন্য ভারতীয় কোম্পানিগুলোকে বিশেষ সুবিধা দেয়া হচ্ছে।
কিন্তু অর্থ প্রতিমন্ত্রী এ ধরণের অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে বলেন, যে কোন বিদেশী বিনিয়োগকারী বাংলাদেশে বিনিয়োগ করতে চাইলে তাঁদেরকে জমি দেয়ার বিষয়টি একেবারে নতুন কোন ঘটনা না।
মিঃ মান্নান বলেন “যেকোনো ইনভেস্টার (বিনিয়োগকারী) আসলে আমাদের কাছে জমি চাইবে, গ্যাস চাইবে, নিরাপত্তা চাইবে – এগুলো তো আমরা দিতে বাধ্য।”ব্যবসা করতে গেলে সেটা ‘খোলা মনে’ করতে হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

অনুষ্ঠানের আরেকজন প্যানেলিস্ট সাবেক রাষ্ট্রদূত নাসিম ফেরদৌস মনে করেন যে ভারতের সাথে কানেক্টিভিটি বাড়লে ভারতের সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য বাড়বে।
তিনি মনে করেন বাংলাদেশীদের ভারতে যাতায়াতের ক্ষেত্রে ভিসা পাওয়ার প্রক্রিয়াটি যদি সহজ করা হত তাহলে বাংলাদেশ কানেক্টিভিটির দিক থেকে আরও উপকৃত হত। সাবেক এ রাষ্ট্রদূত আরও বলেন বাংলাদেশের উপর দিয়ে ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে সেদেশের যানবাহন চলাচলের সুযোগ দিলে বাংলাদেশ আর্থিকভাবে লাভবান হবে।
সংলাপে আরেক প্যানেলিস্ট ব্যাংকার জিয়াউল হাসান মনে করেন ভারতের সাথে যতটা সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্ক রাখা যায় বাংলাদেশের জন্য ততই ভালো। সূত্র বিবিসি বাংলা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24