সোমবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৯, ০১:০৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
কাশ্মীরে প্রতিবাদের ঝড় বইছে, পাথরই হাতিয়ার, নিহত ট্রাক চালক ছাত্রলীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষ,গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ ফারুক হত্যা মামলায় এক রোহিঙ্গা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত জগন্নাথপুরে বিদ্যালয় সমূহে পরিচ্ছিন্ন রাখতে ডাষ্টবিন বিতরণ শুরু জগন্নাথপুরে কমিউনিটি পুলিশিং সভায় পুলিশ সুপার- সুনামগঞ্জের শান্তি শৃঙ্খলা নিশ্চিতে কাজ করতে চাই বিশ্বনাথে পাইপগানসহ গ্রেফতার-১ মাহী বি চৌধুরীকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ ভিডিও কেলেঙ্কারি : জামালপুরে নতুন ডিসি নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জগন্নাথপুরে সৈয়দপুর গ্রামবাসীর উদ্যোগে সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন:সভাপতি পঙ্কজ দে,সেক্রেটারী মহিম

ময়লা ভেবে ছুড়ে ফেলা হলো নবজাতককে!

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ১০ অক্টোবর, ২০১৭
  • ১৭ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: সদ্য জন্ম হয়েছে নবজাতকের। মায়ের খুশি যেন আর ধরে না। জন্মের পরই ওই ছেলে সন্তানের নাম রাখা হয়েছিল জোসে। হাসপাতালে সারা রাত মা তাঁর বুকের কাছে আগলে রেখেছিলেন নাড়ি ছেঁড়া ধনকে। কিন্তু সকাল হতেই বুক খালি। পাগলপ্রায় মা। অনেক খোঁজাখুঁজির পরও মেলেনি সন্তান। অবশেষে দুই সপ্তাহ পর একটি লন্ড্রিতে ময়লা কাপড়ের স্তূপে ওই শিশুটির লাশ পাওয়া যায়।
ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনে বলা হয়, ময়লা কাপড়ের সঙ্গে ছোট্ট ওই নবজাতককে ভুল করে লন্ড্রির স্তূপে ছুড়ে ফেলা হয়। আর এতেই জোসে নামের ওই নবজাতকের মৃত্যু হয়। যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটায় ২০১৩ সালের এপ্রিল মাসের এ ঘটনায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে গত মাসে মামলা করেছেন শিশুটির মা এসমেরালদা হার্নান্দেজ।
প্রতিবেদনে বলা হয়, মিনেসোটার সেন্ট পলে রিজিওনস হাসপাতালে ২০১৩ সালে এপ্রিলে এসমেরালদা ওই শিশুর জন্ম দেন। রাতে সন্তানকে বুকের কাছে রেখেই ঘুমিয়ে পড়েছিলেন তিনি। সকালবেলা সন্তানকে কাছে না পেয়ে অস্থির হয়ে পড়েছিলেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ওই সন্তানকে ফিরিয়ে দেওয়ার আশ্বাসও দিয়েছিল। কিন্তু ব্যর্থ হয়। এর প্রায় দুই সপ্তাহ পর গণমাধ্যমের মাধ্যমে তাঁরা জানতে পারেন, রিজিওনস হাসপাতালে জন্ম নেওয়া এক নবজাতকের লাশ ক্রোথাল লন্ড্রির ময়লা কাপড়ের স্তূপ থেকে পাওয়া গেছে। ওই লন্ড্রিটি হাসপাতাল থেকে ৪৫ কিলোমিটার দূরে রেড উইং শহরে অবস্থিত। শিশুটির পরনে থাকা ডায়াপার ও হাতে দেওয়া ব্রেসলেট দেখে শনাক্ত করেন তাঁরা।
প্রতিবেদনে বলা হয়, পরে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়। তার বাবা-মাকেও খবর দেওয়া হয়। এ ঘটনার এক দিন পর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলেছে, হাসপাতালে কোনো কর্মী ভুল করে ময়লা কাপড়ের সঙ্গে শিশুটিকে মুড়িয়ে লন্ড্রির গাড়িতে ছুড়ে দিয়েছেন।
এ ঘটনায় গত মাসে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বর্তমানে টেক্সাসে বাস করা এসমেরালদার পরিবার। তাঁদের অভিযোগ, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানত যে উদ্ধার হওয়া মরদেহটি শিশু জোসের। কিন্তু তারপরও তারা তা পরিবারকে জানাতে চায়নি।
মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, এসমেরালদার পরিবার এ ঘটনায় প্রায় ৪১ লাখ ১২ হাজার টাকা (৫০ হাজার ডলার) ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে।
গতকাল সোমবার রিজিওনস হাসপাতালের মুখপাত্র ক্রিস্টেন কফম্যান এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘আমরা আবারও বলছি, এ ধরনের ভুলের কারণে আমরা দুঃখিত। শিগগিরই ওই শিশুর পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করেও ক্ষমা চাওয়া হবে। তাঁদের এই ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা হবে। আমরা তাঁদের আইনজীবীকেও সহায়তা করব। সুষ্ঠু সমাধানে আমরা প্রস্তুত।’
প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, হাসপাতাল থেকে জোসে নিখোঁজ হওয়ার চার দিন পর চ্যাং নামের আরও এক শিশু নিখোঁজ হয়। চলতি বছরের শুরুর দিকে মিয়ামিতে নবজাতক এক শিশুকে ভুল করে ছুড়ে ফেলা হয়। এতে তার মৃত্যু হয়। গত ওহাইওর লোরাইনে হাসপাতাল থেকে এক নবজাতকতে লন্ড্রির কাপড়ের সঙ্গে ভুল করে ছুড়ে ফেলা হয়। ২০০৮ সালে টেক্সাসের ফোর্থ ওয়ার্থে একইভাবে আরও এক শিশুকে ছুড়ে ফেলা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24