সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রামীণ ফোনের ৫ লাখ টাকা ছিনতাই, জনতার ধাওয়ায় বাইকসহ আটক ১ জগন্নাথপুরে সড়ক রক্ষায় ১০ টন ওজনের অধিক যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতিক বরাদ্দ, আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা প্রার্থীরা গরুর মাংস বিক্রি: ভারতে খ্রিস্টান যুবককে পিটিয়ে হত্যা জগন্নাথপুরের ব‌্যবসায়ী ফেরদৌস মিয়া খুনের ঘটনায় সানিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড সুনামগঞ্জে হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের যাবজ্জীবন ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ওপর ছাত্রলীগের ‘হামলা’ আহত ২৫ অনেকেই গা ঢাকা দিয়েছে, অনেককেই নজরদাড়িতে রাখা হয়েছে: কাদের বিরিয়ানি খেলে শিক্ষকসহ ৪০ জন অসুস্থ আল কোরআন অনুসরণের আহ্বান রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের!

শেখ মুজিব থেকে শেখ রাসেল- অশেষ কান্তি দে

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭
  • ১৫৬ Time View

শেখ রাসেলের জন্মদিন আজ।বঙ্গবন্ধু তনয় রাসেল। বেঁচে থাকলে উদযাপন করতে পারতেন তিপ্পান্নতম জন্মদিবস।বেঁচে নেই তাই শিশু হিসেবে থেকে যাবেন চিরকাল।বঙ্গবন্ধু বাট্রান্ড রাসেলের লেখা পড়তে ভালবাসতেন।প্রিয় লেখকের নামানুসারে কনিষ্ঠতম ছেলের নাম রাখলেন রাসেল।ছেলের জন্ম মূহুর্তে পাশে থাকতে পারেননি বঙ্গবন্ধু।সংগঠনের কাজে ছিলেন চট্টগ্রাম।তবে ফিরেছিলেন দ্রুত।ঐতিহাসিক ধানমন্ডির বত্রিশ নাম্বার। ক্রমেই বেড়ে উঠা শেখ রাসেলের।সকলের স্নেহের আদরের তিনি।সেটা পরিবারের কিংবা অপরের।পড়তেন ইউনিভার্সিটি ল্যাবরেটরি স্কুলে।চতুর্থ শ্রেণীর ছাত্র।কলঙ্কিত পনেরই আগস্টের বিভীষিকা এই শিশুকে ও রেহাই দেয়নি।বাসায় এলে খন্দকার মোশতাক তাকে কোলে নিয়েছেন।খুনি মোশতাক ছিলেন সাংঘাতিক রকমের ধূর্ত মিনমিনে স্বভাবের লোক।দলের আদর্শ ও অসাম্প্রদায়িক চরিত্রের সাথে তাকে ঠিক মেলানো যায় না। অথচ বঙ্গবন্ধু তাকে বিশ্বাস করেছেন বুঝে না বুঝে পশ্রয় দিয়েছেন।

একাত্তরে তার ভূমিকা ছিল বিতর্কিত। তবু বঙ্গবন্ধু তাকে বিশ্বাস করেছেন।ষড়যন্ত্রকারীরা শতভাগ সফল হয়েছে ত্যাগী তাজউদ্দিনকে বঙ্গবন্ধুর কাছ থেকে দূরে সরিয়ে।মায়ের কাছে শেখ বাসেলের ছিল শত আবদার।মৃত্যুর শেষ মূহূর্তে কান্না করে যখন বলছেন আমাকে মায়ের কাছে নিয়ে চলো,আমি মায়ের কাছে যাব।ঘাতকদের দল বলেছে চলো মায়ের কাছে।বলেই গুলি করে জীবন শেষ করে দেয়।আহারে কী বেদনাদায়ক নিষ্ঠুরতা!কী কোমল,নিষ্পাপ শিশু ছিলেন শেখ রাসেল।চেহারায় বুদ্ধিমত্তার ছাপ।বেঁচে থাকলে হতে পারতেন বঙ্গবন্ধুর আরেক প্রতিচ্ছবি।
লেখক- অশেষ কান্তি দে প্রভাষক জগন্নাথপুর ডিগ্রী কলেজ।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24