সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ০৫:৪২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
কাশ্মীরে নির্বিচারে ধরপাকড় চলছে স্মৃতির রত্নায় ঈদ ভাবনা || আব্দুল মতিন জগন্নাথপুরে আগুনে পুড়ল দুইটি ঘর,ক্ষয়ক্ষতি ১০ লাখ জগন্নাথপুর আদর্শ মহিলা কলেজের উদ্যােগে দুই যুক্তরাজ্য প্রবাসিকে সম্মাননা প্রদান জগন্নাথপুরে শিক্ষক সংকট নিরসনে প্রবাসি সংগঠন নিয়োগ দিল ১২ প্যারা শিক্ষক যে ঘুষ খাবে সেই কেবল নয়, যে দেবে সেও অপরাধী: প্রধানমন্ত্রী বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৭ জগন্নাথপুরের পাটলীতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা জগন্নাথপুরে গাছ কাটার ঘটনায় যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে জগন্নাথপুরে শিকল দিয়ে তিনদিন বেঁধে রাখার পর রিকশাচালকের মৃত্যু:হত্যা মামলা দায়ের

সাঁকো ভেঙ্গে দিল আ,লীগ নেতা, দুর্ভোগে ১৫ হাজার মানুষ

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ২৬ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে বরিশালের উজিরপুরে আওয়ামী লীগের এক নেতা বাঁশের একটি সাঁকো ভেঙে দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এতে চারটি গ্রাম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। পাঁচটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ ১৫ হাজার মানুষ দুর্ভোগে পড়েছে। সাঁকো নির্মাণের দাবিতে রোববার গ্রামবাসী বিক্ষোভ করেছে।

একাধিক স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার জল্লা ইউনিয়নের মুন্সীরতাল্লুক থেকে দক্ষিণ মুন্সীরতাল্লুক পর্যন্ত পাকা সড়কটি ৩০ বছরের একটি পুরোনো সড়ক। এই সড়কের একাংশে বায়তুল আমান জামে মসজিদ অবস্থিত। মসজিদের গোড়ায় ৬০ ফুট দীর্ঘ একটি বাঁশের সাঁকো রয়েছে। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার ও মসজিদ কমিটি গঠনের বিরোধকে কেন্দ্র করে দক্ষিণ মুন্সিরতাল্লুক গ্রামের প্রভাবশালী আলমগীর সিকদারের সঙ্গে এলাকাবাসীর দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে।

মুন্সীরতাল্লুক গ্রামের প্রবীণ ফকরুদ্দিন হাওলাদারসহ আরও কয়েকজন বলেন, গত শুক্রবার জুমার নামাজ শেষে মুন্সীরতাল্লুক বায়তুল আমান জামে মসজিদ পরিচালনা কমিটি গঠনের জন্য সভা বসে। সভায় আলমগীর সিকদার নিজেকে সভাপতি ঘোষণা করলে উপস্থিত মুসল্লিরা এর বিরোধিতা করেন। এ নিয়ে মুসল্লিদের সঙ্গে আলমগীরের বাগ্বিত-া ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। একপর্যায়ে কমিটি গঠন স্থগিত করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, মসজিদ কমিটি গঠন স্থগিত হওয়ার জের ধরে শুক্রবার বেলা তিনটার দিকে আলমগীর শিকদার তাঁর ছেলে সোহাগ সিকদার ও সোহেল সিকদারের নেতৃত্বে ২৫-৩০ জন মিলে সাঁকোটির মাঝের অংশ ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। এলাকাবাসী সাঁকো ভাঙতে বাধা দিলে আলমগীরের লোকজন হামলা চালিয়ে ১০ জনকে আহত করেন।

গত শনিবার সরেজমিনে দেখা যায়, আলমগীর সিকদারের বাড়ির পাশেই খালের ওপর সাঁকোটি নির্মাণ করা হয়েছে। সাঁকো ভেঙে ফেলার প্রতিবাদে এবং দোষী ব্যক্তিদের বিচারের দাবিতে গতকাল রোববার সকালে সাঁকোর গোড়ায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।

জল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আলমগীর সিকদার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সাঁকো ভাঙা সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। শুনেছি আমার ছেলের সঙ্গে ঝগড়া হয়েছে।’

সোহাগ সিকদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘পৈতৃক সম্পত্তির ওপর সাঁকোটি থাকায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি। তাই সাঁকোটি ভেঙে দিয়েছি।’

জল্লা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ হালদার নান্টু বলেন, কারও ব্যক্তিগত জায়গায় সাঁকোটি নির্মিত হয়নি। এটি ভেঙে ফেলে চরম অন্যায় করা হয়েছে এবং হাজার হাজার মানুষকে দুর্ভোগে ফেলা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24