বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:

সুনামগঞ্জে উচ্ছেদ আতংকে ভূগছে ২০টি পরিবার : উচ্ছেদ কার্যক্রম বন্ধে মহামান্য হাইকোর্টে রীট পিটিশন দায়ের

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬
  • ২২ Time View

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা : সুনামগঞ্জ জেলা সদর হাসপাতাল সংলগ্ন ১ একর ৬০ শতক জায়গার মধ্যে দীর্ঘ ৪০ বছর যাবৎ স্বপরিবারে বসবাসরত ২২টি পরিবার উচ্ছেদ আতংকে ভোগছেন। ভুমিখেকো চক্রের অব্যাহত উচ্ছেদ আতংকে গত মাসে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন ৭১ এর রণাঙ্গনের বীর মুক্তিযোদ্ধা ও অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংক কর্মকর্তা সুরত মিয়া। সুনামগঞ্জ সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মামুন খন্দকার স্বাক্ষরিত নোটিস পেয়ে আতংকে ভূগছেন ৭১ এর শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সূর্যা মিয়ার পরিবারবর্গ। বুধবার সকাল ১০টায় উচ্ছেদ হবেন এই আশঙ্কায় মঙ্গলবার রাত ১০টায় সংজ্ঞা হারিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েন ক্ষুদ্র ব্যাবসায়ী আব্দুল হেকিমের স্ত্রী। জানা যায়,সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার সুলতানপুর মৌজার ১১৫নং জেএলস্থিত ৯৯ ও ১৭৬ খতিয়ানের ১১১ ও ১১২নং দাগভূক্ত ১ একর ৬০ শতক ভুমির মালিকানা নিয়ে মহামান্য হাইকোর্ট বিভাগের ৯৪৫০/২০১৪ নং রীট পিটিশন মামলার আদেশের আলোকে অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যর্পন মোকদ্দমা নং ৩/২০১২ এর তপশীল ভূমির দখল বাদীপক্ষ বরাবরে ২১ সেপ্টেম্বর বুঝিয়ে দেয়ার জন্য বর্ণিত ভূমিতে অবস্থিত স্থাপনা অপসারন সংক্রান্ত বিষয়ে ২০টি পরিবার এর নামে গত ৮ সেপ্টেম্বর ১৫৬১ (৩) নং স্মারকে নোটিশ ইস্যু করা হয় সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কার্যালয়ে। ৮ তারিখের ইস্যুকৃত নোটিশ ১৮ তারিখ পৌছে ঐ পরিবারগুলোর কাছে। মাত্র ৩দিনের মধ্যে উচ্ছেদ নোটিশ পেয়ে উচ্ছেদ আতংকে ২০টি পরিবার দিশেহারা হয়ে পড়েন। ভূক্তভোগী পরিবারগুলো যাতে উচ্চ আদালতে না যেতে পারে সেজন্য ৮ লাখ টাকা ঘুষের বিনিময়ে কতিপয় কর্মচারী ৩দিন আগে নোটিশ পৌছান তাদের কাছে। তারপরও মঙ্গলবার মহামান্য হাইকোর্টে ভূক্তভোগী পরিবারের লোকজন কথিত উচ্ছেদ নোটিশের বিরুদ্ধে ১২১৮৫ নং রীট পিটিশন দায়ের করেন। দায়েরকৃত ঐ রীট পিটিশনের অনুকূলে হাইকোর্টের আইনজীবী এডভোকেট মোঃ সারোয়ার হোসেন এর উকিল সার্টিফিকেট সহকারে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত আবেদন করলে জেলা প্রশাসক উচ্ছেদ কার্যক্রম সম্পাদন থেকে বিরত থাকার আবেদনটি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাইজার মোঃ ফারাবীকে প্রদান করেন। সুনামগঞ্জের বিজ্ঞ আইনজীবীরা বলেন,যেহেতু উচ্ছেদ কার্যক্রমের বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্টে ইতিমধ্যে রীট পিটিশন দায়ের করা হয়েছে সেহেতু আইনগতভাবে এই কাজটি এখন বাধাগ্রস্থ। তাই এই মুহুর্তে উচ্ছেদ কার্যক্রম থেকে বিরত থাকা উচিত। জানতে চাইলে জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম বলেন,উচ্ছেদ কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার মর্মে ভূক্তভোগী পরিবারগুলোর আবেদন আমরা পেয়েছি। আবেদন ব্যাপারে ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছি। সুনামগঞ্জ-মৌলভীবাজার সংরক্ষিত আসনের এমপি এডভোকেট শামছুন নাহার বেগম শাহানা রব্বানী দীর্ঘ ৪০ বছর ধরে যারা ঐ জায়গায় বসবাস করছে তাদেরকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরন না দিয়ে কোন ধরনের উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা হবে অমানবিক। তিনি যেহেতু বিষয়টি পৌর এলাকার মধ্যে অবস্থিত সেহেতু পৌরসভায় উভয় পক্ষকে বসিয়ে ফায়সালার ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য প্রশাসনকে পরামর্শ দেন। সুনামগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আয়্যুব বখত জগলুল বলেন,ভূমি অফিসের পক্ষ থেকে উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য পৌরসভার কাছে যন্ত্রপাতি চাওয়া হয়েছে। কিন্তু এ ব্যাপারে আমরা পৌর পরিষদ এখন পর্যন্ত কোন সিদ্বান্তে পৌছতে পারিনি। বৃহত্তর হাছননগর এলাকার বাসিন্দারা বলেন,আমরা বরাবরই এই অমানবিক উচ্ছেদ কার্যক্রমের বিরোধী। শেষ পর্যন্ত বিষয়টি কোনদিকে মোড় নেয় সেদিকে দৃষ্টি এখন সকলের।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24