বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯, ০৬:২৯ অপরাহ্ন

হোয়্যাটসঅ্যাপ কল দিয়েই ফোনের নিয়ন্ত্রণ ইসরাইলি ম্যালওয়্যারের!

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১৫ মে, ২০১৯
  • ১০২ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

বহুল ব্যবহৃত হোয়্যাটসঅ্যাপ মেসেজিং অ্যাপে স্রেফ একটি মিসড কল দিয়েই টার্গেটের মোবাইল ফোনে ইন্সটল করা সম্ভব হয়েছে একটি ক্ষতিকর ইসরাইলি সফটওয়্যার (ম্যালওয়্যার)। আর ওই ম্যালওয়্যার দিয়ে টার্গেটের ফোনের সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় হ্যাকার। এমন চোখ কপালে তোলা সংবাদ দিয়েছে যুক্তরাজ্যের খ্যাতনামা পত্রিকা ফিন্যান্সিয়াল টাইমস। খবরে বলা হয়েছে, হোয়্যাটসঅ্যাপে একটি নিরাপত্তা ত্রুটির কারণেই এমনটা সম্ভব হয়েছে। খোদ হোয়্যাটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ও নজরদারি চালানোর প্রযুক্তি বা স্পাইওয়্যার বিক্রিতে মধ্যস্থতা করেন এমন এক ডিলারের বরাতে এ খবর দিয়েছে পত্রিকাটি।

বিশ্বজুড়ে প্রায় ১৫০ কোটি মানুষ হোয়্যাটসঅ্যাপ ব্যবহার করেন। এই মাসের শুরুর দিকে হোয়্যাটসঅ্যাপের নিরাপত্তা কর্মীরা আবিষ্কার করেন যে, কোনো ব্যাক্তির হোয়্যাটসঅ্যাপ নম্বরে কল দিয়েই তার আইফোন বা অ্যান্ড্রয়েড চালিত ফোনে একটি ক্ষতিকর ম্যালওয়্যার ইন্সটল করে সেটির সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিতে পেরেছে হ্যাকাররা। ওই ম্যালওয়্যারের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান হলো ইসরাইলি কোম্পানি এনএসও গ্রুপ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই স্পাইওয়্যার ডিলার বলেন, টার্গেট যদি ওই ফোন না-ও ধরেন, তবুও সফটওয়্যারটি ইন্সটল হয়ে যায়। পরবর্তীতে ওই কলের অস্তিত্ব খোদ কল তালিকা থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে যায়।
ফেসবুকের মালিকানাধীন হোয়্যাটসঅ্যাপ এ নিয়ে এখনও তদন্ত করছে। ঠিক কতজনের ফোন এই কায়দায় নিয়ন্ত্রণ নেওয়া হয়েছে, তা নিয়ে এখনও তদন্ত চলছে। এমনকি রোববার যখন হোয়্যাটসঅ্যাপের প্রকৌশলীরা এই নিরাপত্তা দুর্বলতা ঢাকার উপায় বের করার চেষ্টা করছিলেন, সেদিনও ঠিক একই কায়দায় যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক একজন মানবাধিকার কর্মীর ফোনের নিয়ন্ত্রণ নেওয়া হয়েছে।
ইসরাইলি প্রতিষ্ঠান এনএসও’র এই ক্ষতিকর সফটওয়্যার নিয়ে দীর্ঘদিন গবেষণা করছে টরোন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সিটিজেন ল্যাব-এর বিশেষজ্ঞরা। তারা নিশ্চিত করে বলেছেন, রোববার ওই মানবাধিকার কর্মীর ফোন যেই নিরাপত্তা দুর্বলতার সুযোগ নিয়ে হ্যাকাররা নিয়ন্ত্রণে নিয়েছিল, ঠিক সেটি নিয়েই তখন পর্যন্ত কাজ করছিল হোয়্যাটসঅ্যাপ।

প্রসঙ্গত, এনএসও’র সবচেয়ে আলোচিত পণ্য হলো পেগাসাস। এই বিশেষ ম্যালওয়্যার কোনো ফোনে ইন্সটল করা সম্ভব হলে, ওই ফোনের মাইক্রোফোন, ক্যামেরা, কিবোর্ড, ইমেইল, মেসেজ ও লোকেশনের সমস্ত তথ্য চলে যায় নিয়ন্ত্রকের কাছে। এনএসও মূলত এই পণ্য বিক্রি করছে মধ্যপ্রাচ্য ও পশ্চিমা গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর কাছে। প্রতিষ্ঠানটির বক্তব্য, পেগাসাস মূলত সন্ত্রাসবাদ ও অপরাধ প্রতিরোধে সরকারী ব্যবহারের জন্য তৈরি করা হয়েছে।
অতীতে, মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত মানবাধিকার কর্মীরা হোয়্যাটসঅ্যাপে বার্তা পেয়েছেন। যেখানে একটি লিঙ্ক থাকতো, যেখানে ক্লিক করলেই স্বয়ংক্রিয়ভাবে পেগাসাস ডাউনলোড হয়ে যেত।

এদিকে সর্বশেষ নিরাপত্তা ত্রুটির বিষয়টি নিয়ে হোয়্যাটসঅ্যাপ বলেছে, তাদের প্রকৌশলী দল রাতদিন এই দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে কাজ করে যাচ্ছে। শুক্রবার থেকে এই ত্রুটি সারাতে আপডেট দেওয়া শুরু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সোমবার নতুন সংস্করণ এনেছে হোয়্যাটসঅ্যাপ, যেখানে এই সমস্যার সমাধান রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24