মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯, ০৪:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
অধ্যক্ষকে পানিতে নিক্ষেপ: ছাত্রলীগের আরো পাঁচজন গ্রেফতার নবীজীর কাছে যে সকল বেশে হাজির হতেন জিবরাইল (আ.) অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক লবনের গুজব জগন্নাথপুরের সর্বত্রজুড়ে,ক্রেতা সামলাতে না পেরে দোকান বন্ধ, চলছে মাইকিং জগন্নাথপুর বাজারে লবন নিয়ে গুজব জগন্নাথপুরে আমনের ফলনে কৃষক খুশি জগন্নাথপুরে দুই মেধাবী শিক্ষার্থীর সহায়তায় এগিয়ে এলেন লন্ডন প্রবাসী মোবারক আলী জগন্নাথপুরে ৬ দিন ধরে মাদ্রাসার নৈশ্য প্রহরী নিখোঁজ জগন্নাথপুরে দ্রব্য মূল্য নিয়ন্ত্রনে বাজার মনিটরিংয়ে দাবি পাঁচ দেশে নারীকর্মী পাঠানো বন্ধ চেয়ে হাইকোর্টে রিট

গৃহবধূকে থানায় ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে, সত‌্যতা মিলেছে তদন্তে

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ১৬০ Time View

তিন সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ এবং এরপর থানায় নিয়ে ধর্ষকদের একজনের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ার ঘটনার সত্যতা মিলেছে পুলিশের তদন্তে। এ ঘটনায় আজ পাবনা সদর থানার ওসি ওবাইদুল হককে প্রত্যাহার ও এসআই একরামুল হককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত নেয়।

পাবনার পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলাম গণমাধ্যমকে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

ওই গৃহবধূর অভিযোগ, রাসেল আহমেদ নামে এক প্রতিবেশী গত ২৯ আগস্ট তাঁকে বাড়িতে নিয়ে এক সহযোগীসহ পালাক্রমে ধর্ষণ করে। দুদিন পর তাকে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিসে নিয়ে তিন দিন আটকে রাখা হয় এবং সেখানে আরও চার-পাঁচনজন তাকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

পরে ওই গৃহবধূ নিজেই বাদী হয়ে পাবনা থানায় লিখিত অভিযোগ করলে পুলিশ রাসেলকে আটক করে। কিন্তু মামলা গ্রহণ না করে পুলিশ ওই রাতেই থানায় রাসেলের সঙ্গে তার বিয়ে দেয়।

পরে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে থানায় মামলা নেওয়া হয়। ঘটনা তদন্তের জন্য তিন সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করে পুলিশ। এ ঘটনায় মামলার আরও দুই আসামিকে বৃহস্পতিবার সকালে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এই নিয়ে এ ঘটনায় মোট চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এর আগে বুধবার পাবনায় থানার মধ্যে ধর্ষকের সঙ্গে ধর্ষিতার বিয়ে দেওয়ার বিষয়টি বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চের নজরে আনেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট জামিউল হক ফয়সাল, ব্যারিস্টার গাজী ফরহাদ রেজা ও অ্যাডভোকেট রোহানী সিদ্দিকা। এর জবাবে আদালত বলেছেন, আমরা বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছি। আগে দেখি, প্রশাসন কি ব্যবস্থা নেয়।

সুত্র- কালের কন্ঠ

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24