সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
কেমন ইমাম চাই সুনামগঞ্জে বিতর্কিতদের আওয়ামী লীগে স্হান না দিতে তৃণমূল নেতাদের দাবি প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষা:জগন্নাথপুরে প্রথম দিনে অনুপস্থিত ২৬০ যুক্তরাজ্য বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কমিটিকে জগন্নাথপুর বিএনপির অভিনন্দন পেঁয়াজ নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করলেন কাদের সিদ্দিকী ‘ব্রিটিশ বাংলাদেশী হুজহু’র প্রকাশনা ও এওয়ার্ড প্রদান অনুষ্ঠানের বারোতম আসর বর্ণাঢ্য আয়োজনে সম্পন্ন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি:প্রধানমন্ত্রী জগন্নাথপুর পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ড আ.লীগের কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে অগ্নিকাণ্ডে নি:স্ব ৮ পরিবার আশ্রয় নিলেন স্কুলে.মানবেতর জীবন যাপন মিশর থেকে কার্গো বিমানে পেঁয়াজ আসছে মঙ্গলবার

জগন্নাথপুরে হাওররক্ষা বেড়িবাঁধ মেরামত ও তদারকি কাজে অনিয়ম ও অবহেলার কারণে দুই ইউপি সদস্যকে অপসারণের উদ্যোগ

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ২ মে, ২০১৫
  • ১১১ Time View

স্টাফ রিপোটার:: জগন্নাথপুর উপজেলা হাওররক্ষা বেড়িবাঁধ মেরামত ও তদারকি কাজে অনিয়ম ও অবহেলার কারণে দুই ইউপি সদস্য কে সদস্য পদ থেকে অপসারণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। জানা গেছে, উপজেলার নলুয়ার হাওর ব্যাষ্টিত চিলাউড়া –হলদিপুর ইউনিয়নের ইউপি সদস্য বাবুল মাহমুদ ও নুরুল হোসেন হাওর রক্ষা বেড়িবাঁধ মেরামত ও তদারকির কাজের পিআইসি সভাপতি দায়িত্ব পালন করছিলেন। ২৪ এপ্রিল গভীর রাতে কাটা গাং এলাকায় বড় ডহর বাঁধ ভেঙ্গে পানি হাওরে প্রবেশ করতে থাকে। উপজেলা প্রশাসন ও পানি উন্নয়ন বোডের পক্ষ থেকে দিন রাত পরিশ্রশ করে বাঁধ মেরামতের উদ্যোগ নেয়া হয়। কিন্তু পিআইসি সভাপতি হিসেবে নুরুল হোসেন কোন প্রকার যোগাযোগ ও সহযোগীতা করেন নি। যা কতব্যে চরম অবহেলা জনিত অসদাচরণ। ইউনিয়ণ পরিষদ আইন ২০০৯ এর ধারা ৩৪(৪০ (খ) অনুযায়ী স্বীয় পদ থেকে অপসারনযোগ্য। এ্কইভাবে পিআইসি সভাপতি বাবুল মাহমুদ জুড়িন্দা গাছের নিকট ডুবন্ত বেড়িবাঁধ রক্ষায় কোন পদক্ষেপ না নিয়ে উপজেলা প্রশাসন ও পাউবোর দায়িত্বশীলদের সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে রাখেন। পরে চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান উদ্যোগ নিয়ে ওই বাঁধ দুটি রক্ষা করেন। এ প্রসঙ্গে ইউপি সদস্য নূরুল হোসেন বলেন, বড় ডহর বেড়িবাঁধটি মাছ শিকারের জন্য দৃবৃত্তরা কেটে দেয়ায় হাওরে পানি ঢুকে। এসময় আমি পারিবারিক কাজে বাড়িতে না থাকায় যোগাযোগ করতে পারিনি। আমার বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সঠিক নয়। অপর ইউপি সদস্য বাবুল মাহমুদ বলেন, আমার পিআইসির বাঁধ ভাঙ্গার কোন ঘটনা ঘটেনি। আমি বেড়িবাঁধ রক্ষায় সব সময় সচেষ্ট ছিলাম। একদিন বাড়িতে না থাকায় যোগাযোগ করতে পারিনি।
জগন্নাথপুর উপজেলা হাওররক্ষা বেড়িবাঁধ মেরামত ও তদারকির কাজের সভাপতি ইউএনও মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, কতব্যে অবহেলা জনিত অসদাচরণের কারণে ইউপি সদস্য বাবুল মাহমুদ ও নুরুল হোসেনের বিরুদ্ধে ইউনিয়ণ পরিষদ আইন ২০০৯ এর ধারা ৩৪(৪০ (খ) অনুযায়ী স্বীয় পদ থেকে অপসারনযোগ্য অপরাধ হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ নিতে স্থানীয় সরকার সুনামগঞ্জের উপ পরিচালক বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24