জগন্নাথপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক পদায়নে অনিয়মের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ শুন্য পদে পদায়নে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারী নীতিমালা লঙ্গন করেই বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষকদের পদায়ন করা হয়।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৪ সালের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার চুড়ান্ত ফলাফল গত ১৪ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হয়। ওই ফলাফলে জগন্নাথপুর উপজেলায় ৬৩ জন উত্তীর্ণ হন।
শনিবার সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাদেরকে পদায়ন করেন।
পদায়নের নীতিমালা অনুযায়ী নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষককে তার বাড়ির পাশে বিদ্যালয়ে যদি শুন্য পদ থাকে তাহলে সেখানে অগ্রাধিকার হিসেবে পদায়ন করার কথা অথবা এ ইউনিয়নের মধ্যে যে কোন বিদ্যালয়ে পদায়ন করতে হবে। ইউনিয়ন ও বাড়ির নিকটবর্তী বিদ্যালয়ে শুন্যপদ না থাকলে পাশের ইউনিয়নের শুন্যপদে পদায়ন করতে হবে।
কিন্তু শিক্ষক নিয়োগ পদায়নে এ নিয়ন না মেনে বাড়ির পাশে বিদ্যালয়ের শুন্য পদে নিয়োগ না দিয়ে দুরবর্তী বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়েছে। ফলে শিক্ষক ও তাদের অভিভাবকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দেয়।
অনুসন্ধানে জানা যায়, জগন্নাথপুর উপজেলার জগন্নাথপুর পৌরসভার জগন্নাথপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত প্রতাপ রঞ্জন চৌধুরীর মেয়ে তমা চৌধুরীকে পৌর এলাকার আব্দুল খালিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শুন্যপদ থাকার পরও তাকে আশপাশ ইউনিয়নের শুন্য পদে পদায়ন না করে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের রৌয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৫ কিলোমিটার দুরবর্তী বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়। ওই গ্রামের শিক্ষক ইসলাম উদ্দিন কে গ্রামের বিদ্যালয়ে পদায়ন না করে রমাপতিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়। একইভাবে পৌর এলাকার ইকড়ছই গ্রামের আব্দুল আহাদের মেয়ে জুলেখা সুলতানা কে সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের শাহকামাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়। এরকম বেশ কয়েকজন শিক্ষককে নিকটবর্তী বিদ্যালয়ে পদায়ন না করে দূরবর্তীস্থানে পদায়ন করা হয়েছে।
উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের আসামপুর গ্রামের বাসিন্দা নজরুল ইসলাম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে আসামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শুন্য পদে শিক্ষক নিয়োগের দাবি জানিয়ে আসছিলাম। গ্রামের একটি মেয়ের চাকুরি হলেও তাকে পদায়ন করা হয়েছে দুরবর্তী বিদ্যালয়ে। তিনি জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আসামপুর গ্রামের বিদ্যালয়ে শুন্যপদ ছাড়াও পাশে রয়েছে কবিরপুর ও সাতহাল চাঁনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব বিদ্যালয়ে পদায়ন না করে অন্য বিদ্যালয়ে পদায়ন করার মানে বুঝতে পারলাম না। জগন্নাথপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, জগন্নাথপুর উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পদায়নে আমাদের মতামতকে উপেক্ষা করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে পদায়ন করায় এ সমস্যা দেখা দিয়েছে।
সুনামগঞ্জ জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা পঞ্চানন বালা জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে এবার পদায়ন করা হয়েছিল। জগন্নাথপুর উপজেলার শিক্ষক পদায়নে কিছু সমস্যার কথা আমরা অবহিত হয়েছি। জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনা করে পদায়নের সমস্যা সমাধানের চেষ্ঠা করব।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» সুনামগঞ্জে বিএনপি নেতাকর্মীর গণপদত্যাগ

» জগন্নাথপুরে অতিরিক্ত মূল্যে বোরো ধানের বীজ বিক্রির অভিযোগ

» সুনামগঞ্জ-৩ আসনে মনোনয়ন সংগ্রহ করলেন বিএনপির তিন নেতা

» সিলেটে বাড়ছে যানবাহনের চাপ, বাড়ছে না সড়ক

» জগন্নাথপুরে মাসিক আইনশৃঙ্খলা সভা অনুষ্ঠিত

» অটোরিকশার চাকায় ওড়না পেচিয়ে নারীর মৃত্যু

» ঐক্য ধরে রেখে সামনে এগিয়ে যাওয়ার আহ্বান খালেদা জিয়ার

» দ্বিতীয় দিন শেষে চালকের আসনে বাংলাদেশ

» জগন্নাথপুরে ডাকাতি মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামীসহ গ্রেফতার-৬

» স্পিডবোটডুবির ঘটনায় নবদম্পতিসহ তিন যাত্রীর লাশ উদ্ধার

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

জগন্নাথপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক পদায়নে অনিয়মের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ::
সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ শুন্য পদে পদায়নে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। সরকারী নীতিমালা লঙ্গন করেই বিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষকদের পদায়ন করা হয়।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৪ সালের প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার চুড়ান্ত ফলাফল গত ১৪ সেপ্টেম্বর প্রকাশিত হয়। ওই ফলাফলে জগন্নাথপুর উপজেলায় ৬৩ জন উত্তীর্ণ হন।
শনিবার সুনামগঞ্জ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তাদেরকে পদায়ন করেন।
পদায়নের নীতিমালা অনুযায়ী নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষককে তার বাড়ির পাশে বিদ্যালয়ে যদি শুন্য পদ থাকে তাহলে সেখানে অগ্রাধিকার হিসেবে পদায়ন করার কথা অথবা এ ইউনিয়নের মধ্যে যে কোন বিদ্যালয়ে পদায়ন করতে হবে। ইউনিয়ন ও বাড়ির নিকটবর্তী বিদ্যালয়ে শুন্যপদ না থাকলে পাশের ইউনিয়নের শুন্যপদে পদায়ন করতে হবে।
কিন্তু শিক্ষক নিয়োগ পদায়নে এ নিয়ন না মেনে বাড়ির পাশে বিদ্যালয়ের শুন্য পদে নিয়োগ না দিয়ে দুরবর্তী বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়েছে। ফলে শিক্ষক ও তাদের অভিভাবকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দেয়।
অনুসন্ধানে জানা যায়, জগন্নাথপুর উপজেলার জগন্নাথপুর পৌরসভার জগন্নাথপুর গ্রামের বাসিন্দা মৃত প্রতাপ রঞ্জন চৌধুরীর মেয়ে তমা চৌধুরীকে পৌর এলাকার আব্দুল খালিক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শুন্যপদ থাকার পরও তাকে আশপাশ ইউনিয়নের শুন্য পদে পদায়ন না করে রানীগঞ্জ ইউনিয়নের রৌয়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১৫ কিলোমিটার দুরবর্তী বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়। ওই গ্রামের শিক্ষক ইসলাম উদ্দিন কে গ্রামের বিদ্যালয়ে পদায়ন না করে রমাপতিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়। একইভাবে পৌর এলাকার ইকড়ছই গ্রামের আব্দুল আহাদের মেয়ে জুলেখা সুলতানা কে সৈয়দপুর-শাহারপাড়া ইউনিয়নের শাহকামাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়। এরকম বেশ কয়েকজন শিক্ষককে নিকটবর্তী বিদ্যালয়ে পদায়ন না করে দূরবর্তীস্থানে পদায়ন করা হয়েছে।
উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের আসামপুর গ্রামের বাসিন্দা নজরুল ইসলাম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আমরা দীর্ঘদিন ধরে আসামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শুন্য পদে শিক্ষক নিয়োগের দাবি জানিয়ে আসছিলাম। গ্রামের একটি মেয়ের চাকুরি হলেও তাকে পদায়ন করা হয়েছে দুরবর্তী বিদ্যালয়ে। তিনি জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আসামপুর গ্রামের বিদ্যালয়ে শুন্যপদ ছাড়াও পাশে রয়েছে কবিরপুর ও সাতহাল চাঁনপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব বিদ্যালয়ে পদায়ন না করে অন্য বিদ্যালয়ে পদায়ন করার মানে বুঝতে পারলাম না। জগন্নাথপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জয়নাল আবেদীন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, জগন্নাথপুর উপজেলার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগ পদায়নে আমাদের মতামতকে উপেক্ষা করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে পদায়ন করায় এ সমস্যা দেখা দিয়েছে।
সুনামগঞ্জ জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা পঞ্চানন বালা জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে এবার পদায়ন করা হয়েছিল। জগন্নাথপুর উপজেলার শিক্ষক পদায়নে কিছু সমস্যার কথা আমরা অবহিত হয়েছি। জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনা করে পদায়নের সমস্যা সমাধানের চেষ্ঠা করব।

© 2018 জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃক সর্বস্বত্ত্ব সংরক্ষিত

সম্পাদক ॥ অমিত দেব, মোবাইল ॥ ০১৭১৬-৪৬৫৫৩৫,
ই-মেইল ॥ amit.prothomalo@gmail.com
বার্তা সম্পাদক ॥ আলী আহমদ, মোবাইল ॥ ০১৭১৮-২২২৯৭৫,
ই-মেইল ॥ ali.jagannathpur@gmail.com,
ওয়েবসাইট ॥ www.jagannathpur24.com, ই-মেইল ॥ jpur24@gmail.com

error: ভাই, কপি করা বন্ধ আছে।