1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
পাষণ্ড মা নবজাতককে ফেলে গেলেন কবরস্থানে - জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর
শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ১২:১৪ পূর্বাহ্ন

পাষণ্ড মা নবজাতককে ফেলে গেলেন কবরস্থানে

  • Update Time : শনিবার, ২৩ জুলাই, ২০২২
  • ১২৩৪ Time View

জগন্নাথপুর২৪ ডেস্ক::

এ কেমন পাষণ্ড মা, সন্তান জন্ম দেবার পরই গভীর রাতে গ্রামের কবরস্থানে ফেলে আসলো! সন্তানের কান্না তার (মায়ের) মন ছুঁয়ে গেলো না! অথচ কবরস্থানের পাশের অন্যরা এই নবজাতককে তুলে আনলেন। সুনামগঞ্জ শহরতলির ইব্রাহিমপুর গ্রামে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১০টায় এমন মর্মান্তিক দৃশ্যের অবতারণা ঘটে।
কবরস্থানের পাশের বাসিন্দা তাছলিমা আক্তার জানালেন অনেক রাতে হঠাৎ করে নবজাতকের কান্না কানে আসছিল। তারা এগিয়ে গিয়ে দেখলেন শরীরে রক্ত ও নারী (নারীভরি) লাগানো নবজাতক কাঁদছে। গ্রামের লোকজন জড়ো হলো। সকলে মিলে শিশুটিকে গোসল করিয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকদের জানান। পরে নবজাতককে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।
হৃদয়হীনা মা তার নবজাতককে এভাবে ফেলে গেলেও গ্রামের বয়স্ক নারী পুরুষরা এগিয়ে এলেন, নবজাতক বাঁচাতে এবং তাদের কাছে নবজাতককে নিয়ে যেতে। গ্রামের বয়স্ক মহিলা রাশেদা বেগম পাঁচ সন্তানের জননী। তিনি বললেন, কেউ না নিলে আমি শিশুটি নেব, আমার পাঁচ সন্তানের সঙ্গে আরেক সন্তান বড় হবে। স্থানীয় বাসিন্দা নিজামুল হকও সহমর্মিতা জানিয়ে বললেন, আমরা নবজাতককে বাঁচিয়ে রাখতে চাই।
স্থানীয় ইউপি সদস্য গিয়াস উদ্দিন মর্মস্পর্শি ঘটনার বিবরণ জানিয়ে বললেন, এই নবজাতক প্রয়োজেনে তার এবং তার স্ত্রীর পরিচয়ে বড় হবে। যা যা প্রয়োজন সবই করবেন তারা। রাতে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া একজন দুধ মা’কে দিয়ে বাচ্চাটিকে মায়ের দুধ খাওয়ানোর বিষয়টিও জানালেন তিনি।
সদর থানার এ এস আই সোহেল আহমদ জানান, খবর পেয়ে তারাও নবজাতককে বাঁচাতে হাসপাতালে নিয়ে আসাসহ প্রয়োজনীয় সবকিছুতে সহায়তা করেন। বিষয়টি পুলিশের উর্ধ্বতনদের জানানো হয়েছে। নবজাতককে আপাতত বাঁচিয়ে রাখার দায়িত্ব পালন করবেন সকলে। পরে শিশুটি কোথায় থাকবে, উর্ধ্বতনরাই সিদ্ধান্ত জানাবেন।
সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালের মা ও শিশু ওয়ার্ডে রাতে দায়িত্ব পালনকারী স্মৃতি আক্তার জানালেন, অন্য আরেক মায়ের দুধ খাওয়ানো হচ্ছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে দশটা পর্যন্ত শিশুটি সুস্থ্য রয়েছে বলে হাসপাতালের মা ও শিশু ওয়ার্ডের দায়িত্বশীলরা জানিয়েছেন।

 

শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩
Design & Developed By ThemesBazar.Com