1. forarup@gmail.com : jagannthpur25 :
  2. jpur24@gmail.com : Jagannathpur 24 : Jagannathpur 24
ধর্মপাশায় ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ - জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০১:২৯ অপরাহ্ন

ধর্মপাশায় ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

  • Update Time : মঙ্গলবার, ২২ নভেম্বর, ২০২২
  • ৭৮ Time View

ধর্মপাশা প্রতিনিধি
ধর্মপাশায় সোহেল আহমেদ নামে এক ফটোস্ট্যাট ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে নিজের স্ত্রী হেনা আক্তারকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ সংলগ্ন সড়কে হেনা আক্তারের পরিবারের লোকজন কর্তৃক আয়োজিত মানববন্ধনে এমন অভিযোগ করা হয়। এর আগে গত ১৪ নভেম্বর হেনার বড় ভাই সোহেল, সোহেলের ছোট ভাই কবির আহমেদ ও তাদের মা আছিয়া আক্তারকে অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন।
সোহেল সদর ইউনিয়নের বাহুটিয়া গ্রামের শাহেদ আলীর ছেলে। ২০২০ সালের ২২ সেপ্টেম্বর সোহেলের সাথে একই উপজেলার সেলবরষ ইউনিয়নের সৈয়দপুর গ্রামের শফি মিয়ার মেয়ে হেনা আক্তারের বিয়ে হয়। মানববন্ধনে অভিযোগ করা হয়, বিয়ের পর থেকে যৌতুকের জন্য হেনা আক্তারের ওপর বিভিন্নভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চলে আসছিল। গত ২০ অক্টোবর রাত সাড়ে ১১টার দিকে হেনাকে যৌতুকের জন্য অমানষিক নির্যাতন করে এবং জোরপূর্বক হেনার মুখে বিষ ঢেলে দেয় অভিযুক্তরা। পরে ওই রাতেই সাড়ে তিনটার দিকে হেনাকে মোহনগঞ্জ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে রাতেই তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করা হয়। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে ২১ অক্টোবর দুুপুর দুইটার দিকে হেনাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে রেফার করা হয়। কিন্তু ওইদিন বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে হেনাকে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করে।

মানববন্ধনে হেনার বড় বোন নূরজাহান বেগম তার বক্তব্যে বলেন, ‘থানায় মামলা না নেওয়ার কারণে আমরা পরে আদালতে মামলা করি। আদালতের নির্দেশ থাকায় পরবর্তীতে থানায় মামলা রুজু হয়। কিন্তু এখনও আসামীদের গ্রেফতার করা হয়নি। সঠিক সময়ে চিকিৎসা না করানো এবং আমাদেরকে সঠিক সময়ে খবর না জানানোর কারণে আমার বোনের মৃত্যু হয়েছে। তাই দ্রুত আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তির জোর দাবি জানাচ্ছি।’
অভিযুক্ত সোহেল আহমেদ বলেন, ‘আমি ও আমার পরিবারের লোকজনের ওপর আনা অভিযোগ মিথ্যা ও বানোয়াট। আমার স্ত্রীর খিচুনি হয়েছিল। এছাড়াও সে (হেনা) ডায়াবেটিকসহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিল। যার কাগজপত্র আমার কাছে রয়েছে। আমি মনে করি হেনার স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে।’
ধর্মপাশা সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার শেখ আলী ফরিদ আহমদ বলেন, ‘এ ব্যাপারে নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইবুনালে মামলা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তধীন রয়েছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

শেয়ার করুন

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২১
Design & Developed By ThemesBazar.Com