বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২০, ০১:১১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুর উপজেলা সমাজ কল্যান পরিষদ ফ্রান্স শাখার কমিটি গঠন জগন্নাথপুরে নদী ভাঙনের কবলে ফসলরক্ষা বেড়িবাঁধ, হাওরের ফসল নিয়ে দুশ্চিন্তায় কৃষকরা জগন্নাথপুর উপজেলাকে ভিক্ষুকমুক্ত করতে হাঁস ও নগদ অর্থ বিতরণ সুনামগঞ্জে বিদেশী অস্ত্রসহ আটক ৪ হলিমপুর অনন্ত জিউর আখড়ার গুরুশ্রীল প্রভূপাদ জগদানন্দন দাস বৈষ্ণব মহারাজ পরলোকগমন দক্ষিণ সুনামগঞ্জে খিরা খাওয়া নিয়ে বিরোধে নিহত-১ প্রশ্নফাঁস ঠেকাতে সরকার সবধরনের ব্যবস্থা নিয়েছে : শিক্ষামন্ত্রী চীনে করোনাভাইরাসে মৃত্যু ১৩২ জনের, আক্রান্ত প্রায় ৬ হাজার জগন্নাথপুরে সোনা মিয়ার মৃত্যু শোক সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে জননী ক্রিকেট ক্লাবের বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল আজ

অবশেষে ফেলানীর পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিবে ভারত

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ৩১ আগস্ট, ২০১৫
  • ১২৬ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক-ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের হাবিলদার অমিয় ঘোষের গুলিতে নিহত বাংলাদেশী কিশোরী ফেলানী হত্যার ক্ষতিপূরণ বাবদ ৫লাখ রুপি দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
ভারতের মানবাধিকার কমিশন সোমবার এ ক্ষতিপূরণের অর্থ দেয়ার নির্দেশ দেন। বাংলাদেশস্থ ভারতীয় হাইকমিশনের মাধ্যমে আলোচিত ফেলানীর পরিবারকে এ অর্থ প্রদানে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দেয়া হয়।
বাংলাদেশের জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের কর্মকর্তা জাহিদ হোসেনের বরাত দিয়ে ফেলানী হত্যা মামলার আইনজীবী ও কুড়িগ্রামের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট এস এম আব্রাহাম লিংকন জানান, ভারতীয় জাতীয় মানবাধিকার কমিশন নিজস্ব উদ্যোগে তাদের ফুল বেঞ্চ সর্বসম্মতভাবে ফেলানী হত্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ৫ লাখ রুপি বাংলাদেশের ভারতীয় হাই কমিশনের মাধ্যমে প্রদানের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দিয়েছেন। এর মধ্যদিয়ে একটি সত্য প্রাথমিকভাবে প্রতিষ্ঠিত হল যে, ভারতীয় বিএসএফ কতৃক ফেলানী হত্যার শিকার হয়েছে। যার কারণে ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে আর্থিক ক্ষতিপুরণের নির্দেশ তারা দিয়েছে।
একইসথে এর ভিতর দিয়ে আসামির উপর ফৌজদারি দায় যে যুক্তিগ্রাহ্য তা নতুন করে প্রমাণিত হল। আসামি অমিয় ঘোষের কৃতকর্ম যে ফৌজদারী অপরাধ বিচার্য তা অফিসিয়ালি স্বীকৃতি লাভ করল। এখন আমরা আশা করি আসামি অমিয় ঘোষের প্রকৃত বিচারে সাজা এবং যে ৫ লাখ রুপি ক্ষতিপুরণ দেয়া হয়েছে তা নামমাত্র। ঘোষিত আর্থিক ক্ষতিপূরণের পরিমাণ বৃদ্ধি করা যুক্তিযুক্ত বলে তিনি মনে করেন।
এ ব্যাপারে ফেলানীর মা জাহানারা বেগমের প্রতিক্রিয়া মোবাইলে জানতে চাইলে তিনি কান্নায় ভেঙে পড়েন। আবেগ আপ্লুত কন্ঠে বলেন, টাকা পয়সা চাই না। আগে বিচার চাই। ফাঁসি চাই। আমার মেয়েকে যেভাবে অমিয় ঘোষ গুলি করে হত্যা করেছে, তেমন কঠোর সাজা চাই। অমিয় ঘোষকে গুলি করে এ রায় কার্যকর করার দাবি আমার। তাহলে অমিয় ঘোষের পরিবার বুঝবে মায়ের বুক খালি করার কষ্ট কেমন? প্রায় ৫ বছর থেকে অপেক্ষা করছি ফেলানী হত্যার বিচারের জন্য। কবে ন্যায় বিচার পাব জানি না।
ফেলানীর বাবা নুরুল ইসলাম নুরু বলেন, টাকা দিয়ে মেয়েকে ফিরে পাব না। কাজেই আগে মেয়ে হত্যার বিচার চাই। খুনি অমিয় ঘোষের মৃত্যুদণ্ড চাই। হত্যার বিচার টাকা দিয়ে হয় না। আমিও ক্ষতি পূরণের দাবি করেছি তবে আগে ফেলানী হত্যার বিচার হতে হবে। বাবা হিসাবে মেয়ে হত্যার বিচার দেখে যেতে চাই। এর চেয়ে বড় চাওয়া নেই।
উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ফেলানী খাতুনকে বাংলাদেশ ভারত সীমান্তের আর্ন্তজাতিক সীমানা পিলার নং ৯৪৭ এর কাছে বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষের গুলিতে নির্মমভাবে নিহত হয়। এ ঘটনার পর বিএসএফ তার আদালতে বিএসএফ সদস্য অমিও ঘোষকে অভিযুক্ত করে একটি অভিযোগ গঠন করে। ২ বছর ৮মাস পর ২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত অমিয় ঘোষকে নির্দোষ রায় দেন বিএসএফের আদালত। সেই রায় যর্থাথ মনে করেনি বিএসএফ মহাপরিচালক। তিনি রায় পুর্নবিবেচনার আদেশ দিয়েছিলেন। এরপর ২ জুলাই ২০১৫ বিএসএফ কোর্ট অভিযুক্ত অমিয় ঘোষকে নির্দোষ বলে পুনরায় রায় দেন। এ রায়ে হতবম্ভ হয়ে পরেন ফেলানীর বাবা। বিএসএফ অমিয় ঘোষ ফেলানীকে গুলি করে হত্যা করার কথা আদালতে স্বীকার করে। তারপরও নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় সবাই বিস্মিত ও মর্মাহত হয়। এ ব্যাপারে ভারতীয় মানবাধিকার সংস্থা মাসুমকে উচ্চ আদালতে মামলাসহ প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহন করার অনুরোধ করেন ফেলানীর বাবা নুরুল ইসলাম নুরু। ভারতের মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চ (মাসুম) ভারতের সুপ্রীম কোর্টে গত ১৪ জুলাই একটি রিট মামলা দায়ের করে। ২৬ আগস্ট ভারতের দিল্লীর সুপ্রিম কোর্ট এ মামলা শুনানির জন্য আগামী ৬ অক্টোবর তারিখ নির্ধারন করে। এরই মধ্যে ভারতীয় জাতীয় মানবাধিকার কমিশন নিজস্ব উদ্যোগে তাদের ফুল বেঞ্চ সর্বসম্মতভাবে ফেলানী হত্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ৫ লাখ রুপি বাংলাদেশস্থ ভারতীয় হাই কমিশনের মাধ্যমে প্রদানের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24