বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০১:১৭ অপরাহ্ন

এক যুগ ধরে জগন্নাথপুরের মীরপুর ও বিশ্বনাথের দশঘর ইউনিয়নে নির্বাচন হচ্ছে না-এবারও হবে কীনা সংশয় রয়েছে

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ৩৪ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: আগামী মার্চ মাসে দেশব্যাপী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নে নির্বাচন হবে কীনা এনিয়ে সংশয় রয়েছে। আইনি জটিলতায় এক যুগেরও বেশী সময় ধরে নির্বাচন না হওয়ায় মীরপুর ইউনিয়নবাসীর মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। মীরপুর ইউনিয়নবাসী জানান, সর্বশেষ ২০০৩ সালে জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়ন ও বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সারাদেশের মতো অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন আওয়ামীলীগ নেতা ও বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আকমল হোসেন ও দশঘর ইউনয়নের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন যুক্তরাজ্য প্রবাসী শফিক উদ্দিন। এরপর ২০০৮ সালে জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করার জন্য আলহাজ্ব আকমল হোসেন মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে পদত্যাগ করেন ইউপি সদস্য জমির উদ্দিনকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব দিয়ে যান। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত দীর্ঘ ১৩ বছর অতিবাহিত হলেও আর কোন নির্বাচন হয়নি। চেয়ারম্যান বিহীন পুরনো ইউপি সদস্যদের দিয়ে কোন রকমে জোড়াতালি দিয়ে চলছে কার্যক্রম।
স্থানীয় নাগরিকদের সাথে আলাপ করে জানাগেছে, বিগত ২০০৭ সালে দেশে জাতীয় পরিচয়পত্রের কাজ চলাকালীন সময়ে জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের লহড়ি গ্রামের একটি অংশ নিয়ে জগন্নাথপুর ও বিশ্বনাথ উপজেলার সীমান্ত নিয়ে বিরোধের সৃষ্টি হয়। এ সময় স্থানীয় হাজী আব্দুল মালিক নামের এক ব্যক্তি এ নিয়ে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। এ মামলার কারণে দুই ইউনিয়নবাসীর ভাগ্য অনিশ্চিত হয়ে যায়।
যদিও গত বছর মিরপুর ইউনিয়নের শ্রীরামসি গ্রামের বাসিন্দা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে সম্ভাব্য প্রতিদ্বন্ধী প্রাথী মাহবুবুল হক শেরিন হাইকোর্টে রিট করেন। কিন্তু মামলা সংক্রান্ত আইনীজটিলতায় নির্বাচন বিষয়ে কোন সুরাহা হয়নি। অনুরুপভাবে
জগন্নাথপুরের শেষ সীমান্ত বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন একই অভিযোগে আটকে আছে ১৩ বছর ধরে । জগন্নাথপুর ও বিশ্বনাথ উপজেলার সীমান্ত নিয়ে বিরোধের কারণে নির্বাচন থেকে বঞ্চিত রয়েছেন দুই ইউনিয়নবাসী। এ নিয়ে দুই ইউনিয়নবাসীর মধ্যে ক্ষোভ ও হতাশা বিরাজ করছে। এ দুই ইউনিয়নে কবে নির্বাচন হবে এ ব্যাপারে নিশ্চিতভাবে কেউ কিছু বলতে পারছেন না। আসন্ন ইউনিয়ন নির্বাচন দেশব্যাপী উৎসব আমেজে প্রচারনা শুরু হলে মীরপুর ইউনিয়নবাসী অজানা শঙ্কায় রয়েছে। স্থানীয় সমাজকর্মী এম এম সুহেল বলেন, নির্বাচন না হওয়ায় মীরপুর ইউনিয়নবাসী উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দিয়ে কাঙ্কিত উন্নয়ন সম্ভব নয়। তিনি দ্রুত নির্বাচনের মাধ্যমে মীরপুর ইউনিয়নবাসীর আশা আকাঙ্কার প্রতিফলন করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন। মীরপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা যুক্তরাজ্য প্রবাসী মোমিন আহমদ বলেন,মীরপুরে ইলেকশন না হওয়ায় পুরো্ ইউনিয়নবাসী নাগরিকসেবাসহ উন্নয়ন থেকে পিছিয়ে পড়ছেন। এসব বিষয় বিবেচনায় এনে দ্রুত ইলেকশনের ব্যবস্থা গ্রহণ জরুরী। এ প্রসঙ্গে মীরপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান বর্তমান জগন্নাথপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আকমল হোসেন জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, ২০০৭ সালে দেশে জাতীয় পরিচয়পত্রের কাজ চলাকালীন সময়ে মিরপুর ইউনিয়নের লহড়ি গ্রামের একটি অংশ নিয়ে জগন্নাথপুর ও বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর গ্রামবাসীর মধ্যে সীমানা সংক্রান্ত বিরোধ সৃষ্টি হয়। এরপর থেকে হাইকোর্টে মামলা-মোকদ্দমা চলছে। যে কারণে জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ও বিশ্বনাথ উপজেলার দশঘর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন হচ্ছে না। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকর্তা বিশ্বজিত কুমার পাল বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। যতটুকু শুনেছি আদালতে সীমানা সংক্রান্ত মামলা চলছে। মামলার সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত নির্বাচন হওয়ার সুযোগ নেই।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24