মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:০৩ পূর্বাহ্ন

জগন্নাথপুরে তরুনীর ভালোবাসার জয়

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৩ মার্চ, ২০১৬
  • ৬৩৪ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: দুজন দুজনকে ভালোবাসে। দীর্ঘদিন ধরে চলছে মন দেয়া নেয়া। এক পর্যায়ে প্রেমিক তরুনী বিয়ের জন্য প্রেমিককে চাপ দিলে পরিবারের অসন্মতির কারণে ছেলেটি মেয়েটিকে বিয়ে করা নিয়ে টালবাহানা শুরু করে। নিরুপায় প্রেমিক তরুনী ছেলেটির বাড়িতে এসে অনশন শুরু করে। স্ত্রীর মর্যাদা না পেয়ে মেয়েটি ছেলেটির বাড়ির পাশে বিষপান করে। এলাকাবাসী মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফটরত মেয়েটিকে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। কর্তব্যরত চিকিৎসকরা আশংকা জনক অবস্থায় মেয়েটিকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে চিকিৎসায় মেয়েটি সুস্থ হয়ে উঠে। ঘটনাটি নাড়াদেয় সমাজপতি ও একটি মানবাধিকার সংগঠনকে। তারা এনিয়ে সালিস বৈঠকে বসেন। ছেলে মেয়ে উভয়পরিবারের সন্মতিতে বিয়ের সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু বিধিবাম অপ্রাপ্ত বয়সী ছেলে মেয়ে হওয়ায় তাদের বিয়ে আটকে যায়। তবে সিদ্ধান্ত হয় প্রাপ্ত বয়স্ক হলে পরে উভয় পরিবার তাদের বিয়ে দিবে। এবিষয়ে একটি অঙ্গীকার করেন উভয় পরিবারের লোকজন। ঘটনাটি ঘটেছে জগন্নাথপুর উপজেলায়। জানা গেছে, জগন্নাথপুর উপজেলার চিলাউড়া হলদিপুর ইউপির চিলাউড়া গ্রামের মোঃ মরম আলীর ছেলে আবুল খয়ের এর সাথে বিশ্বনাথে মোঃ মবশ্বির আলীর মেয়ে ইয়াসমিন বেগমের প্রেমের সর্ম্পক চলছিল। দীর্ঘদিন ধরে মন দেয়া নেয়ার এক পর্যায়ে মেয়েটি ছেলেটিকে বিয়ের জন্য চাপ দেয়। ছেলেটি এবিষয়ে তার পরিবারের কথা বললে পরিবারের লোকজন এ বিয়েতে অসন্মতি জানান। নিরুপায় হয়ে গত ৪ মার্চ মেয়েটি বিষ খেয়ে মৃত্যু যন্ত্রনায় ছটফট করতে থাকে।খবর পেয়ে ইয়াসমীনকে আহত অবস্থায় ইউপি চেয়ারম্যান আরশ মিয়া ও মানবাধিকার সংস্থা সি.পি.আর.এস এর সিলেট বিভাগীয় সভাপতি নুরুল ইসলাম ওসমানী মেডিক্যাল কলেজে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন। ৯ মার্চ মেয়েটি সুস্থ হয়ে উঠলে ১১ মার্চ সিলেট শহরে একটি অভিজাত হোটেলে চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আরশ মিয়ার সভাপত্বিতে এক সালিস বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন কনজ্যুমার এন্ড প্যাসেঞ্জার রাইটস্ প্রটেক্ট সোসাইটটি সি.পি.আর.এস.এর (মানবাধিকার সংস্থা) সিলেট বিভাগীয় সভাপতি মোঃ নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আমিরুল ইসলাম চৌধুরী এহিয়া, কোষাধ্যক্ষ কামাল মিয়া, চিলাউড়া বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটির সেক্রেটারী ও আওয়ামীলী যুবলীগের সভাপতি মোঃ সুজাত মিয়া, হলদিপুর ইউপি সদস্য বাবুল মিয়া, সি.পি.আর.এস সদস্য আব্দুর রহিম কয়েস ও বাবুল মিয়া, আবুল খয়ের ও তর পিতা: মোঃ মরম আলী, ইয়াসমীন বেগমের পিতা: মোঃ মবশ্বির আলী ও ফুফা মোঃ আল-আমীন, ছেলের ভাই আব্দুল মজিদের উপস্থিতিতে উভয় পরিবারের সম্মতিতে বিষয়টি নিস্পত্তি করা হয়। উভয় পরিবার লিখিত অঙ্গীকার নামা করেছেন ছেলে মেয়ে প্রাপ্ত বয়স্ক হলে উভয় পরিবার সামাজিকভাবে বিয়ে দিবেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24