বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন

জগন্নাথপুরে পশুর হাট-২০ বছরের মধ্যে এমন মন্দা বেচাকেনা হয়নি

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৭
  • ১৩১ Time View

আলী আহমদ/ আজহারুল হক ভূঁইয়া ::
জিয়াউর রহমান। পেশায় তিনি পাইকার। নেত্রকোনা জেলার ইটনা থানার মাওয়া গ্রাম থেকে ৩৬টি গরু নিয়ে প্রবাসি অধ্যুষিত জগন্নাথপুর পৌরশহরে ঈদের পশুর হাটে এসেছেন। সকাল থেকে বেলা দুই পর্যন্ত ১টি গরুও বিক্রি করতে পারেনি। গত ২০ বছর ধরে জগন্নাথপুরে পশু বিক্রি করে আসছেন তিনি। কিন্তু এবারের মতো এত মন্দা পশুর হাট হয়নি বলে তিনি রোববার জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন। তার মতো অনেক পাইকার জানিয়েছেন, এবার হাটে ক্রেতাদের ঢল থাকলেও বিক্রি হচ্ছে নিতান্তই কম। তবে আশা করছেন ঈদের শেষ মুর্হুতে জমে উঠবে বেচাকেনা।

রোববার সকাল থেকে জগন্নাথপুর পৌরশহরের হেলিপ্যাড এলাকায় পশুর হাট বসে প্রতিবছরের ন্যায়।

সরজমিন ঘুরে দেখা যায়, এবারের পশুর হাটে দেশী গরুর সংখ্যা বেশী। বিদেশী গরু নাই বলেই চলে।
ক্রয় করতে আসা অনেকেই জানান, বিদেশে গরু না থাকায় দেশী গরুর দাম চড়া। সব চেয়ে ছোট গরুর দাম ৪০/৫০ হাজার টাকা। অন্য বছরের তুলনায় এবার দাম বেশি হাওয়ায় কম বিক্রি হচ্ছে। কেউ কেউ অপেক্ষা করছেন শেষের দিকে কিনবেন। তখন হয়তো দাম একটি কম হতে পারে এমন ধারনা করছেন তারা।

পশুর হাটে আসা উপজেলার চিলাউড়া হলদিপুর ইউনিয়নের চিলাউড়া গ্রামের ফজলু মিয়া জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, কুরবানির জন্য গরু ক্রয় করার জন্য সকাল থেকে হাটে ঘুরছি কিন্তুু চাহিদার তুলনায় দাম খুবই বেশি। তাই কিনতে পারছিনা। এবারে হাটে ছোট ছোট গরু বেশি। একেকটির দাম ৪০-৫০ হাজার টাকা।

কুরবানির পশু কিনতে আসা আরেক ক্রেতা পৌরএলাকার হবিবপুর গ্রামের বাসিন্দা জুমেন আহমদ জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, গত বছরের তুলনায় এবার ২০ থেকে ৩০ হাজার টাকা প্রতিটি গরুর দাম বেড়েছে। বিদেশী পশু হাটে কম এসেছে। যে কারনে দেশী গরুর দাম চড়া।

গরু পাইকার রানীগঞ্জ ইউনিয়নের গর্ন্ধবপুর গ্রামের ছুরাব আলী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, ১০টি গরু নিয়ে এসেছি হাটে। এখনো বিক্রি হয়নি একটিও। ক্রেতারা শুধু দাম জিজ্ঞাসা করছেন। ক্রয় করছেন না। অন্য বছরের মতো দাম রয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।

পশুর হাটের ইজারাদার আনিস আলী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, অন্যান্য বছরের চেয়ে এবার হাটে বেচাকেনা কম হচ্ছে। আগামী হাটে বিক্রি বাড়বে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেছেন।

জগন্নাথপুর বাজার ব্যবস্থপনা কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহির আলী জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, হাওরে ফসলডুবি আর দ্ইু দফা বন্যার কারনে পশুর হাটে কিছুটা প্রভাব পড়েছে। শেষ মুর্হুতে ক্রয় বিক্রয় জমজমাট হতে পারে বলে তিনি জানান।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24