বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০১:১১ অপরাহ্ন

জয়নাল আবেদীন কলেজকে সরকারিকরণের দাবীতে উত্তাল তাহিরপুর

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১ আগস্ট, ২০১৫
  • ৪১ Time View

গোলাম সরোয়ার লিটন::তাহিরপুর উপজেলার জয়নাল আবেদীন কলেজ কে সরকারিকরণের দাবীতে উত্তাল তাহিরপুর সদর। এই দাবীতে প্রতিদিনই মিছিল সমাবেশ ও মানববন্ধন করছে উপজেলার হাওরপাড়ের বাসিন্দারা। গত বৃহস্পতিবার থেকে উপজেলা সদরে লাগাতার নানা কর্মসুচী চলছে। কর্মসুচীর সাথে জড়িতরা বলছেন দাবী আদায় না হলে বৃহত্তর কর্মসুচী দেওয়া হবে।
জানা যায়, জেলার অন্যতম বৃহৎ হাওর মাটিয়ানের পূর্ব দক্ষিণ পাড়ে ১৯৯২ সালে উপজেলার প্রথম কলেজ হিসাবে জয়নাল আবেদীন কলেজটি স্থাপিত হয়। ১৯২৪ সালে থানা হিসাবে তাহিরপুর প্রতিষ্টিত হওয়ার দীর্ঘদিন পর এ কলেজটি স্থাপিত হলে হাওরপাড়ের পরিবারের সন্তানদের উচ্চ শিক্ষা লাভের পথ সুগম হয়। প্রতিষ্টার কয়েক বছর পর থেকেই কলেজটিতে ডিগ্রী ও অনার্স কোর্স চালু এবং সরকারিকরণের দাবী জানিয়ে আসছেন হাওরপাড়ের বাসিন্দারা। শিক্ষা ও অর্থনৈতিকভাবে অনগ্রসর হাওরপাড়ের বাসিন্দারা এ জন্য বিভিন্ন সময় উদ্যোগ নিলেও তা ব্যর্থ হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার সিলেট বিভাগের তিনটি কলেজ কে জাতীয়করণের উদ্যোগ সরকারিভাবে নেওয়া হয়েছে বলে হাওরবাসী জানতে পারে। এর মধ্যে তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট কলেজ একটি। উপজেলার দুর্গম ও শিক্ষায় পিছিয়ে পড়া হাওরপাড়ে অবস্থিত জয়নাল আবেদীন কলেজের নাম সরকারিকরণে না দেখতে পেরে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে এলাকাবাসী। প্রতিদিনই চলছে মিটিং, মানববন্ধন ও সমাবেশ। এলাকার বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকদের অংশগ্রহণে অনুষ্টিত এ সকল কর্মসুচীতে তরুণরাই নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন।
এলাকাবাসীর দাবি বাদাঘাট এলাকাটি উপজেলার উঁচু অঞ্চলে অবস্থিত। এখানকার অধিকাংশ অভিভাবকদের আর্থিক স্বচ্ছলতাও বেশি। এবং বাদাঘাট কলেজটি জয়নাল আবেদীন কলেজ প্রতিষ্টার আরও ২ বছর পরে প্রতিষ্টিত হয়। তাই হাওরপাড়ের অনগ্রসর পরিবারের সন্তানদের লেখাপড়ার পথ সুগম রাখতে এবং জয়নাল আবেদীন কলেজটিকে টিকিয়ে রাখতে এ কলেজটিকে প্রথম জাতীয়করণ প্রয়োজন। আর এতে করে দুর্গম ও অনগ্রসর অঞ্চলের প্রতিষ্টানকে সরকারিকরণে সরকারের মহতী উদ্যোগ প্রকৃতপক্ষে সার্থক হবে।
বৃষ্টিভেজা দুপুরে এলাকার ছাত্র যুবক ও বিভিন্ন শ্রেণী পেশার লোকদের অংশগ্রহণে উপজেলা সদর বাজারে দীর্ঘ মানববন্ধন অনুষ্টিত হয়। বিকালে উপজেলা গণমিলনায়তনে জয়নাল আবেদীন কলেজ কে সরকারিকরণের দাবিতে মতবিনিময় সভা অনুষ্টিত হয়। সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্জ্ব আব্দুল জলিল তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্টিত এ সভায় বক্তব্য রাখেন সমাজকর্মী নুরুল আমিন, জয়নাল আবেদীন কলেজের সহকারি অধ্যাপক আলী মর্তুজা, সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন, সমাজকর্মী এমরান হোসেন, উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক হাফিজ উদ্দিন, সমাজকর্মী রন্জু মুখার্জী, আলমগীর খোকন প্রমুখ।

আন্দোলনের সাথে সক্রিয় স্থানীয় যুবক আতিকুর রহমান আতিক বলেন, জয়নাল আবেদীন কলেজটিকে সরকারিকরণের হাওরবাসীর ন্যায্যদাবি প্রতিষ্টায় প্রয়োজনে বৃহত্তর কর্মসুচী নেওয়া হবে।

জয়নাল আবেদীন কলেজ কে সরকারিকরণের দাবীতে সোচ্চার আলী মর্তুজা বলেন, এই দাবীর স্বপক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে এ বছর মে মাসের প্রথম সপ্তাহে একটি আবেদন করেছি। আবেদনে উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের মধ্যে ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ আছেন। রয়েছেন উপজেলা পরিষদের ২জন ভাইস চেয়ারম্যান। এর স্বপক্ষে সুপারিশ হিসাবে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউএনও মহোদয় প্রত্যয়নপত্র দিয়েছেন।

কর্মসুচী স্থগিত

আজ উপজেলা সদর বাজার বণিক সমিতির উদ্যোগে জয়নাল আবেদীন কলেজটিকে সরকারিকরণের দাবীতে পূবর্ ঘোষিত বাজারের দোকানপাট ২ ঘন্টা বন্ধ রাখার কর্মসুচী স্থগিত করা হয়েছে। গতকাল অনুষ্টিত মতবিনিময় সভায় এ সিন্ধান্ত নেওয়া হয়। জানা যায়, মতবিনিময় সভায় উপজেলার ৮ জন নাগরিককে স্থানীয় সাংসদের সঙ্গে পরামর্শ করে পরবর্তী করণীয় সম্পর্কে অবহিত করার সিন্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। এ সিদ্ধান্তের প্রেক্ষিতে ১১ আগস্ট পর্যন্ত সকল কর্মসুচী স্থগিত করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24