বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৫ অপরাহ্ন

নতুন পে-স্কেলে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা খুশি

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৫
  • ৪১ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডেস্ক:: নতুন পে-স্কেলে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অধিকাংশই খুশি। প্রতিবছর নির্দিষ্ট হারে বেতন বৃদ্ধি, নববর্ষ ভাতা চালু ও পেনশন ভাতা বৃদ্ধি করায় তারা সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। পাশাপাশি টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বহালের দাবিও জানিয়েছেন অনেকে। বিশেষ করে যারা ব্লক পদে চাকরি করছেন তারা এ নিয়ে বেজায় নাখোশ।
এদিকে প্রশাসন বিশেষজ্ঞরা নতুন পে-স্কেলকে দেখছেন স্থায়ী পে-কমিশনের বিকল্প উদ্যোগ হিসেবে। তারা বলছেন, এটি স্থায়ী পে-কমিশনের প্রাথমিক ধাপ। এ অবস্থা বহাল থাকলে ভবিষ্যতে ঢাকঢোল পিটিয়ে আর পে-কমিশন গঠন করার প্রয়োজন হবে না। মুদ্রাস্ফীতির সামঞ্জস্য রেখে প্রতিবছর বেতন-ভাতা বাড়ালেই চলবে। এতে করে বাজারে নেতিবাচক প্রভাব ফেলার সুযোগও থাকবে না।
প্রসঙ্গত, সোমবার সরকারি চাকরিজীবীদের বহুল প্রত্যাশিত অষ্টম পে-স্কেল অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। এতে টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বিলুপ্ত করা হলেও নতুন করে চালু হয়েছে বাংলা নববর্ষ ভাতা, যা সর্বমহলে খুবই প্রশংসিত হয়েছে। পাশাপাশি প্রতিবছর নির্দিষ্ট হারে বেতন বাড়ানোর পদ্ধতিও চালু করা হয়েছে। বাড়ানো হয়েছে পেনশন ভাতার পরিমাণও। তাই নতুন পে-স্কেলের এ রকম নানামুখী সুযোগ-সুবিধা দেখে অধিকাংশ চাকরিজীবীই খুশি। তারা এটাকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন।
জানতে চাইলে সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও প্রশাসন বিশেষজ্ঞ আলী ইমাম মজুমদার মঙ্গলবার যুগান্তরকে বলেন, ‘কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সুন্দর একটি পে-স্কেল দেয়ায় আমি সরকারকে স্বাগত জানাই।’ তিনি বলেন, ‘সার্বিকভাবে বিবেচনায় এবারের পে-স্কেল ভালো হয়েছে। তবে ব্লকপোস্টে কর্মরতদের জন্য টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড রাখলে ভালো হতো।’ নতুন পে-স্কেলকে স্থায়ী পে-কমিশনের প্রাথমিক ধাপ উল্লেখ করে এ সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বলেন, ‘বাজারদরের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে প্রতিবছর যদি বেতন বৃদ্ধি পায় তাহলে স্থায়ী পে-কমিশন গঠনের প্রয়োজন নেই। আমার তো মনে হয়, এটিই স্থায়ী পে-কমিশনের প্রাথমিক পদক্ষেপ।’
নতুন পে-কমিশনকে ‘চমৎকার ও নতুন ডাইমেনশন’ আখ্যা দিয়েছেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ও এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান বদিউর রহমান। নতুন পে-স্কেল সার্বিকভাবে ইতিবাচক বলে মন্তব্য করে তিনি যুগান্তরকে বলেন, ‘এবার সরকার প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জন্য যে বেতন কাঠামো অনুমোদন করেছে তা সামগ্রিক অর্থনীতির জন্য পজেটিভ। ২০ গ্রেডের বেতন কাঠামোতে এবার অনেক ব্যতিক্রম দিক রয়েছে। বিশেষ করে অতীতে বিভিন্ন বেতন কাঠামোতে বাঙালি সাংস্কৃতিক আচার-অনুষ্ঠানকে এতো গুরুত্ব দেয়া হয়নি, যা এবার দেয়া হয়েছে। দেশীয় সংস্কৃতি চর্চার জন্য বৈশাখী উৎসব মূল বেতনের শতকরা ২০ ভাগ উৎসাহ ভাতার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এটি খুবই ইতিবাচক।’
নতুন পে-স্কেলকে স্থায়ী পে-কমিশনের প্রাথমিক ধাপ উল্লেখ করে বদিউর রহমান বলেন, এখন থেকে চাকরিজীবীদের আর ইনক্রিমেন্ট নিয়ে হা-হুতাশ করতে হবে না। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে তোষামোদি করতে হবে না। ৫ বছর পর যে পরিমাণ বেতন বাড়ত নতুন পে-স্কেলে তার চেয়ে বেশি বাড়বে। এ পদ্ধতি স্থায়ী পে-কমিশনের আবহ তৈরি করবে। আগামীতে এটি আরও নতুন করে চিন্তা করার সুযোগ তৈরি করে দেবে। ব্লকপোস্টে কর্মরতদের বিকল্প ব্যবস্থা করার তাগিদ দিয়ে এনবিআরের সাবেক এ চেয়ারম্যান বলেন, তাদের উচ্চপদে পরীক্ষা দেয়ার সুযোগ দেয়া যেতে পারে। এ জন্য প্রয়োজনে তাদের বয়স শর্ত শিথিল করা যেতে পারে।
মঙ্গলবার প্রশাসনের প্রাণকেন্দ্র সচিবালয়ে সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, সর্বত্র ছিল উৎসবের আমেজ। অধিকাংশ ভবনের কর্মকর্তাদের দেখা গেছে কোলাকুলি করতে। চোখেমুখে ছিল তৃপ্তির ছাপ। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন অতিরিক্ত সচিব যুগান্তরকে জানান, বেতন বাড়ানোর উদ্যোগ অত্যন্ত ইতিবাচক। সরকারকে অসংখ্য ধন্যবাদ। এতে সরকারি চাকরিজীবীদের কাজের উৎসাহ বাড়বে। সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে আলাদাভাবে আলাপ করে দেখা গেছে, তাদের অধিকাংশই নতুন পে-স্কেলে খুশি। প্রায় অভিন্ন সুরে তারা যুগান্তরকে বলেছেন, সার্বিকভাবে নতুন পে-স্কেল ভালো হয়েছে।
প্রায় একই ধরনের সুর ছিল কর্মচারী নেতাদের মুখেও। বাংলাদেশ চতুর্থ শ্রেণী কর্মচারী সমিতির সভাপতি এমএ খালেক যুগান্তরকে বলেন, নতুন পে-স্কেলে আমরা সার্বিকভাবে খুশি। নতুন কিছু সরকারি সুযোগ-সুবিধা রয়েছে এ জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানাই। তবে টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড নিয়ে আগামী ১১ সেপ্টেম্বর বৈঠক করার পর আনুষ্ঠানিকভাবে সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হবে।
একই ধরনের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন বাংলাদেশ সচিবালয় কর্মকর্তা ও কর্মচারী ঐক্য পরিষদের মহাসচিব মো. রুহুল আমীন। নতুন পে-স্কেল মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেয়ায় তিনিও প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বুধবার বৈঠক করে সিলেকশন গ্রেড ও টাইমস্কেলের বিষয়ে আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানানো হবে। তবে তিনি এও বলেন, টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড অতীতেও ছিল। তাই এটি বাদ দেয়া সঠিক হয়নি। এ নিয়ে কর্মচারী অঙ্গনে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। তিনি জানান, হয়তো বিদ্যমান অবস্থার কারণে আন্দোলন হচ্ছে না। তবে যে কোনো সময় এ ইস্যুতে কর্মসূচি ঘোষণা করা হতে পারে।
বাংলাদেশ সচিবালয় কর্মচারী সংযুক্ত পরিষদের সভাপতি নিজামুল ইসলাম ভূঁইয়া মিলন নতুন বেতন কাঠামোতে নববর্ষ ভাতা চালু ও পেনশন সংক্রান্ত ভাতা বাড়ানোর জন্য প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। এছাড়া নতুন পে-স্কেলের বিষয়ে সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছে জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্ট। ফ্রন্টের প্রধান সমন্বয়কারী অধ্যক্ষ কাজী ফারুক আহমেদ স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রীকে নতুন বেতন কাঠামোর জন্য ধন্যবাদ জানানো হয়। বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবুল বাসার হাওলাদার ও মহাসচিব মো. আবদুস ছালাম খানও সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছেন। নতুন বেতন কাঠামো মন্ত্রিসভায় অনুমোদনের জন্য সরকারকে অভিনন্দন জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়। একইভাবে অভিনন্দন জানিয়েছে বাংলাদেশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্মচারী ফেডারেশন।
তবে টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পুনর্বহালের দাবিও জানিয়েছে একাধিক সংগঠন। বাংলাদেশ সচিবালয় কর্মচারী সংযুক্ত পরিষদের সভাপতি নিজামুল ইসলাম ভূঁইয়া মিলন বলেন, নতুন বেতন কাঠামোতে টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড বিলুপ্ত করায় ৬৫ শতাংশ ব্লকপোস্টধারী চাকরিজীবী চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। তিনি বলেন, ৬ষ্ঠ থেকে ২০তম গ্রেডের চাকরিজীবীদের ৫ শতাংশ হারে বেতন বাড়লেও তা খুবই কম। প্রথম থেকে ৪র্থ গ্রেডের ৩ দশমিক ৭৫ শতাংশ বাড়লেও তারাই বেশি লাভবান হবেন। কারণ তাদের মূল বেতন অনেক বেশি। আইন মন্ত্রণালয়ের লাইব্রেরিয়ান ও সচিবালয় গ্রন্থাগার পেশাজীবী সমিতির সভাপতি এএম হান্নান বলেন, তার মতো ব্লকপদের চাকরিজীবীরা বৈষম্যের শিকার। তাদের জন্য টাইমস্কেল ও সিলেকশন গ্রেড ছিল শেষ ভরসা। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক কর্মচারী বলেন, ‘আমাদের আর কী করার আছে। ক্যাডার কর্মকর্তারা এসব সিদ্ধান্ত নেন। তাদের সুবিধাই সবসময় বেশি থাকে। বেতন সবারই দ্বিগুণ হয়েছে। কিন্তু বৈষম্যও দ্বিগুণের চেয়ে বেশি।’

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24