বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০৬:০০ অপরাহ্ন

পরকালের সাফল্য বয়ে আনবে যে কাজ

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৯ নভেম্বর, ২০১৭
  • ১১ Time View

সাইদুর রহমান : প্রতিটি মুমিন নরনারী সর্বশেষ এবং চূড়ান্ত ও চিরস্থায়ী ঠিকানা বা গন্তব্য স্থল হচ্ছে জান্নাত। আর জান্নাতে হলে জান্নাতে যাওয়ার পাসপোর্ট লাগবে। হাদীস শরীফে বর্ণিত নির্দেশনাবলীই হলো জান্নাতে যাওয়ার পাসপোর্ট। হাদীসে এসেছে, হযরত আবু আইয়ুব (রাঃ) বলেন, এক সফরে জনৈক বেদুঈন রাসুলুল্লাহ এর সামনে এসে দাঁড়াল। সে আরয করল, হে আল্লাহর রাসুল ! অথবা বলেছিল, হে মুহাম্মাদ! আমাকে এমন কিছু বলে দিন যা আমাকে জান্নাতের কাছে নিয়ে যাবে এবং জাহান্নাম থেকে দূরে রাখবে । রাবী বলেন, নবী (সাঃ) থামলেন এবং সাহাবীদের দিকে তাকালেন। পরে তিনি বললেন, তাকে তাওফীক দেওয়া হয়েছে অথবা বললেন, তাঁকে হিদায়াত করা হয়েছে । রাসুলুল্লাহ সা. জিজ্ঞেস করলেন, তুমি কী বললে? রাবী বলেন, সেঁ তার পূনরাবৃত্তি করল । নাবী (সা) বললেন, তুমি আল্লাহর ইবাদত করবে, তাঁর সাথে কাউকে শরীক করবে না, নামায কায়েম করবে, যাকাত দিবে এবং আত্মীয়তার সস্পর্ক বজায় রাখবে, (এবারে) উটনী ছেড়ে দাও । মুসলিম হাদিস ০১২
একই ধরণের আরেকটি ঘটনায় এসেছে,আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণনা করেন যে, এক বেদূঈন রাসুলুল্লাহ . -এর কাছে এসে আরয করল, হে আল্লাহর রাসুল ! আমাকে এমন একটি আমল বাতলে দিন, যা করলে আমি জান্নাতে যেতে পারব । তিনি বললেন, তুমি আল্লাহর ইবাদত করবে, তার সঙ্গে কোন কিছু শরীক করবে না, ফরয নামায কায়েম করবে, নির্ধারিত যাকাত দিবে এবং রামাযানের রোযা পালন করবে । তারপর সে বলল,যার হাতে আমার প্রাণ তাঁর কসম, আমি এর উপর কখনো কিছু বাড়াব না এবং তা থেকে কমও করব না । লোকটি চলে গেলে নাবী (সাঃ) বললেন, কেউ কোন জান্নাতী লোক দেখে খুশি হতে চাইলে, একে দেখুক । মুসলিম হাদীস নং ০১৫

হাদীসে আরো এসেছে, আবু বকর ইবনআবু শায়বা ওআবু কুরায়ব (রহঃ) জাবির (রাঃ) থেকে বর্ণনা করেন ; তিনি বলেন, নূমান ইবন কাওকাল (রাঃ) নাবী (সাঃ) এর খিদমতে হাযির হলেন । তিনি আরয করলেন, হে আল্লাহর রাসুল ! আমাকে অবহিত করুন, যদি আমি ফরয নামায আদায় করি, হারামকে হারাম বলে জানি, হালালকে হালাল জ্ঞান করি, তাহলে আমি কি জান্নাতে প্রবেশ করতে পারব? নবী (সাঃ) . বললেন, হ্যাঁ । মুসলিম হাদিস ০১৬
আরো এসেছে, সালামা ইবন শাবীব (রহঃ) জাবির (রা.) থেকে বর্ণনা করেছন যে, কোনো এক ব্যক্তি রাসুলুল্লাহ . এর খিদমতে আরয করলেন, আমাকে অবহিত করুন, যদি আমি ফরয নামাযসমূহ আদায় করি, রামাযানের রোযা পালন করি, হালালকে হালাল জানি এবং হারামকে হারাম জানি; যদি এর অতিরিক্ত কিছু না করি, তাহলে আমি কি জান্নাতে প্রবেশ করতে পারব? রাসুল বললেন, হ্যাঁ । সে ব্যক্তি বললেন, আল্লাহর কসম ! আমি এর উপর কিছুমাত্র বাড়াব না । মুসলিম হাদিস ০১৮

হাদীস শরীফে আরো এসেছে, ইয়াহইয়াহ ইবন ইয়াহইয়াহ আত তামিমী (রহঃ) ওআবু বকর ইবনআবু শায়বা (রহঃ) আবু আইয়্যুব (রাঃ) থেকে বর্ণনা করেন যে, এক ব্যক্তি নবী (সা.) এর খিদমতে হাযির হলো এবং আরয করল, আমাকে এমন একটি কাজের কথা বলে দিন, যে কাজ আমাকে জান্নাতের কাছে পৌঁছে দেবে এবং জাহান্নাম থেকে দূরে রাখবে । নাবী (সা.) বললেন, তুমি আল্লাহর ইবাদত করবে, তাঁর সাথে কোন কিছু শরীক করবে না, নামায কায়েম করবে, যাকাত দিবে এবং আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখবে। সে ব্যক্তি চলে গেলে রাসুলুল্লাহ বললেন, তাকে যে কাজের নির্দেশ দেয়া হয়েছে তা দৃঢ়তার সাথে পালন করলে জান্নাতে প্রবেশ করবে । মুসলিম হাদিস ০১৪

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24