বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯, ০১:২২ অপরাহ্ন

বাউলা কে বানাইল রে সুরে মাতোয়ারা ম্যানচেষ্টারে প্রথম বাউল উৎসব

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৫ জানুয়ারী, ২০১৬
  • ৪৪ Time View

আমিনুল হক ওয়েছ:: ‘বাউলা কে বানাইলো-রে’ ম্যনচেষ্টারে তথা নর্থওয়েষ্ট ইংল্যান্ডে এই প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো বাঙালির প্রাণের বাউল উৎসব। ‘চেতনা ইউকে, ম্যানচেষ্টার’ আয়োজীত এ উৎসবে নর্থ ওয়েষ্ট ইংল্যান্ডের বিভিন্ন বাউল শিল্পী অংশগ্রহন করেন। বৃষ্ঠি-ভেজা দিনকে উপেক্ষা করেও এতে যোগ দেন পরিবার পরিজন নিয়ে অনেক অনেক মানুষ।

গত ৩রা জানুয়ারী রবিবার ম্যানচেষ্টারের সায়রো-মালাবার কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত এ উৎসবটি ছিলো তিন পর্বে বিভক্ত। দুপুর ১ ঘঠিকা থেকে শুরু হওয়া এ উৎসবের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশী বংশদ্ভোত ম্যানচেষ্টার সিটি কাউন্সিলের কাউন্সিলার লুৎফুর রহমান। বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতের মধ্যি দিয়ে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন চেতনার সভাপতি সৈয়দ মাহমুদুর রহমান।

দ্বিতীয় পর্বে ছিলো চেতনার সাধারন সম্পাদক সাংবাদিক-কলামিস্ট ফারুক যোশীর ‘ম্যানচেষ্টারে বাউলা কে বানাইলো-রে ’ নিবন্ধের উপর আলোকপাত।এতে আলোচনায় অংশ নেন কবি ও লেখক নুরুজ্জামান মনি ও ডাঃ নজরুল ইসলাম। উদ্বোধনী পর্ব পরিচালনায় ছিলেন সাংস্কৃতিক কর্মী আমিনুল হক ওয়েছ।

অনুষ্ঠানের তৃতীয় পর্বে ছিলো বাউল গানের আসর। হাছন রাজার ‘বাউলা কে বানাইলো-রে’ গান দিয়ে শুরু হয় মুল গানের অনুষ্ঠান। অনামিকা সাংস্কৃতিক গুষ্ঠি, এলসিবি, সুরসাগর তিনটি সংগঠনের মীর আবুল কাশেম বাদল, আকিদ চৌধুরী, ফেরদৌসী হক লিপি,নাজমা ইয়াসমিন, মীর গোলাম মোস্তফা, মরিয়ম ইসলাম, লাভলি ভ’ইয়া, রাজ্জাক, জিল্লুর রহমান, রাহেল, সৈয়দ মাহমুদুর রহমান প্রমূখ শিল্পীবৃন্দ এতে বাউল গান পরিবেশন করেন । এছাড়া ছিলো বাউল শিল্পী ছখন উল্লাহ’র বেহালার সাথে বাঊলিয়া গান। লিডস শহর থেকে উৎসবে অংশ নেয়া লুৎফুর রহমানের বাশির সূর এ অনুষ্ঠানকে দিয়েছে ভিন্ন এক মুর্ছনা। ম্যানচেষ্টারে বসবাসরত কলকাতার শিল্পী সঞ্চারীর গাওয়া ‘খাঁচার ভেতর অচিন পাখি কেমনে আসে যায়’ গানটি ম্যানচেষ্টারের মানুষ শুনেছে যেন কন্ঠশিল্পী ফরিদা পারভীনের কন্ঠে। ভজন গেয়েছেন সঞ্চারী— ভিন্ন এক আমেজে পিনপতন নীরবতায়। অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষন ছিলো রাধারমনের গানের সাথে ধামাইল নৃত্য। বিপুল সংখ্যক নারী-পুরুষ এই নৃত্যে অংশগ্রহন করেন।

অনুষ্ঠানের ফাঁকে ফাঁকে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের মাসুদুল হক বাবলা, আব্দুল নাসের ওয়াহাব, নাসির খান সোয়েব, মিজানুর রহমান মিজান, সুরাবুর রহমান, গণি চৌধুরী, অপু চৌধুরী,জাভেদ ইকবাল মজুমদার,তাবেদার রসুল বকুল প্রমূখ নেতৃবৃন্দ সংক্ষিপ্ত অলোচনায় অংশ নেন।

বিকেল ৭ টায় শেষ হয় বাউল উৎসব। এ অনুষ্ঠানটির সার্বিক সহযোগীতায় ছিলেন আলমগীর চৌধুরী, মুতাহির বিল্লাহ চৌধুরী জুয়েল, ফয়জুল হক জুয়েল,রুহুল আমীন চৌধুরী মামুন, ডি এন কোরেশী, সালেহ আহমদ,জাহাঙ্গির আলম, রেহানা বেগম, সালেহা চৌধুরী প্রমূখ। উৎসবটিতে স্পন্সর করে সহযোগীতা করেছে রয় এন্ড কো:, জে এম জি কার্গো, জারা ফ্যাশন, এম এস এফ ইজি সলিউশন, এক্লিপস ও প্রাইম এক্সপ্রেস।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24