মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১০:৩১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে পঞ্চাশ ঊর্ধ্ব ব্যক্তির বয়স ২৪ বছর! এ অভিযোগে মনোনয়ন বাতিল, গেলেন আপিলে জগন্নাথপুরে নদীর পাড় কেটে মাটি উত্তোলনের দায়ে দুই ব্যক্তির কারাদণ্ড জগন্নাথপুর বাজার সিসি ক্যামেরায় আওতায় আনতে এসআই আফসারের প্রচারণা জগন্নাথপুরে নিরাপদ সড়ক ও যানজটমুক্ত রাখতে প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুর উপজেলা ক্রিকেট এসোসিয়েসনের নতুন কমিটি গঠন মিরপুরে আ.লীগ প্রার্থী আব্দুল কাদিরের সমর্থনে কর্মীসভা অনুষ্ঠিত ফেসবুকে ক্ষমা চেয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক রাব্বানী প্রায়ই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকেন শিক্ষক জগন্নাথপুরে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার, থানায় জিডি সংস্কারের দাবীতে জগন্নাথপুর-বিশ্বনাথ সড়কে মঙ্গলবার থেকে আবারও অনিদিষ্টকালের জন্য পরিবহন ধর্মঘট

মাদকের করাল গ্রাস ধ্বংস করে দিচ্ছে সম্ভাবনাময় তরুণদের

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৩০ জুন, ২০১৫
  • ১৫৭ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম:: ‘লন্ডন প্রবাসী বড় খালা আমার মা কে কথা দিয়েছিলেন আমি যখন বড় হব তখন তার মেয়েকে আমার সাথে বিয়ে দিয়ে আমাকে লন্ডন নিবেন। আমার বুঝে উঠার বয়স থেকে স্বপ্ন দেখি খালাত্বো বোন অপিকে বিয়ে করে লন্ডন যাব। (অপি ছদ্ম নাম) এসএসসি পাস করে কলেজে ভর্তি হওয়ার পর পড়ালেখা আর এগুয়নি। যেহেতু স্বপ্নের দেশ লন্ডনে যাব তাই জীবন নিয়ে খুব একটা ভাবিনি। ২০০৬ সালে খালা যখন তার মেয়েকে নিয়ে স্বপরিবারে দেশে এলেন তখন আমার মা বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেলে এতে বাধা দেয় অপি। ছোটবেলা থেকে লন্ডনের পরিবেশে বড় হয়ে উঠা অপি আমাকে বিয়ে করতে চায় না। খালা বাধ্য হয়ে তার কথা থেকে সরে আসেন। খালা ফিরে যান সবাইকে নিয়ে আবারও লন্ডনে আর আমার জীবনে নেমে আসে চরম হতাশা। নেশাগ্রস্থ বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে বিড়ি সিগারেট সর্বশেষ হেরোইনে আসক্ত হয়ে পড়ি। জীবনের বর্ণিল সবকিছু হারিয়ে এলোমেলো হয়ে পড়ি। মাদকাসক্ত জীবনের করুণ কাহিনীর কথা বলছিলেন জগন্নাথপুর উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের পাটলী গ্রামের যুবক সবুজ(ছদ্মনাম)। লন্ডন প্রবাসী অধ্যুষিত জগন্নাথপুর উপজেলায় এরকম অসংখ্য সবুজ রয়েছেন যারা লন্ডন যেতে না পেরে বর্ণিল জীবনকে মাদকের গ্রাসে শেষ করে দিয়েছেন। তেমনি আরেক যুবক চাচাত্বো বোন সুমিকে কে বিয়ে করে লন্ডন যাওয়ার কথা। চাচার পাঠানো অর্থে বিলাসী জীবন যাপন। অভাব অনটন বুঝতে হয়নি কোনদিন কিন্তুু বিয়েতে বাধা হয়ে দাঁড়ায় সুমি। জোর করে বিয়েও দেয়া হয়। ক’দিন অভিনয়ের সংসার। তারপর লন্ডন গিয়ে ডির্ভোস পাঠায় আমার আর লন্ডন যাওয়া হয়নি। হতাশার জীবনে হাজির হয় নেশাগ্রস্থ বন্ধু। তাদের হাতে হাত মিলিয়ে প্রথমে গাঁজা তারপর হেরোইন। সর্বশেষ হেরোইনের টাকার জন্য চুরি। ভাবলে নিজের জীবন নিজে শেষ করে দিতে ইচ্ছে করে । নিজের কৃতকর্মের জন্য লজ্জা পাই। পরে অবশ্য পরিবারের সহায়তায় সিলেট মাদকাসক্ত নিমূল কেন্দ্রে দুই মাস চিকিৎসার পর সুস্থ হই। কিন্তুু আজো পুরোপুরি মাদক থেকে রেহাই পাইনি। সেই দিনগুলোর কথা মনে হলে কান্নায় বুক ভেঙ্গে যায়। বিয়ে করে এখন সংসারি হয়েছি। কিন্তুু লন্ডনের আশায় অনেক পিছিয়ে গেছি। সেই ভূলের মাশুল আজো দিতে হচ্ছে। সিলেট শহরের উপ শহরে অবস্থিত একটি মাদকাসক্ত নিমূল কেন্দ্রের কর্ণধার সুহেল বলেন, জগন্নাথপুরসহ প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকাগুলোর অধিকাংশ তরুন ও যুবক বিদেশমূখী প্রবণতায় ব্যর্থ হয়ে মাদকাসক্ত হয়েছে। তন্মেধ্যে প্রেমে ব্যর্থ ও লন্ডন যেতে না পেরে অনেকেই হতাশা থেকে মাদকে ঝুঁকেছেন বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন। তাঁরমতে মাদকাসক্ত সন্তানদেরকে অবহেলা অনাদর না করে ভালোবাসা ও চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তুলতে হবে। জগন্নাথপুর উপজেলা সদরের একজন রাজনৈতিক কর্মী। এক সময় মিছিল মিটিং ও বন্ধুদের আড্ডা ও সাংষ্কৃতিক অঙ্গনে সরব উপস্থিতি ছিল। মাদকাসক্ত হয়ে সে এখন একাকী হয়ে গেছে। কোন কিছুতেই তার উপস্থিতি পাওয়া যায় না। নিজেকে গুটিয়ে নেয়া এসব সম্ভাবনাময় তরুণ ক্রমশ সমাজ থেকে হারিয়ে যাচ্ছে। মাদকের বিরুদ্ধে সচেতনামূলক কাজ করা এনামুল হক বলেন, মাদকের সহজলভ্যতা আমাদের যুব সমাজকে আরো ধ্বংস করে দিচ্ছে। এজন্য প্রশাসনকে কঠোর হতে হবে। জগন্নাথপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি তদন্ত খান মোহাম্মদ মাইনুল জাকির বলেন, মাদক বিষয়ক বিভিন্ন মামলা অনুসন্ধকালে দেখেছি প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকাগুলোতে বিদেশমূখী প্রবণতার ব্যর্থতা থেকে হতাশায় অনেকে মাদকাসক্ত হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে শুধু আইনি নয় সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24