সোমবার, ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৫:০৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
’সরকারি চাকরিতে ৩ লাখ ১৩ হাজার পদ শূন্য’ জগন্নাথপুরের মিরপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সম্মেলন আজ জগন্নাথপুরের লহরী গ্রামে শীতবস্ত্র বিতরণ আদালতের আদেশে জগন্নাথপুরের বিএন উচ্চ বিদ্যালয়ের শতবর্ষ উৎসব আবারো স্থগিত মিরপুরে বর্নিল সাজে দুইদিন ব্যাপি প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান সম্পন্ন মৌলভীবাজারে স্ত্রী-মাসহ ৪ জনকে হত্যার পর আত্মহত্যা জগন্নাথপুরে ইউনিয়ন আ,লীগের সম্মেলন সফল করার লক্ষে প্রস্তুতিসভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ডাক্তার-নার্সের অবহেলায় শিশুর মৃত্যুের অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন মুঠোফোনে প্রেমের ফাঁদে ফেলে কিশোরগঞ্জের তরুণী কে জগন্নাথপুর এনে ধর্ষণ নান্দনিক আয়োজনে ঐতিহ্যবাহি মিরপুরের উচ্চ বিদ্যালয়ে সাবেক শিক্ষার্থীদের মিলনমেলায় বাঁধাভাঙা উচ্ছ্বাস

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের চিকিৎসার সহায়তা চেয়ে প্রধানমন্ত্রীর নিকট এক অসহায় মায়ের আকুতি

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ১৪ মে, ২০১৭
  • ৩৯ Time View

স্টাফ রিপোর্টার :: অসহায় মুক্তিযোদ্ধার ছেলের চিকিৎসার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চেয়েছেন এক মা। চোখের সামনে সন্তানে কষ্ট যন্ত্রনা আর বাচাাঁর আকুতি কি করে একজন মা সহ্য করবেন। তাইতো আর কোন উপায় না পেয়ে সোনার বাংলার স্বপ্ন¯্রষ্টা শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা দেশরত্ম প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা চেয়েছেন সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌরএলাকার প্রয়াত এক মুক্তিযোদ্ধার অসহায় স্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর বরাবর আবেদন পত্রে উল্লেখ করা হয়, পৌরশহরের ইকড়ছই আবাসিক এলাকার মুক্তিযোদ্ধা আবদুর রব’র জৈষ্ঠ্য পুত্র শাহ কামাল হোসেন (৩২) অনেকদিন ধরে জটিল রোগে আক্রান্ত। ডাক্তারা বলেছেন, তার হার্টে চিদ্র হয়েছে। জরুরি ভিত্তিত্বে অপারেশন করাতে হবে। এজন্য সাড়ে তিন লাখ টাকার প্রয়োজন। এত টাকা তার পরিবারের লোকজনের পক্ষে সংগ্রহ করা কঠিন হয়ে উঠেছে। অনেক চেষ্টা করেও টাকা যোগার করা সম্ভব হচ্ছে না। কোন উপায় না পেয়ে অবশেষে প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার সহাতায় চেয়ে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী হুছনারা বেগম তার সন্তানের অপারেশনের টাকার জন্য আবেদন করেছেন।

মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী হুছনারা বেগম জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম কে জানান, প্রায় ২১ বছর আগে স্বামীকে হারিয়ে ৪ সন্তান নিয়ে অনেক কষ্টে সংসার পরিচালনা করে আসছি। হঠাৎ করে বড় ছেলে কঠিন রোগে আক্রান্ত হয় পড়ে। ডাক্তার বলেছেন, জরুরী ভিত্তিত্বে অপারেশন প্রয়োজন। তা না হলে তাকে বাঁচানো যাবে না। অপারেশন বাবত সাড়ে ৩ লাখ টাকা লাগবে। এত টাকা সংগ্রহ আমার পক্ষে কোন ভাবে সম্ভব নয়। তাই গরিবের বন্ধু জনদরদি আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যদি আমার সন্তানের চিকিৎসার ব্যবস্থায় পদক্ষেপ গ্রহন করলে আল্ল্হা পাকের করুনায় সুস্থ হয়ে উঠবে আমার ছেলে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর দিকেই তাকিয়ে আছি।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24