বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৬:৫৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরসহ সুনামগঞ্জ জেলার সবকটি উপজেলায় আওয়ামীলীগের সন্মেলনের উদ্যাগ নবীগঞ্জে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু জগন্নাথপুর-বিশ্বনাথ সড়কে পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার জগন্নাথপুর উপজেলা ক্রিকেট এসোসিয়েশনের নতুন কমিটি গঠন ২০০০ উইরো ফেরত দিয়ে প্রশংসিত বাংলাদেশি তরুণ জগন্নাথপুর-বিশ্বনাথ সড়কে পরিবহন ধর্মঘট চলছে জগন্নাথপুরে পঞ্চাশ ঊর্ধ্ব ব্যক্তির বয়স ২৪ বছর! এ অভিযোগে মনোনয়ন বাতিল, গেলেন আপিলে জগন্নাথপুরে নদীর পাড় কেটে মাটি উত্তোলনের দায়ে দুই ব্যক্তির কারাদণ্ড জগন্নাথপুর বাজার সিসি ক্যামেরায় আওতায় আনতে এসআই আফসারের প্রচারণা জগন্নাথপুরে নিরাপদ সড়ক ও যানজটমুক্ত রাখতে প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

যুক্তরাজ্য বিএনপির সম্মেলনে : যাদের নিয়ে গুঞ্জন

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৭
  • ৫৭ Time View

আমিনুল হক ওয়েছ : যুক্তরাজ্য বিএনপির সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে নেতাকর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা। এবারের কমিটিতে নতুন কোন চমক থাকবে কিনা এ নিয়ে দলীয় নেতা কর্মীদের মাঝে শুরু হয়েছে ব্যাপক আলোচনা,বাঙ্গালী অধ্যুষিত ব্রিকলেন ও হোয়াইটচাপলের চায়ের দোকানে বসে আড্ডা এবং প্রাইভেট পার্টি সহ যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহরে নেতাকর্মীদের মধ্যে আলোচনা চলছে বেশ জোরে শোরে কে হচ্ছেন আগামী দিনে যুক্তরাজ্য বিএনপির কান্ডারী।

বিগত ২০১৫ সালের ১৯ মে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি হিসেবে এম এ মালেক এবং দ্বিতীয়বারের মত সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন কয়ছর এম আহমদ। ২ বছর মেয়াদী ১০১ সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটির পূর্ণাঙ্গ কমিটি নাম ঘোষণা করা হয় একই বছরের ১৬ জুলাই।
এর আগের কমিটি ২০১৩ সালে গঠন করা হয় শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুছকে সভাপতি করে। এর ঠিক দুই বছর পর নতুন কমিটি গঠন করা হয়। একই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেই ২ ই জানুয়ারি যুক্তরাজ্য বিএনপির নতুন কমিটি গঠন হতে যাচ্ছে । তবে ২০১৩ সালে কমিটি গঠনের পূর্বে লন্ডনের প্লামট্রি রেস্টুরেন্ট টানা ৯ ঘন্টা নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় করেন যুক্তরাজ্যে অবস্থানকারী বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান। পরে শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুছকে সভাপতি ও কয়ছর এম আহমদকে সাধারণ সম্পাদক করে নতুন কমিটি ঘোষণা করা হয়। সে সময় আহবায়ক কমিটি থেকে বাদ পড়া এম এ মালেককে করা হয় প্রধান উপদেষ্টা।

পরবর্তীতে ২০১৫ সালে ব্রিকলেইনের সোনারগাঁও রেস্টুরেন্টে আবারো দিনব্যাপী যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন জোনাল কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় করেন তারেক রহমান। এর কিছুদিন পর এম এ মালেককে সভাপতি ও কয়ছর এম আহমদকে সাধারণ সম্পাদক করে কমিটি ঘোষনা করা হয়। তবে এই কমিটিতে একটু ভিন্নতা ছিল, এক নেতার এক পদ। ফলে কমিটিতে স্থান পাওয়া অনেকে নেতাকেই বিভিন্ন জোনাল কমিটির পদ ছাড়তে হয়। যার ফলশ্রুতিতে বাংলাদেশেও বিএনপি এই নতুন ধারা সংযোজন করে। বর্তমানে বাংলাদেশেও বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা বিভিন্ন জেলা উপজেলা কমিটি থেকে পদত্যাগ করে নতুনদের রাজনীতিতে সুযোগ করে দিয়েছেন।

যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতাকর্মীরা মনে করেন তারেক রহমান বগুড়া জেলায় তৃণমূল থেকে জেলা পর্যায়ে যেভাবে গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে নেতা নির্বাচনের যে উদাহরন সৃষ্টি করেছিলেন সেই একই পদ্ধতিতে যুক্তরাজ্যেও যদি নেতা নির্বাচন করেন তাহলে সমগ্র দেশে বিএনপি তা অনুসরণ করবে। যেহেতু এক নেতার এক পদ বর্তমানে সমগ্র দেশে বিএনপি অনুসরন করছে, ঠিক তেমনি আবারো যুক্তরাজ্য বিএনপিকে অনুসরন করা হবে ।

সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২ই জানুয়ারি যুক্তরাজ্য বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে । বেগম খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যে অবস্থান করায় এবারের সম্মেলন কিছু টা বিলম্ব হয়েছে।

অনেক নেতাকর্মী মনে করেন বেগম খালেদা জিয়ার ভিশন ২০৩০ এ যে নিদের্শনা রয়েছে তাতে নেতাকর্মীদের মধ্যে নতুন করে আশার সঞ্চার হয়েছে। এই ভিশনকে কাজে লাগিয়ে বিএনপি আবারো ক্ষমতায় আসবে। সেই ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্য বিএনপির কমিটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। যেহেতু ২০০৮ সাল থেকে চিকিৎসার জন্য বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন যেক্ষেত্রে যুক্তরাজ্য বিএনপির কার্যক্রমকে বহি:বিশ্বের বিএনপি ও বাংলাদেশের বিএনপির নেতাকর্মীরা অনুসরন করেন।

আন্তর্জাতিক লবিংয়ের জন্য ব্রিটেনই হচ্ছে উপযুক্ত জায়গা। এখান থেকে বিশ্বের যেকোন দেশের কুটনীতিকদের সাথে যোগাযোগ এবং লবিং করতে পারে এখানকার বিএনপি। যদি কমিটিতে সেই রকম যোগ্য লোককে যথাস্থানে বসানো হয়।
বিএনপি সমর্থকরা মনে করেন যুক্তরাজ্য বিএনপিতে অভিজ্ঞদের স্থান দেওয়া উচিত। কারন এখানে প্রতিনিয়ত বিদেশী মানবাধিকার সংস্থা, মিডিয়া, বিদেশী রাস্ট্র সমূহের প্রতিনিধি, আন্তর্জাতিক লবিং এবং আন্তর্জাতিক সভা সেমিনারে বিএনপির নেতাকর্মীদের গুম, হত্যা, নির্যাতন, মিথ্যা মামলাসহ, দেশের গণতান্ত্র, মানবাধিকার লংঘনের চিত্র তুলে ধরতে হয়। তাই এখানে যোগ্যদের বিকল্পনেই।
কেউ কেউ মনে করেন আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে যদি কমিটি গঠন করা হয় তাহলে স্বচ্ছ পরিচ্ছন্ন নেতাকর্মীদের স্থান দেয়া উচিত । আর আন্দোলন সংগ্রামের জন্য যদি কমিটি গঠন করা হয় তাহলে হয়ত কমিটি গতানুগতিকই হবে।

বিভিন্ন স্থরের নেতাকর্মীদের সাথে আলাপ করে জানাগেছে, তাদের ধারনা নতুন কমিটিতে তেমন কোন পরিবর্তন হবে না। তবে অনেক ক্ষেত্রেই নির্ভর করে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান আগামীর দেশ নায়ক জনাব তারেক রহমানের উপর ।নেতাকর্মীদে অনেকের মতেই বর্তমান কমিটি শত ভাগ সফল। সভাপতি পদে এম এ মালেক ও সাধারণ সম্পাদক পদে কয়ছর এম আহমেদ কে রেখে কমিটির অন্যান্য পদে সংযোজন ও বিয়োজন হতে পারে । নেতাকর্মীদের মতে বর্তমান সভাপতি এম এ মালেক ও সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমেদ এর বিকল্প নেই ,তাদের নেতৃত্বে হাসিনা বিরোধী আন্দোলন সংগ্রামে সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন।

এদিকে সভাপতি হিসেবে বর্তমান সভাপতি এম এ মালেক এর সাথে যারা আলোচনায় রয়েছেন তারা হচ্ছেন, বর্তমান প্রধান উপদেষ্টা শায়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুছ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এ সালাম, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক তপন চৌধুরী, সহ সভাপতি এম লুতফুর রহমান, যুক্তরাজ্য যুবদলের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান ।
আর সাধারণ সম্পাদক হিসেবে রয়েছেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমদ, যুক্তরাজ্য যুবদলের সাবেক সভাপতি নাসিম আহমদ চৌধুরী, যুক্তরাজ্য যুবদলের সাবেক আহবায়ক দেওয়ান মোকাদ্দেম চৌধুরী নিয়াজ এর নাম ।

উল্লেখ্য বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্দেশক্রমে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালিক ও সাধারণ সম্পাদক কয়ছর এম আহমেদ আগামী ২রা জানুয়ারি রোজ মঙ্গলবার ২০১৮ ইং তারিখে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপি যুক্তরাজ্যের কাউন্সিল ২০১৮ অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষণা করেছেন। আজ যুক্তরাজ্য বিএনপির সহ-দপ্তর সম্পাদক সেলিম আহমেদ স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। কাউন্সিলের নির্ধারিত স্থান ও সময় যুক্তরাজ্য বিএনপির দপ্তর থেকে জানার জন

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24