রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুরে নৌপথে বেপরোয়া ‘চাঁদাবাজি’,চাঁদা না দিলে শ্রমিকদের মারধর করে লুটে নেয় মালামাল মিরপুরের সেই প্রার্থী আপিলে ফিরলেন নির্বাচনী লড়াইয়ে মিরপুর ইউপি নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করলেন দুইজন, কাল প্রতিক বরাদ্দ পড়াশোনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নামাজ শেখানো হয় যে বিদ্যালয়ে পানির নিচে প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিতে গিয়ে মৃত্যু! সিলেটে চারদিনের রিমান্ডে পিযুষ যুক্তরাষ্ট্রে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ২ জগন্নাথপুরে ৩৯টি মন্ডপে দুর্গাপূজার প্রস্তুতি,চলছে প্রতিমা তৈরীর কাজ জগন্নাথপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কমিটির বিরুদ্ধে অপপ্রচারে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুরে ৬ মাসেও বকেয়া টাকা মিলেনি, ঋণের চাপে দিশেহারা পিআইসিরা

শিক্ষক সংকটেও এগিয়ে চলেছে জগনèাথপুর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ৬ জুলাই, ২০১৭
  • ৫৪ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: হাওর বাওর বেষ্টিত সুনামগঞ্জ জেলায় জগনèাথপুর একটি ঐতিহ্যবাহী উপজেলা। মরমী কবি ও বাউল সাধক রাধারমন দত্তের জন্মভূমি প্রবাসী অধ্যুসিত এই উপজেলায় ১৫৫টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণের বেতন কাঠামো দুর্বল থাকায়, প্রবাসে যাওয়ার অধিক আগ্রহ, শিক্ষাগত যোগ্যতার ঘাটতি এবং চাকুরীতে নারীদের আগ্রহ না থাকায় এ উপজেলায় স্থানীয় লোকজন খুব কমই শিক্ষকতা করতেন। ফলে দুর দুরান্তর থেকে শিক্ষিত বেকার লোকজন এসে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে চাকুরী নেন। বর্তমানেও এ সংখ্যা প্রায় শতকরা ২৫-৩০ ভাগ। নিজ দায়িত¦ পালনের পাশাপাশি সুযোগ সুবিধামত কেহ দীর্ঘদিনে নিজ জেলা ও উপজেলায় বদলী হয়ে চলে গিয়েছেন, কেহ এ উপজেলাতেই অবসরে গিয়েছেন। এছাড়া মামলা মোকদ্দমার কারণে দীর্ঘদিন নিয়োগ বন্ধ থাকায় এ উপজেলায় শূন্য পদের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ ৭০টি এবং সহকারি শিক্ষকের শূন্য পদ প্রায় ১৭০টি। এ উপজেলায় বর্তমানে শিশু ভর্তির হার শতকার ৯৯.৪৮ ভাগ। ঝড়ে পড়ার হার শতকরা ১৬ ভাগ। সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসারের পদ ৮টি, কর্মরত মাত্র ৩ জন। দীর্ঘদিন ১ জন সহকারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার কর্মরত ছিলেন। লোকবলের নাজুক পরিস্থিতি থাকা সত্তে¦ও উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ জয়নাল আবেদীন এর নের্তৃতে¦ এগিয়ে চলেছে প্রাথমিক শিক্ষা। তিনি ১০/০৩/২০১৫ তারিখে এ উপজেলায় যোগদানের পর প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার ফলাফল ভাল হয়েছে। পূর্বে জিপিএ ৫.০০ পেত ২০-২৫ জন বর্তমানে তা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে শতাধিক। হোম ভিজিট, উঠান বৈঠক, মা সমাবেশ ও অভিভাবক সমাবেশ করে স্থানীয় জনগণকে উদ্বুদ্ধ করা হয়। বিশেষ করে প্রবাসীগণের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে স্থানীয় ভাবে প্যারা শিক্ষক নিয়োগ করে শূন্য পদের কিছুটা হলে ঘাটতি পূরণ সম্ভব হচ্ছে। প্রবাসীগণকে উদ্বুদ্ধ করে অনেক বিদ্যালয়ে সীমনা প্রাচীর, শহীদ মিনার ও অতিরিক্ত শ্রেণিকক্ষও নির্মিত হয়েছে। প্রবাসীগণ উদ্বুদ্ধ হয়ে কোন কোন স্কুলে পোষাক, খেলাধূলার সরঞ্জাম ইত্যাদি দিয়েছেন। ৫ম শ্রেণীর ছাত্র/ছাত্রীদের অধ্যায় শেষে পরীক্ষা, পাক্ষিক পরীক্ষা ও স্থানীয় উদ্যোগে বিদ্যালয় ভিত্তিক পরীক্ষা, মডেল টেস্ট ইত্যাদির মাধ্যমে এগিয়ে নেয়া হচ্ছে। উপজেলা পষিদের সাথে নিবিড়ভাবে যোগাযোগ করে জনাব জয়নাল আবেদীন উপজেলা শিক্ষা অফিসার এ পর্যন্ত ২৫ লক্ষ টাকায় ৫টি মাল্টিমিডিয়া স্কুল চালু করেছেন। এতে শিক্ষার্থীগণের মধ্যে অভূতপূর্ব সারা জেগেছে। উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় ১৩৪টি বিদ্যালয়ে দেয়া হয়েছে নিরাপদ পানির ফিল্টার। তাছাড়া বিভিনè স্কুলে দেয়া হয়েছে পোষাক, নেইলকাটার, টুথপেষ্ট, ব্রাশ, স্কুল ব্যাগ ও টিফিন বক্স এতে ছাত্র-ছাত্রীদের উপস্থিতি বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ধরনের কর্মসূচী ইতি পূর্বে এ উপজেলায় চালু ছিল না।
উপজেলা নির্বাহী অফিসা মুহাম্মদ মাসুম বিল্লাহ প্রত্যক্ষ পরামর্শে ১২০টি স্কুলে মিড-ডে মিল চালু হয়েছে। শিক্ষক/শিক্ষিকাগণের মান উনèয়নের জন্য নেয়া হচ্ছে বিভিনè ইনোভেটিভ কর্মসূচী যেমন- উপজেলা পরিষদের তত্ত¦াবধানে আইসিটি প্রশিক্ষণ। তাছাড়া উপজেলা শিক্ষা অফিসারের নেতৃতে¦ নিয়মিত চাহিদা ভিত্তিক সাব-ক্লাস্টার প্রশিক্ষণের পাশাপাশি গণিত ও ইংরেজি বিষয়ে প্রশèপত্র তৈরির প্রতিযোগিতা, ল্যাপটপ ব্যবহারের মাধ্যমে কন্টেন তৈরির প্রতিযোগিতা, ইংরেজি বিতর্ক প্রতিযোগিতা ইত্যাদি বর্তমান কর্মসূচী সমূহ অব্যাহত থাকলে জগনèাথপুর উপজেলায় প্রাথমিক শিক্ষার গুনগত মান উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাবে বলে সর্বমহলের ধারণা।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24