সোমবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৯, ০১:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
কাশ্মীরে প্রতিবাদের ঝড় বইছে, পাথরই হাতিয়ার, নিহত ট্রাক চালক ছাত্রলীগের দু’পক্ষে সংঘর্ষ,গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ ফারুক হত্যা মামলায় এক রোহিঙ্গা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত জগন্নাথপুরে বিদ্যালয় সমূহে পরিচ্ছিন্ন রাখতে ডাষ্টবিন বিতরণ শুরু জগন্নাথপুরে কমিউনিটি পুলিশিং সভায় পুলিশ সুপার- সুনামগঞ্জের শান্তি শৃঙ্খলা নিশ্চিতে কাজ করতে চাই বিশ্বনাথে পাইপগানসহ গ্রেফতার-১ মাহী বি চৌধুরীকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ ভিডিও কেলেঙ্কারি : জামালপুরে নতুন ডিসি নিয়োগের প্রজ্ঞাপন জগন্নাথপুরে সৈয়দপুর গ্রামবাসীর উদ্যোগে সভা অনুষ্ঠিত সুনামগঞ্জ প্রেসক্লাবের নির্বাচন সম্পন্ন:সভাপতি পঙ্কজ দে,সেক্রেটারী মহিম

শেখ হাসিনাই বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব

Reporter Name
  • Update Time : শনিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৭
  • ৩০ Time View

স্টাফ রিপোর্টার:: শেখ হাসিনাই বাংলাদেশে সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। জনপ্রিয়তায় তার আশপাশে কেউ নেই। দেশের ৭২ ভাগ মানুষ মনে করেন, শেখ হাসিনাই বাংলাদেশের যোগ্যতম নেতা। সর্বশেষ ‘ইন্টারন্যাশনাল পলিটিক্যাল রিসার্চ সেন্টার’ (আইপিআরসি) এর জরিপে এই তথ্য উঠে এসেছে। জার্মান ভিত্তিক এই সংগঠনটি রাজনীতিতে মানুষের অংশগ্রহণ এবং ভূমিকা বৃদ্ধির জন্য গবেষণা করে।

আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে ইউরোপীয় ইউনিয়নের জন্য তারা চলতি বছরের প্রথম দিক থেকে দেশব্যাপী এই জরিপ শুরু করে বলে জানা গেছে। অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের রূপকল্প নির্ধারণের জন্যই এই জরিপ করা হয়। ব্যক্তিগত জনপ্রিয়তা ছাড়াও দলীয় জনপ্রিয়তা সম্পর্কেও জরিপে প্রশ্ন ছিল। দেশের বিভিন্ন স্থানে চার হাজার মানুষের ওপর এই জরিপ চালানো হয়। জরিপে ৫২ ভাগ পুরুষ এবং ৪৮ ভাগ নারী অংশগ্রহণ করেন।

জরিপে প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, ব্যক্তিগত পর্যায়ে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাজনীতিবিদ হলেন শেখ হাসিনা। ৭২ ভাগ মানুষ শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রতি আস্থাশীল। ২৩ ভাগ মানুষ বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি আস্থাশীল আর এরশাদের প্রতি আস্থাশীল মাত্র ৩ ভাগ। ২ ভাগ মানুষ জানিয়েছেন, তারা কারও প্রতিই আস্থাশীল নন।

জরিপে ৮১ ভাগ উত্তরদাতা বলেছেন, তারা বিশ্বাস করেন শেখ হাসিনা সৎ। ৭৩ ভাগ উত্তর দাতা বলেছেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বেই বাংলাদেশে সবচেয়ে বেশি উন্নয়ন হয়েছে। ৪৩ ভাগ উত্তরদাতা মনে করেন, শেখ হাসিনা সন্ত্রাস দমনসহ আইন শৃংখলার উন্নতিতে সফল। ২১ ভাগ উত্তরদাতা মনে করেন দুর্নীতি দমনে তিনি সফল।

অন্যদিকে, মাত্র ১১ ভাগ উত্তরদাতা মনে করেন বেগম জিয়া সৎ। ২৬ ভাগ মনে করেন বেগম জিয়ার আমলে সবচেয়ে বেশি কাজ হয়েছে। ৯ ভাগ মনে করেন বেগম জিয়া সন্ত্রাস দমনসহ আইন শৃংখলা উন্নয়নে সফল। মাত্র ৪ ভাগ মনে করে দুর্নীতি দমনে বেগম জিয়া সফল ছিলেন।

জরিপে ৯১ ভাগ উত্তরদাতা মনে করেন, শেখ হাসিনা জনগণের জন্য ভাবেন। ৭ ভাগ মনে করেন বেগম জিয়া জনগণের জন্য ভাবেন। গত জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত ৮টি বিভাগীয় শহরে এই জরিপ পরিচালিত হয়েছে। জরিপের তথ্যগুলো একত্রিত করে জুলাই মাসের শেষ দিকে, আইপিআরসি জরিপের তথ্য ব্রাসেলসে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদর দপ্তরে জমা দেওয়ার কথা ছিল বলে জানা গেছে।

উল্লেখ্য, দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট ও রিসার্চ ডেভলোপমেন্ট সেন্টার (আরডিসি) চলতি ২০১৭ সালের প্রথমার্ধে যে জনমত জরিপ করেছিল তার ফলাফলও প্রায় একই রকম। ওই জরিপে বলা হয়েছিল দেশে শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা ৭২.৩%। আর খালেদা জিয়া জনপ্রিয়তা ২৬.৬%। চলতি ২০১৭ সালের মার্চ মাসে বাংলাদেশের ১ হাজার ৫ জন প্রাপ্তবয়স্ক নাগরিকের সঙ্গে ফোনে সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে ওই জরিপটি করা হয়েছিল।

জরিপে ৫৬.৯ ভাগ মানুষ আওয়ামী লীগকে ‘ভাল’ বলেছিল। বিএনপিকে বলেছিল ১৮.৫ ভাগ। জাতীয় পার্টিকে বলেছিল ১৫ ভাগ। আর আওয়ামী লীগকে ‘খারাপ’ বলেছিল ২.৬ ভাগ, বিএনপিকে ৪৪.১ ভাগ এবং জাতীয় পার্টিকে ২৫.৪ ভাগ। ওই সময় নির্বাচন হলে উত্তরদাতাদের ৩৬.১ ভাগ আওয়ামী লীগকে, বিএনপিকে ৩.৫ ভাগ, জাতীয় পার্টিকে ১.২ ভাগ ও জামায়াতকে ০.৪ ভাগ ভোট দিতে চেয়েছিলেন।

এর আগে দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্টের জরিপ এবং ওয়াশিংটন ভিত্তিক ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের জনমত জরিপের ফলাফলও বেশ কাছাকাছি ছিল। ২০১৬ সালের অক্টোবরে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের ওই জরিপে আওয়ামী লীগকে ৩৮ ভাগ ও বিএনপিকে ৫ ভাগ উত্তরদাতা ভোট দিতে চেয়েছিল।

২০০১-০৬ সাল পর্যন্ত জামায়াত-ই-ইসলামকে নিয়ে বিএনপির চার দলীয় জোট সরকারের কার্যাবলী, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধের চেষ্টায় জামায়াত-ই-ইসলামকে সমর্থন এবং সর্বশেষ ২০১৪ সালে নির্বাচনকালীন ও তার পরবর্তী বছরে রাস্তায় সাধারণ মানুষের ওপর চালানো অত্যাচারকে বিএনপির জনপ্রিয়তা হ্রাসের মূল কারণ হিসেবে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন ওই জরিপ পরিচালনাকারীরা।

তবে ওই জরিপে ৪৯.৭ ভাগ মানুষ কাকে ভোট দেবেন তার ঠিক নেই বলে জানিয়েছিলেন। আর ৭.৫ ভাগ মানুষ উত্তর দেননি। অন্যদিকে ১ ভাগ মানুষ বলেছিলেন, তারা ভোট দেবেন না।

ইন্ডিপেন্ডেন্টের জরিপ অনুসারে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে ‘ভাল’ বলেন ৭২.৩ ভাগ উত্তরদাতা এবং খালেদাকে ২৬.৬ ভাগা উত্তরদাতা ‘ভাল’ বলেন। অন্যদিকে শেখ হাসিনা সম্পর্কে নেতিবাচক মনোভাব ব্যক্ত করেন ২ ভাগ উত্তরদাতা। আর খালেদা জিয়া সম্পর্কে ১৩.৬ ভাগ। ওই জরিপে বলা হয়, তরুণদের ৭১ ভাগের কাছে শেখ হাসিনা এবং ২৩ ভাগের কাছে খালেদা জিয়া জনপ্রিয়।

২০১৪ সালের নির্বাচনের আগে ডেইলি স্টারও রাজনৈতিক দলের ওপর জনমত জরিপ রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল। বাংলাদেশের ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের পক্ষে পরিচালিত ওই জনমত জরিপেও জনপ্রিয়তায় এগিয়ে ছিলেন শেখ হাসিনা ও আওয়ামী লীগ। একটি বেসরকারি সংস্থা সেন্টার ফর স্ট্র্যাটেজিক রিসার্চের মাধ্যমে ওই জনমত জরিপের ফল প্রকাশ করেছিল ডেইলি স্টার।

বিবিসি বাংলার প্রতিবেদনে ওই জরিপে আওয়ামী লীগের জয়লাভের সম্ভাবনার কথা বলা হয়েছিল। ২০১৩ সালের ৪ জানুয়ারি প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রিয়তা গত বছরের ৪০ শতাংশ থেকে বেড়ে ৪৮ শতাংশে উঠেছে। অন্যাদিকে বিরোধী দল বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার জনপ্রিয়তা ৩০ শতাংশ থেকে ৩৯ শতাংশে উঠেছে।

তৃতীয় বৃহৎ দল জাতীয় পার্টিকে ভোট দেবে বলে জানিয়েছে চার শতাংশ উত্তরদাতা। অন্যদিকে মাত্র এক শতাংশ মানুষ জামাতে ইসলামীকে সমর্থন করার কথা বলেছে বলে ওই জরিপ প্রতিবেদনে বলা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24