মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১২:৩৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
জগন্নাথপুর-বিশ্বনাথ সড়কে পরিবহন ধর্মঘট চলছে জগন্নাথপুরে পঞ্চাশ ঊর্ধ্ব ব্যক্তির বয়স ২৪ বছর! এ অভিযোগে মনোনয়ন বাতিল, গেলেন আপিলে জগন্নাথপুরে নদীর পাড় কেটে মাটি উত্তোলনের দায়ে দুই ব্যক্তির কারাদণ্ড জগন্নাথপুর বাজার সিসি ক্যামেরায় আওতায় আনতে এসআই আফসারের প্রচারণা জগন্নাথপুরে নিরাপদ সড়ক ও যানজটমুক্ত রাখতে প্রশাসনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত জগন্নাথপুর উপজেলা ক্রিকেট এসোসিয়েসনের নতুন কমিটি গঠন মিরপুরে আ.লীগ প্রার্থী আব্দুল কাদিরের সমর্থনে কর্মীসভা অনুষ্ঠিত ফেসবুকে ক্ষমা চেয়েছেন ছাত্রলীগের সাবেক সম্পাদক রাব্বানী প্রায়ই বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকেন শিক্ষক জগন্নাথপুরে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে ফেসবুকে অপপ্রচার, থানায় জিডি

হবিগঞ্জে চার শিশু হত্যা মামলায় ৩ আসামির ফাঁসি

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ২৬ জুলাই, ২০১৭
  • ৩১ Time View

জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর ডটকম ডেস্ক :: হবিগঞ্জের বাহুবলে চাঞ্চল্যকর চার শিশু হত্যা মামলায় সব আসামির মৃত্যুদণ্ড প্রত্যাশা ছিল বলে জানিয়েছেন সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (বিশেষ পিপি) অ্যাডভোকেট কিশোর কুমার কর।

রায়ের পর এক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন তিনি।

বুধবার চার শিশু হত্যা মামলায় তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড দেন আদালত। এছাড়া দুইজনকে সাত বছর করে সশ্রম কারাদণ্ড এবং তিনজনকে খালাস দেওয়া হয়।

সকাল সাড়ে ১১টার দিকে সিলেট দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মকবুল আহসান এ রায় দেন।

মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় পাওয়ার পর রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষ ‘ন্যায় বিচারের জন্য’ উচ্চ আদালতে যাওয়ার কথাও জানিয়েছে।

সিলেট বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (বিশেষ পিপি) অ্যাডভোকেট কিশোর কুমার কর বলেন, ‘এই মামলা সিলেট বিভাগের সবচেয়ে চাঞ্চল্যকর ছিল। চারটি নিষ্পাপ শিশুকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়।’

এরপরও এমন রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করে তিনি সকল আসামির মৃত্যুদণ্ডের প্রত্যাশার কথা উল্লেখ করেন।

কিশোর কুমার কর বলেন, ‘এই মামলায় চার জন আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘মামলার বাদি এজাহারে কারো নাম উল্লেখ করেননি। তদন্তের পর পুলিশের দেওয়া অভিযোগপত্রে আসামিদের নাম এসেছে। এরপর চারজনের স্বীকারোক্তিতেই মামলায় সবার জড়িত থাকার বিষয়টি উঠে এসেছে।’

অ্যাডভোকেট কিশোর কুমার কর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দির উদ্ধৃতি করে বলেন, ‘এতে পরিকল্পনার সময় অভিযুক্ত পঞ্চায়েতপ্রধান আবদুল আলী বাগালের জীবনে অনেক পাপ করেছি, আরেকটা করে তওবা করে নেব বলে দম্ভোক্তির স্বীকারোক্তিও আসে আসামিদের কাছ থেকে।’

এছাড়া মামলার ৫৭ জন সাক্ষীর মধ্যে ৫২ জনের দেওয়ার সাক্ষ্যতেও আসামিদের বিরুদ্ধে দোষ প্রমাণিত হওয়ার জন্য যথেষ্ট ছিল বলে মন্তব্য করেন তিনি।

সিলেটে রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান আইনজীবী (পিপি) অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেন, ‘এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড ছিল। এক মাস আগে শিশুদের হত্যার পরিকল্পনা করা হয়। অভিযুক্তদের সবাই এই পরিকল্পনায় জড়িত ছিল। এই অবস্থায় আমরা সবার ফাঁসির প্রত্যাশা করেছিলাম।’

এ অবস্থায় মামলার রায়ের কপি পাওয়ার পর উচ্চ আদালতে যাওয়ার কথা বলেন তিনি।

অন্যদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী মো. শফিউল আলম রায়ে প্রতিক্রিয়ায় বলেন, এই রায়ে আমরা মর্মাহত, সংক্ষুব্ধ ও হতাশ।

রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে আসামিদের বক্তব্যে মিল ছিল না।

এই মামলায় অনেকে সাক্ষ্য দিলেও তাদের কেউ-ই প্রত্যক্ষদর্শী নন উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এতে আসামিদের বিরুদ্ধে কোনভাবেই দোষ প্রমাণিত হয়নি।’

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘এই মামলায় সাজা দিলে সবাইকে দিতে হবে; অন্যথায় সবাইকে খালাস দিতে হবে।’

সার্বিক বিবেচনায় সবার বেকসুর খালাস দিলে এই মামলার ন্যায়বিচার হত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এই মামলায় পলাতক তিন আসামির পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হোসাইন আহমদ শিপন বলেন, ‘পলাতক থাকা একজনের সাজা হলেও অপর দু’জনকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পেরেছি।’

উচ্চ আদালতে গেলে অপর আসামিকেও নির্দোষ প্রমাণের সুযোগ আছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

এদিকে রায় ঘোষণায় সময় বাদি আবদাল মিয়া আদালতে উপস্থিত না থাকলেও আসামিদের স্বজনরা এসেছিলেন। কিন্তু রায় ঘোষণার পর তাদের কেউ গণমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

প্রসঙ্গত, গত বছরে ১২ ফেব্রুয়ারি বাহুবলের সুন্দ্রাটিকি গ্রামের চার শিশু নিখোঁজ হয়। পাঁচ দিন পর বাড়ির অদূরের বালুমহাল থেকে মাটি চাপা দেয়া অবস্থায় তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। এ মামলায় গত ৪ এপ্রিল তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোকতাদির হোসেন ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। তাদের মধ্যে বাচ্চু মিয়া নামের একজন র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
জগন্নাথপুর টুয়েন্টিফোর কর্তৃপক্ষ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত © ২০১৯
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themebasjagannathpur24